পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՀG 8 পুরুজিৎ নামে রাজা পাণ্ডব মাতুল । রাজ আজ্ঞ পেয়ে তবে লইল নকুল ॥ র্তার সঙ্গে গেল জনকত নৃপবর। দেখিয়া বড়ই ক্রুদ্ধ হৈল বৃকোদর ॥ মাতুলে রাখিয়া তার যত রাজগণে । ধাক্কা মারি বাহির করিল ততক্ষণে ॥ আজ্ঞা বিনা ছাড়িতে নারিব কদাচন । আজ্ঞা আনি ল’য়ে যাও রাজা বিভীষণ ॥ এত শুনি ক্রুদ্ধ হৈয়া গেলেন গোবিন্দ । দুই চক্ষু দেখি বেন রক্ত অরবিন্দ ॥ তথা হৈতে গেলেন সহিত লঙ্কাপতি । পূৰ্ব্বদ্বারে উপনীত আপনি স্ত্রপতি ॥ মহাবীর ঘটোৎকচ হিড়িম্বা কুমার । তিন লক্ষ রাক্ষসে রক্ষা করে দ্বার ॥ কৃষ্ণেরে দেখিয়া সবে পথ ছাড়ি দিল । বেত্ৰ দিয়া বিভীষণে দ্বারে রহাইল ॥ গোবিন্দু বলেন ইনি লঙ্কার ঈশ্বর । ব্ৰহ্মার প্রপৌত্র রাবণের সহোদর ॥ ঘটোৎকচ বলে শুন দেব চক্রপাণি । আমি কি করিব তুমি জানহ আপনি ॥ জন কত রাজামাত্র গিয়াছে ভিতরে । বাইশ সহস্র রাজা আছে এই দ্বারে ॥ ব্ৰহ্মার প্রপৌত্র দেব অনেক এসেছে । দুই-তিন মাস দ্বারে রহিয়া গিয়াছে ॥ বহু নাগগণ সঙ্গে শেষ বিষধর ॥ পাতাল ছাড়িয়া মর্ত্যে রহে নিরন্তর । সহস্ৰ বদন শোভে নাগ অধিকারী । এইখানে তিনি রছিলেন দিন চারি ॥ এই দেখ রাজগণ দাণ্ডাইয়া আছে । একদৃষ্টে বুকে হস্ত নাহি চায় পাছে ॥ গিরিব্রজে হরপতি জ্বরাসন্ধ স্থত । জয়সেন মহারাজ যুগল অযুত ॥ নব কোটি রথ নবকোটি মত্ত হাতী । ষষ্ঠ কোটি তুরঙ্গম অসংখ্য পদাতি ॥ নানা রত্ন আনিল বিবিধ যানে করি । হস্তিনী গর্দভ উট শকট উপরি ॥ দক্ষিণে মার্জশীমুটাং বামে কলসধারিণীং ॥ [ মহাভার। অহৰ্নিশি নৌকা বহে সংখ্যা নাহি জানি যার নৌকা ত্রিশ ক্রোশ ঢাকে গঙ্গাপান, বিংশতি সহস্র রাজা সংহতি করিয়া । দ্বারেতে আছয়ে দেখ বাহির হইয়া ॥ শিশুপাল রাজা দেখ চেদীর ঈশ্বর । যাহার সহিত পঞ্চ শত নৃপবর ॥ নানা যান করিয়া বিবিধ রত্ন লৈয়া । দ্বারেতে আছয়ে দেখ বারিত হইয় ॥ দীর্ঘজঙ্ঘ রাজা দেখ অযোধ্যার পতি। তিনকোটি রথ সঙ্গে তিনকোটি হাতী । সপ্তদশ নরপতি সংহতি করিয়া । কর ল’য়ে দ্বারে অাছে বারিতহইয়া । কাশীরাজ দেখ এই কাশীর ঈশ্বর । কোশলের রাজা বৃহদ্বল নৃপবর ॥ বহু রাজা স্থপাৰ্শ্ব কৌশিক শ্রত রাজ মন্দ্ৰসেন চন্দ্রসেন পাশ্ব মহাতেজ ৷ স্থবৰ্ণ স্থমিত্র রাজা স্থমুক শস্ত্ৰক । মণিমন্ত দণ্ডধর নৃপতি মুকুট । পুণ্ডরীক্ষ বাস্থদেব জরদগব আদি । করিল মেদিনী ব্যাপ্ত সমুদ্র অবধি ॥ এ সবার সঙ্গে রাজা শত সপ্ত শত । , লিখনে না যায় যত গজবাজী রথ ॥ ! যে দেশে যে রত্ন-জন্মে তাহ কর লৈয় দ্বারেতে আছয়ে দেখ বারিত হইয়া | | উপরুদ্ধ অত্যন্ত হয়েন যেই জন । । রাজারে জানায় গিয়া তার বিবরণ ॥ ৬ তবে যদি ধৰ্ম্মরাজ দেন অনুমতি । যারে আজ্ঞা দেন সেই জন করে গতি । মুহূৰ্ত্তেকে রহি মাত্র দরশন পায় । শীঘ্ৰগতি পুনঃ আনি রাখয়ে হেথায় ৷ রাজার শ্বশুর দেখ দ্রুপদ নৃপতি । দিনেক রছিল পরিজনের সংহতি ॥ আজ আজ্ঞা পাইয়া ছাড়িল দ্রুপদেরে তার সঙ্গে কত রাজা পশিল ভিতরে ! সেই হেতু পিতা মোরে করিলেন ক্রো" শ্বশুরের কিছু না রাখিল উপরোধ ॥