পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૨8૨ জলচ্চিতামধ্যগতং ঘোরদংষ্ট্র করালিনীং ॥ [ মহাভারত ہیمبی ইন্দ্র যম বরুণ কুবের আদি স্বরে। আর যত দেবগণ বৈসে হরপুরে ॥ " পাতালেতে নাগরাজ শেষ বিষধর । পৃথিবীতে বৈসে যত রাজ রাজ্যেশ্বর ॥ যুধিষ্ঠির বলিলেন কর অবধান। কোন দূত নিমন্ত্রিতে যাবে কোন স্থান ॥ গোবিন্দ বলেন নাহি অন্তের শকতি । দেব নিমন্ত্রিতে যাবে পার্থ মহারথী ॥ অগ্নিদত্ত রথ যেই কপিধ্বজ নাম। শ্বেত চারি অশ্ব যার লোকে অনুপম ॥ সে রথের অগম্য নাহিক ত্রিভুবনে । তিনলোকে ভ্ৰমিবারে পারে একদিনে ॥ সেই রথে চড়ি পার্থ করহ গমন । উত্তর দিকেতে গিয়া কর নিমন্ত্রণ ॥ পৰ্ব্বতে যে আছে রাজা কানন ভিতরে । মনুষ্যের কি সাধ্য যাইতে পক্ষী নারে ॥ সে সকল রাজারে করিবে নিমন্ত্রণ। কৈলাস পৰ্ব্বতে যাবে যথা বৈশ্রবণ ॥ র্তারে নিমন্ত্রিয়া তথা উপদেশ লবে । মনুষ্য অগম্য স্বর্গ কেমনে যাইবে ॥ ইন্দ্রসহ ইন্দ্রপুরে যত দেবগণ । দেবঋষি ব্ৰহ্মঋষি বৈসে যত জন ॥ । সবে নিমন্ত্রিয়া যাও বরুণের পুরী । তথা হৈতে যাও যথা মৃত্যু অধিকারী ॥ তবে ধৰ্ম্মে আসিবেক ত্ৰৈলোক্যমণ্ডল । বিশেষ তোমারে স্নেহ করে আখণ্ডল ॥ শ্রীতিমাত্র যজ্ঞে করিবেন আগমন । ইন্দ্র আইলে না আসে নাহি হেন জন ॥ যারে দেখ তাহারে করিবে নিমন্ত্ৰণ । লঙ্ক গিয়া বিভীষণে করিবে বরণ ॥ পরম বৈষ্ণব হয় রাক্ষসের পতি । মম ভক্ত অনুরক্ত ধাৰ্ম্মিক সুমতি ॥ বার্তা পেয়ে সেইক্ষণে পাঠাইবে চর । দূতমুখে নিমন্ত্রিলে আসিবে সত্বর ॥ তথাপি যাইবে তুমি অন্যে নাহি কাজ । ইন্দ্রের সদৃশ গণি রাক্ষসের রাজ ॥ নিমন্ত্রিয়া তুমি তারে আইস সত্বর। আর যত দুষ্টপণা করে নৃপবর ॥ নিমন্ত্রণ পেয়ে যে না আসিবে হেথায় । বন্ধন করিয়া শীঘ্ৰ আনিবেক তায় ॥ আর তিন দিকেতে যাউক দূতগণ । মহীপালগণেরে করুক নিমন্ত্রণ ॥ এতেক বলেন যদি দেব দামোদর। শীঘ্রগামী দূতগণে ডাকেন সত্বর ॥ রাজগণে লিখিলেন যজ্ঞ বিবরণ। দ্বিজ ক্ষত্র বৈশ্ব শূদ্র আছে যত জন ॥ নিজ নিজ রাজ্য হৈতে সকলে আসিবে। রাজসূয় যজ্ঞে আসি উৎসব দেখিবে ॥ এইরূপে তিন দিকে পাঠাইয়া দূত । উত্তরে করেন যাত্র স্বয়ং ইন্দ্রস্থত ॥ মহাভারতের কথা অমৃত সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ রাজস্থয় যজ্ঞ আরম্ভ । পাইয়া রাজার আজ্ঞা মন্দ্র-স্থতাস্থত । আনাইল শিল্পিগণ পাঠাইয়া দূত ॥ দেবের মন্দির স্বর্ণে রত্নেতে নিৰ্ম্মিত । হেম রত্ন মুকুতায় করিল মণ্ডিত ॥ এক এক পুর মধ্যে শত শত ঘর । তাহাতে রাখিল ভোজ্য পেয় বহুতর ॥ আসন বসন শয্যা থুল গৃহে গৃহে । বাপী কূপ জলপূর্ণ গন্ধে মন মোহে ॥ কনক রজত পাত্রে করিতে ভোজন । এক পুরে দূত নিয়োজিল শত জন ॥ লক্ষ লক্ষ গৃহ আদি মনোহর স্থল । নানা বৃক্ষ রোপিল সহিত ফুল ফল ॥ দিব্য দিব্য গৃহ কৈল চারিজাতি ক্রম। অপূৰ্ব্ব নিৰ্ম্মাণ কৈল লোকে মনোরম ৷ হস্তী উন্থ বৃষভ শকট লক্ষ লক্ষ । বৃহৎ নৌকায় আসে যত দ্রব্য ভক্ষ্য ॥ রাত্রি দিব৷ সায়ং প্রাতঃ নাহিক বিশ্রাম । অনুক্ষণ আসিতেছে দ্রব্য অবিরাম ৷