পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সভাপধৰ । ] : বরদী ভয়হস্ত চ ৰিভুজাগেীরদেহিক । ২৭৩ নিয়ে পরম স্বখে থাকহ নৃপতি । কাক হস্তে ময়ূরের না কর দুৰ্গতি । বে হইল এখন নিবর্ত নরপতি । নুগুগণে কর কেন যমের অতিথি । দিকপাল সহ যদি আসে বজ্রপাণি । পাঞ্জবে জিনিতে নারে তোমা কিলে গনি ৷ হে ভীষ্ম, হে দ্রোণ, কৃপ নাহি শুন কেনে । সবে মেলি রঙ্গ দেখ বুঝিলাম মনে ॥ অগাধ সমুদ্রে নৌকা না ডুবাও হেলে । সবে মেলি যমগৃহে যাইতে বসিলে ॥ অক্রোধি অজাতশক্র ধর্মের তনয় । ঘেক্ষণে করিবে ক্রোধ ভীম ধনঞ্জয় ॥ যমদ যুগল করিবেক যবে ক্রোধ । কে আছে সহায় তব করিতে প্রবোধ ॥ হে অন্ধ, পাশাতে যত লইবে সেবাত । বুঝিলা কি তাহাতে তোমার নাহি হাত ॥ কপট করিয়া তাহে কোন প্রয়োজন । আজ্ঞামাত্রে দিবে সব ধৰ্ম্মের নন্দন ॥ এই শকুনিয়ে আমি ভালমতে জানি । কপট কুবুদ্ধি খলগণ চুড়ামণি ॥ কোথায় পৰ্ব্বতপুর ইহার নিবাস । কে আনিল হেথায় করিতে সৰ্ব্বনাশ ॥ বিদায় করহ, ঘরে যাক আপনার । উঠ গো শকুনি, পাশা করি পরিহার ॥ সভাতে এতেক যদি বিদুর বলিল । জ্বলন্ত অনলে যেন ঘৃত ঢালি দিল ॥ দুৰ্য্যোধন বলে আমি তোমা না জিজ্ঞাসি । কার হয়ে কহ ভাষা সভামধ্যে বলি ৷ জিহাতে হৃদয়-তত্ত্ব মনুষ্যের জানি । সদাকাল কর তুমি ধৃতরাষ্ট্র হানি ॥ পাণ্ডুপুত্র প্রিয় তুমি সৰ্ব্বলোকে জানে । নিকটে না রাখি কভু শক্রহিত জনে ॥ যথায় করহ ইচ্ছ। যাও আপনার । এখায় রহিতে যোগ্য না হয় তোমার ॥ সভামধ্যে কহ কথা যেন স্বয়ং প্রভু। । কেহ এ কুৎসিত আর নাহি কহে কভু ॥ বিছর বলেন আমি না কহি তোমারে । ধৃতরাষ্ট্র দুঃখ দেখি হৃদয় বিদরে ॥ | তোরে কি কহিব ধৃতরাষ্ট্র নাহি শুনে । | হিতবাক্য হতায়ু কখন নাহি মানে ॥ | আমারে কি হেতু তুমি জিজ্ঞাসিলে কথা । জিজ্ঞাসুহ আপন সদৃশ পাও যথা ॥ । এত বলি নিঃশব্দে যে ক্ষত্ত মহাশয়। পুনঃ আরম্ভিল পাশা স্থবল তনয় ॥ শকুনি বলিল চাহি ধৰ্ম্মের নন্দন । সৰ্ব্বস্ব হারিলে আর কি করিবে পণ ॥ যুধিষ্ঠির বলেন যে অসংখ্য রতন । চারি সিন্ধু মধ্যেতে আমার মত ধন ॥ সকল করিনু পণ এবার সারিতে । জিনি লইলাম বলে গান্ধারের স্বতে ॥ যুধিষ্ঠির বলেন যে আছে পশুগণ । গাভী উঐ খর আর মেষ অগণন ॥ সব করিলাম পণ এবার দ্যুতেতে । জিনিলাম বলি বলে সুবলের স্বতে ॥ যুধিষ্ঠির বলিলেন পণ করি আমি । আমার শাসিত আছে যত দেশ ভূমি ॥ ব্রাহ্মণের ভূমি গৃহ ছাড়িয়া রতন । এবার দেবনে আমি করিলাম পণ ॥ শকুনি বলিল জিনিলাম সে সকল । আর কি আছয়ে পণ কর মহাবল ॥ ধৰ্ম্ম দেখিলেন ধন কিছু নাহি আর । কুমারগণের অঙ্গে যত অলঙ্কার ॥ সকল করিল পণ জিনিল শকুনি । দেখিয় চিন্তিত বড় ধৰ্ম্ম নৃপমণি ॥ শকুনি বলি কহ কি আর বিচার । বিচারি করেন পণ ধৰ্ম্মের কুমার ॥ ক্ষিতিমধ্যে বিখ্যাত নকুল মহাবীর । কামদেব জিনি রূপ স্বন্দর শরীর ॥ সিংহগ্রীব পদ্মপত্র যুগল নয়ন। এবার সারিতে নকুলেরে করি পণ ॥ কপটে শকুনি বলে বলি সারোদ্ধার । ! তব প্রিয় ভাই এই পাণ্ডুর কুমার ॥