পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গদাপর্ব । ] তোর যত অধৰ্ম্মে মরিল রাজগণ । ভূরিশ্রব দ্ৰোণ ভীষ্ম কৰ্ণ মহাজন ॥ করিলে অধৰ্ম্ম যত তাহা পড়ে মনে । অভিমনু্য সপ্তরর্থী মারিলে যখনে ॥ আপনি তোমার ঠাই গেলাম যখন । যুধিষ্ঠির লাগি পঞ্চ গ্রামের কারণ ॥ অঙ্গুলি প্রমাণ নাহি দিলে বহুমতি । এখন বান্ধব হৈল ধৰ্ম্ম নরপতি ॥ কৃষ্ণের বচন শুনি বলে দুৰ্য্যোধন। মা জানি মাধব তব বীরত্ব কেমন ॥ জানিমু পুরাণ বেদশাস্ত্র ধৰ্ম্মাধৰ্ম্ম । জগতে না দেখি কেহ করে হেন কৰ্ম্ম ॥ ক্ষত্র হয়ে ক্ষত্ৰধৰ্ম্ম করিনু পালন । এবে চলিলাম সঙ্গে ল’য়ে রাজগণ ॥ বিধবা লইয়া রাজ্য কর যুধিষ্ঠির । স্বগেতে লইয়া যাই যত সব বীর ॥ দুৰ্য্যোধন নৃপতির শুনিয়া উত্তর । মহাকোপে বলিলেন দেব হলধর ॥ অন্যায় সমর আজি করি আকর্ষণ । চুর্য্যোধন মহারাজে করিল নিধন । এত বলি ক্রোধে কম্পে নাহি পরিমাণ । লাঙ্গল ধরেন হাতে স্বমেরু সমান ॥ দারুণ প্রহারে মারি ভীম দুরাচীর । অনিয়ম যুদ্ধ করে অগ্ৰেতে আমার ॥ এত বলি লাঙ্গল যুড়িল হলধর । দেখিয়া পাইল ভয় যত চরাচর ॥ সশঙ্ক হইয়া কছিলেন নারায়ণ । কোপ দূর কর প্রভু করি নিবেদন ॥ একবস্ত্র রজস্বল দৌপদী সুন্দরী । সভামধ্যে তাহারে আনিল কেশে ধরি ॥ আনিয়া বসাবে বলি নিজ উরু’পর । সেই দিন প্রতিজ্ঞা করিল বৃকোদর ॥ হেন কৰ্ম্ম করে দুষ্ট গোচরে আমার । সেই হেতু ভীম উরু ভাঙ্গিল উহার ॥ মোহরসং মহাবাহুং পীতবস্ত্ৰং শুভাননং a అన(t পাতকের প্রায়শ্চিত্ত হইল উচিত । আপনি এ সব কথা না আছ বিদিত ॥ আর কিছু পূৰ্ব্বকথা শুন হলধর । মৈত্রেয় নামেতে ছিল এক ঋষিবর ॥ তার স্থানে অপরাধী ছিল দুৰ্য্যোধন। মৈত্র ঋষি অভ্যন্তরে ছিল কোপমন ॥ তেজস্বী মৈত্রেয় ঋষি দিল তারে শাপ । ভীম তোর উরু ভাঙ্গি ঘুচাইবে তাপ ॥ সত্য অঙ্গীকার ভীম কৈল সে কারণ । কুরুপতি উরু ভাঙ্গি করিল নিধন ॥ ক্ষত্ৰ হ’য়ে ক্ষত্ৰধৰ্ম্ম রাথে আপনার । , ইহাতে করিতে ক্রোধ না হয় তোমার ॥ এতেক শুনিয়া ক্রোধ সম্বরেণ রাম । দুৰ্য্যোধনে প্রশংসা করেন অবিশ্রাম ॥ নিন্দা করি ভীমেরে বলেন বার বার । ধিক্ ধিক্ ভীমসেন জীবনে তোমার ॥ আপনার বীরত্ব দেখালে ভালমতে ॥ অন্যায় সমরে খ্যাতি রাখিলে জগতে ॥ আছিলেন দুৰ্য্যোধন রণ পরিহরি । তুমি তারে মারিলে অন্যায় যুদ্ধ করি ॥ হেন ছার সভাতে বসিতে না যুয়ায় । এত বলি রথে চড়ি যান যদুরায় ॥ দুৰ্য্যোধন রণ দেখি দেবগণ তুষ্টিe হরিষে বর্ষণ করিলেন পুষ্পবৃষ্টি ॥ নৃপগণে লইয়া গেলেন ধৰ্ম্মরাজ । বিষণ্ণবদনে যান শিবিরের মাঝ ॥ যার যেই শিবিরে গেলেন সৰ্ব্বজন । বেলা অবসান, অস্ত হইল ভপন ॥ { বিজয় পাণ্ডব কথা অমৃত সমান । অবহেলে শুনিলে বড়িয়ে দিব্যজ্ঞান ৷ যতেক আছয়ে তীর্থ পৃথিবীমণ্ডলে । তার ফল লভে মহাভারত শুনিলে ॥ মহাভারতের কথা স্বধাসিন্ধুবত । কাশীরাম দাস কৰে পাচালীর মত । গদীপৰ্ব্ব সমাপ্ত ।