পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/২২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


     ভবন্তু তৎপ্রসাদেন ধনধান্যাদি-সম্পদঃ।।
 গোবিন্দ বলেন কেন ক্রোধ কর স্বামী।
 তব পদে কোন্ অপরাধ করি আমি।।
 উগ্রসেন বলে তুমি করিলে কুকর্ম্ম।
 ভদ্রা নিতে পার্থে বল, নহে এই ধর্ম্ম।।
 নিজ রথ তুরঙ্গ সারথি দিলে তারে।
 তোমারে না দিয়া দোষ দিব আর কারে।।
 গোবিন্দ বলেন ইহা জানে সর্ব্বজন।
 সেই রথে চড়ি পার্থ ভ্রমে অনুক্ষণ।।
 কিমতে জানিব যে সুভদ্রা লবে হরি।
 নর মায়া বুঝিবারে নাহি আমি পারি।।
 ইথে অকারণ প্রভু আমারে আক্রোশ।
 ভদ্রা যদি বাহে রথ দারুকে কি দোষ।।
 কহ সত্য পুনঃ দূত দারূকের কথা।
 কিরূপে দারূক আছে অর্জ্জুনের সেথা।।
 দূত বলে দারূক আপন বশে নাই।
 বন্ধন করিয়া তারে রাখিল গোসাঞি।।
 শ্রীকৃষ্ণ বলেন শুন যতেক বচন।
 এই কথা বুঝহ করিয়া অনুমান।।
      ------
  দূত কর্ত্তৃক যদুগণের পরাজয় বার্ত্তা।
   পুনরাপি কহে দূত করি যোড়হাত।
 কি কারণে নিঃশব্দে রহিলে যদুনাথ।।
 আজ্ঞা দেহ আমি এবে করিব কি কাজ।
 বার্ত্তা হেতু পাঠাইল কুমার-সমাজ।
 কামদেব মহাবীর যাদব প্রধান।
 তিনলোক মধ্যে যার অব্যর্থ সন্ধান।।
 তিল তিল কাটা গেল শর ধনুর্গুণ।
 একগুটি নাহি অস্ত্র শূণ্য হৈল তূণ।।
 শাম্ব গদ সারণ যতেক বীর আর।
 যাদবে অক্ষত তনু নাহিক কাহার।।
 কাহার' নাহিক অস্ত্র কার' ধনুর্গুণ।
 সবারে করিল জয় একাকী অর্জ্জুন।।
 পাঠাইয়া দেহ অস্ত্র রথ অশ্ব আর।
 আপনি চলহ কিম্বা দৈবকী-কুমার।।
 হেন বাক্য শুন প্রভু দেখিয়া সচক্ষে।
 না পারিবে অর্জ্জুনে কুমারগণ পক্ষে।।
 স্নেহেতে অর্জ্জুন নাহি মারে শিশুগণে।
 তেঁই এতক্ষণ প্রভু জীয়ে সর্ব্বজনে।।
 ক্ষত্রিয়ের ধর্ম্ম আছে শস্ত্রের গোচরে।
 বলেতে বিবাহ করে প্রশংসা তাহারে।।
 কিন্তু দোষ কি করিল বীর ধনঞ্জয়।
 আপন ভগিনী-কর্ম্ম দেখ মহাশয়।।
 অর্জ্জুনে তাহার যদি নাহি ছিল মন।
 তবে কেন তার অশ্ব চালায় এখন।।
 না জানে কি ধনঞ্জ্য তোমার মহিমা।
 এক্ষণে ভাঙ্গিতে পার তাহাহ্র গরিমা।।
 কিন্তু পার্থ জীয়ন্তে না ধরিতে পারিবা।
 অনেক করিলে শক্ত প্রাণেতে মারিবা।।
 সুভদ্রা না জীবে তবে ত্যাজিবে জীবন।
 কহ দেব ইথে হবে কি কর্ম্ম সাধন।।
 এক্ষণে আমার মত এই মহাশয়।
 সবাকার মত যদি তব আজ্ঞা হয়।।
 প্রিয়ম্বদ একজন যাউক আপনার।
 প্রিয়বাক্যে ফিরাউক কুন্তীর কুমার।।
 এক্ষণে আনাও তারে, করাও বিবাহ।
 সম্প্রীতে সুভদ্রা তুমি তারে সমর্পহ।।
 আপনি সাত্যকি তুমি করহ গমন।
 আনহ অর্জ্জুনে কহি মধুর বচন।।
       -----
  দুর্য্যোধনের অভিমানে স্ব্দেশ যাত্রা ও
     পার্থ সহ সুভদ্রার বিবাহ।
   তবে রাজা দুর্য্যোধন সর্ব্ব সৈন্য লৈয়া।
 যাদব-সৈন্যের মধ্যে উত্তরিল গিয়া।।
 শুনিল নিলেন পার্থ সুভদ্রা হরিয়া।
 মহাক্রোধে দুর্য্যোধন উঠিল গর্জ্জিয়া।।
 হে কৃপ হে পিতামহ আচার্য্য বিদুর।
 সাক্ষাতে দেখহ কর্ম্ম তনয় পাণ্ডুর।।
 জে কন্যা নিমিত্ত রাম আনিলেন মোরে।
 দেখহ দুষ্টের কর্ম্ম হরিল তাহারে।।
 কর্ণ বলে মহারাজ বসি দেখ তুমি।
 আজ্ঞা দিলে অর্জ্জুনে বান্ধিয়া দিব আমি।।