পাতা:কাব্যগ্রন্থ (তৃতীয় খণ্ড).pdf/২৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরস্থির আচছাদন অনন্ত অম্বর । মহামৌন অসীমতা নিশ্চল সাগর, তারি মাঝখান হ’তে উঠে এস ধীরে তরুণী লক্ষীর মত হৃদয়ের তীরে আঁখির সম্মুখে । সমস্ত প্রহরগুলি ছিন্ন পুষ্পদলসম পড়ে যাক খুলি’ তব চারিদিকে,—বিদীর্ণ নিশীথখানি খসে যাক নীচে ! বক্ষ হ’তে লহ টানি’ অঞ্চল তোমার, দাও অবারিত করি’ শুভ্ৰ ভাল, আঁখি হ’তে লহ আপসরি’ উন্মুক্ত অলক ! কোনো মৰ্ত্ত্য দেখে নাই যে দিব্য মূরতি, আমারে দেখাও তই এ বিশ্রদ্ধ রজনাতে নিস্তব্ধ বিরলে উৎসুক উন্মুখ চিত্ত চরণের তলে চকিতে পরশ কর ;–একটি চুম্বন |াটে রাখিয়া যাও—একান্ত নির্জক্তন সন্ধ্যার তারার মত ; তালিঙ্গন-স্মৃতি অঙ্গে তরঙ্গিয় দাও, অনন্তের গীতি বাজায়ে শিরার তন্ত্রে । ফাটুক হৃদয় ভুমানন্দে—ব্যাপ্ত হ’য়ে যাক শূন্তময় গানের তানের মত ! এক রাত্রি তরে হে অমরী, তামর করিয়া দাও মোরে । | ミ○8