পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৪৮৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8b~ం এড়িলেন শক্তি গোট। সূৰ্য্য সম জ্বলে। মহাশব্দ করি আসে গগনমণ্ডলে ॥ অৰ্দ্ধচন্দ্র দিয়া পার্থ করি খণ্ড খণ্ড । দুই বাণে কাটিলেন সারথির মুণ্ড ॥ কাটিলেন মত্ত হস্তিধ্বজ শোভাকর। দেপিয়া কৌরব-সৈন্য করে হাহাকার ॥ কর্ণের সহায় ছিল যত রখিগণ । অৰ্জ্জুনে বেড়িয়া করে বাণ বরিষণ ॥ কাটিয়া সকল বাণ পার্থ মহাবল । মুহূৰ্ত্তেকে মারিলেন সহায় সকল ॥ দিব্য বাণ এড়িলেন পার্থ মহাচণ্ড । কর্ণের কবচ করিলেন খণ্ড খণ্ড ॥ বাণাঘাতে ব্যথিত হইয়া অঙ্গনাথ । চিন্তিয় দেখিল আর অস্ত্র নাই সাথ ॥ বিশেষ অর্জুন বাণে শরীর পীড়িল । রণ ত্যজি কর্ণবীর পৃষ্ঠভঙ্গ দিল ॥ কর্ণ যদি ভঙ্গ দিল সংগ্রাম ভিতর । ভঙ্গ দিয়া পলাইল যত কুরুবর ॥ ধায় দু-মুখ বিবিংশতি মহাবল । চত্রসেন বেগে ধায় শকুনি সোঁবল ॥ শকুনি পলায়ে যায় অৰ্জ্জুমের আগে । দেখিয়া অৰ্জ্জুন রথ চালাইল বেগে ॥ শকুনিরে আগুলির চালাহল রথ । ফাপর পৌবল পলাইতে নাহি পথ ॥ মুখেতে উড়িল ধূলা নাহি আর কথা । অৰ্জ্জুনেরে দেখিয়া করিল হেটমাথ ॥ অৰ্জ্জুন বলেন কোথা পালাও মাতুল । তুমি যে আমার কষ্ট করিবার মুল ॥ তোমারে মারিলে সব দুঃখ বিমোচন । কপট পাশার যত তুমি সে কারণ ॥ তোমায় আমায় আজি খেলাইব পাশ । নিঃশব্দ হইলে কেন নাহি কহ ভাষা a ধনুক করিব পাশ। অস্ত্ৰগণ অক্ষ । মস্তক করিব সারি যত তোর পক্ষ ॥ তুমি সে কোরবকুলে দুষ্ট-বুদ্ধিদাত । সব দ্বন্দ্ব ঘুচিবে কাটিলে তোর মাথ ॥ i সাত্তিক বটুক ভৈরবের ধ্যান—ওঁ বন্দে বালং— [ মহাভারতী চিন্তিয়া শকুনি কহে করিয়া উপায় T যতেক কহিলে তাত তোরে না যুয়ায় । , তোমার শকতি আমা না পার মারিতে । আমার প্রতিজ্ঞ সহদেবের সহিতে ॥ অবধ্য তোমার শক্র জানহ আপনে । অঙ্গে ঘাত করিতে নারিবে কদাচনে ॥ আমার প্রতিজ্ঞ তুমি জান ভালমতে । অস্ত্রাঘাতে পারি ক্ষিতি দাহন করিতে। আমার সাক্ষাতে যুদ্ধ করে কোন জন । প্রাণ ল’য়ে শীঘ্ৰগতি পলাও অৰ্জ্জুন ॥ এত বলি আকর্ণ পূরিয়া অস্ত্র মারে । নানা অস্ত্রবৃষ্টি করে অর্জুন উপরে ॥ শুনিয়া ত অৰ্জুনের হুইল স্মরণ । প্রতিজ্ঞ করিল পূৰ্ব্বে মাদ্রর নন্দন ॥ চিন্তিয়া অৰ্জ্জন অস্ত্র মারে বেড়াপাক । রথ ফিরে শকুনির কুমারের চাক ॥ ভ্রমণইয়৷ ল’য়ে গেল রজকের গৃহে । খরপৃষ্ঠে চাপাইয়া বান্ধিলেক তাহে ॥ অদ্ভুত দেখয়ে দূরে কুরুবারগণ । চক্রাকার ভ্ৰমি বুলে হবলনন্দন ॥ শকুনির বিপাক দেখিয়া লোক হাসে । আর যত কুরুসৈন্য পলায় তরাসে ॥ ! উৰ্দ্ধশ্বাস হানবাস ধায় সব বার । ভীষ্মের চরণে গিয়া রাখয়ে শরীর ॥ মহাভারতের কথা অমৃত-সমান । কাশীরাম দাস কহে শুনে পুণ্যবান ॥ J ভীষ্মের সহিত অৰ্জুনের যুদ্ধ । উত্তরে চাহিয়া বলিলেন ধনঞ্জয় । এথ হৈতে রথ লহ বিরাট তনয় ॥ ভয়েতে অৰ্বিত হ’য়ে সকলে পলায় । ভয়াৰ্ত্ত জনেরে মারিবারে না যুয়ায় ॥ যথায় শান্তমুপুত্র ভীষ্ম পিতামহ । শীঘ্ৰ তার অগ্ৰেতে আমার রথ লই | র্তাহার রক্ষিত হয় কৌরবের সেন । তাছারে জিনিলে সে জিনিব সৰ্ব্বজনী !