পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৫৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভীষ্মপৰ্ব্ব । ] ভীষ্মের বচন শুনি, হরষিত কুরুমণি, চলি গেল আপন শিবিরে ॥ ব্যাস বিরচিল গাথা, অপূৰ্ব্ব ভারত-কথা, শ্ৰুেতমাত্র কলুষ বিনাশ । কমলাকান্তের স্থত, বিরচিল-কাশীরাম দাস ॥ ষষ্ঠ দিনের যুদ্ধ । পরদিন প্রভাতে সাজিয়া দুই দল । নানা বাদ্য সহ সৈন্য করে কোলাহল ॥ নানাবর্ণ পতাকা উড়য়ে রথধ্বজে । সিংহনাদ করি সব যোদ্ধারা গরজে ॥ মহারথী রথিগণ ধনুঃশর হাতে । সিংহনাদ করিয়া ধাইল চতুৰ্ভিতে ॥ রথীকে ধাইল রথী গজে ধায় গজ । অসোয়ারে আসোয়ারে পদাতিক যুঝে ॥ মুঘল মুদগর শেল ভুষণ্ডি তোমর । নানা বাণ মারে যেন বর্ষে জলধর ॥ গদা হাতে কর্ণবীর অতি বেগে ধায় । গজ অশ্ব মারয়ে সম্মুখে যারে পায় ॥ সহদেব মহাবীর মান্দ্রীর নন্দন । অসিচৰ্ম্ম ধরি বীর আরম্ভিল রণ ॥ রণদপ করি বীর প্রবেশে সমরে । শত শত বীরগণে দিল যমঘরে ॥ শত শত হস্তী মারে পদাতি বহুল । যতেক মারিল সৈন্য নাহি তার কুল ৷ সৈন্যের বিনাশ দেখি শকুনি রুষিল । একেবারে ত্রিশ বাণ সন্ধান পূরিল ॥ সন্ধান পুরিয়া বীর শীঘ্ৰ এড়ে বাণ । খঙ্গে কটি সহদেব করে খান খান ॥ বাণ ব্যর্থ দেখি রোষে শকুনি দুৰ্ম্মতি । সন্ধান পূরিয়া বাণ মারে শীঘ্ৰগতি ॥ পুনঃ পুনঃ যত বাণ মারিল শকুনি । শীঘ্রহস্তে সহদেব খড়েগ ফেলে হানি ॥ মহাকোপে ধায় বীর খড়গ ল’য়ে হাতে । অশ্ব সহ সারথিরে ফেলিল ভূমিতে ॥ নাহং তৃপ্ত জগদখিলমিদং গ্রাসমেকং করোমি । ● ዓ¢ অশ্ব সহ সারথি সমরে গেল কাট । পলায় শকুনি বীর নাছি চাহে বাট ॥ শকুনি চলিয়া গেল ত্যজিয়া সমর । রথে চড়ি সহদেব নিল ধনুঃশর ॥ স্বজনের মনঃপুত, · জয়দ্ৰথ নকুলে বাজিল ঘোর রণ । নানা বাণ করিলেন দেহে বরিষণ ॥ দোহাকার বাণ দোহে নিবরিয়ে শরে । পরাজয় কাহার না হইল সমরে ॥ ধৃষ্টদ্যুম্ন ভূরিশ্রব রণ ঘোরতর । সৰ্ব্বলোকে দেখে তাহ থাকিয়া অন্তর ॥ আষাঢ় শ্রাবণে যেন বর্ষে জলধর । ততোধিক দুইজন বরিষয়ে শর ॥ সহস্ৰ সহস্ৰ সেনা পড়িল সমরে । দ্রোণাচাৰ্য্য দেখি তবে রুষিল অন্তরে ॥ মহাকোপে দ্রোণাচাৰ্য্য বরিষয়ে শর। লক্ষ লক্ষ সৈন্যগণে দিল যমঘর ॥ তাহা দেথি রুষিলেন অর্জন নন্দন । দ্রোণের উপরে করে বাণ বরিষণ ॥ বাণে নিবারয়ে তাহ দ্রোণ মহাশয় । কুপিত হইল দেখি অৰ্জ্জুন-তনয় ॥ একেবারে শত শর সন্ধান করিল। দ্রোণাচার্য্য বাণাঘাতে তাহ নিবারিল ॥ ক্রোধে অভিমনু্য বীর এড়ে দশ বাণ । দ্ৰোণের হাতের ধনু করে খান থান ॥ আর ধনু লয় গুরু চক্ষু পালটিতে । সেই ধনু কাটে বীর নাহি গুণ দিতে ॥ পুনঃ পুনঃ দ্রোণাচাৰ্য্য যত ধনু লয় । বাণে কাটি পাড়ে তাহা অৰ্জ্জুন-তনয় ॥ পুনঃ দিব্য অস্ত্র বীর সন্ধান পূরিল। দ্রোণের কবচ ভেদি অঙ্গে প্রবেশিল ॥ মূচ্ছিত হইয়া দ্রোণ পড়িলেন রথে । সৈন্তেরে পাঠায় অভিমনু্য যমপথে ॥ সহস্ৰ সহস্র রথী গজ অগণন । মারয়ে যতেক সৈন্য কে করে গণন ॥ কতক্ষণে চৈতন্য পাইল দ্ৰোণ গুরু । কোপে কম্পমান অঙ্গ কাপে বক্ষ উরু ॥