পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৬৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


HIV সৈন্যের শোণিত সব হইল কর্দম । হেনমতে রণস্থল দেখি হয় ভ্ৰম ॥ শিবগণ চতুর্দিকে বিপরীত ডাকে। প্রেত ভূত পিশাচ আইল বাকে বাকে ॥ দুগন্ধ কারণে লোক পথ নাহি চলে । দেবগণ ভয় করে সেই রণস্থলে ॥ নিদ্রা যায় রাজগণ হ’য়ে অচেতন । শবের উপরে সবে করিল শয়ন ॥ এতেক দেখিয়া পার্থ কুন্তীর নন্দন । দুৰ্য্যোধনে নিন্দ করি বলিছে বচন ॥ ধিক্ ধিক্ দুর্যোধন তোমার জীবনে । এতেক দুৰ্গতি দুষ্ট কৈল জ্ঞাতিগণে ॥ এতেক বলিয়। তবে ইন্দ্রের নন্দন । শিবিরেতে চলিলেন ল’য়ে নারায়ণ ॥ ঘটোৎকচ শোকে কান্দে বীর বৃকোদর । বিলাপ করেন পার্থ অতি দুঃখকর ॥ অভিমনু শোকে মম বিকল শরীর । মহাশোক দিয়া গেল ঘটোৎকচ বীর ॥ বলেন কৃষ্ণেরে চাহি বীর ধনঞ্জয় । কি করিব আজ্ঞ মোরে কহ মহাশয় ॥ দুই পুত্ৰশোকে মম পুড়িছে শরীর । কি কৰ্ম্ম করিব আজ্ঞা কর যদুবীর ॥ এমত শুনিয়া কহিছেন ভগবান । বড় কৰ্ম্ম কৈল তবে ভীমের সন্তান ॥ তাহার কারণে মৃত্যু নহিল তোমার । শুনহ কহি যে তার পূর্ব সমাচার ॥ শ্ৰীকৃষ্ণ বলেন শুন অর্জুন বৃত্তান্ত । তোমার লাগিয়া সেই আসে শচীকান্ত ॥ অক্ষয় কবচ ধরে কর্ণ মহাবীর । শ্রবণে কুণ্ডল যুগ্ম সমান মিহির । কর্ণের সমান দাতা নাহি ত্রিভুবনে । যে যাহা মাগয়ে তাহ দেয় সেইক্ষণে ॥ তব হিত হেতু আসে সহস্ৰলোচন। উত্তরিল ইন্দ্র যথা রবির নন্দন ॥ দ্বিজরুপে যান ইন্দ্র কর্ণের নিকটে । দ্বিজ দেখি কর্ণ প্ৰণমিল করপুটে । প্রত্যগ্রারমণসঙ্কাশ বদনাত্তোজ মওলাং ॥ | প্রণাম করিয়া কহে রবির তনয় । [ মহাভারত। ────བས། ། কোন দেশে ঘর তব কহ মহাশয় ॥ কিসের কারণে হেথা গমন তোমার । বিবরিয়া কহ মোরে সব সমাচার ॥ আশীৰ্ব্বাদ করি কহে সহস্ৰলোচন । এক দান দেহ মোরে সূর্য্যের নন্দন ॥ এত শুনি কর্ণ বলে কহ দ্বিজবর । । কোন দ্রব্যে অভিলাষ মাগহ সত্বর ॥ ইন্দ্র বলে সত্য অাগে কর ধনুৰ্দ্ধর । তবে সে মাগিব আমি তোমার গোচর ॥ এতেক শুনিয় কর্ণ ভাবে মনে মন । নাহি জানি দ্বিজরুপে আসে কোনজন ॥ যে হোক সে হোক মম সত্য অঙ্গীকার । যেই যাহা মাগে দিব প্রতিজ্ঞা আমার ॥ এত চিন্তি কহে কর্ণ শুন দ্বিজবর । দিব ত সৰ্ব্বথা আমি কহিনু সত্বর ॥ জানহ আমার এই সত্য অঙ্গীকার । যদি প্রাণ চাহ দিব না করি বিচার ॥ এত শুনি কহিলেন কর্ণের গোচর । কবচ কুণ্ডল দান করহ সত্বর ॥ বিস্মিত হইয়া কৰ্ণ ভাবে মনে মন । হেনকালে সূৰ্য্যবাক্য হইল স্মরণ ॥ যোড়হাতে কর্ণ বলে করি নিবেদন । জানিলু আপনি তুমি সহস্ৰলোচন ॥ অর্জনের হেতু তুমি আসিয়াছ হেথা । কুণ্ডল কবচ দিব কত বড় কথা ॥ প্রাণ যদি চাহ তবু না করিব আন । এত বলি কর্ণবীর করিল প্রণাম ॥ পুনরপি কৰ্ণ বলে শুন মহাশয় । অর্জনের হেতু তুমি কেন কর ভয় ॥ অৰ্জ্জুনের সখা কৃষ্ণ কমললোচন । তাহারে মারিবে হেন আছে কোনজন ॥ আমারে মারিবে পার্থ না যায় খণ্ডন । কুরুক্ষেত্রে যখন হুইবে মহারণ ॥ এত বলি কর্ণ বীর হাতে খড়গ লৈয়া । অঙ্গ কাটিয়া কবচ দিল সে খুলিয়া ॥