পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নারীপৰ্ব্ব । ] পদ্মচিহ্নিতসৰ্ব্বাঙ্গ স্বন্দরশচারুলোচনঃ। Գ Ֆ0 গান্ধারী চাপিল রথে যত বধু সঙ্গে। শোকাকুল সকলেতে বস্ত্র নাহি অঙ্গে ॥ বিচার নাহিক আর শোকে অচেতন । হতপতি নারীগণ হইল উন্মন ॥ পরিল বসন কেহ করিয়া যতন । অঙ্গেতে তুলিয়া দিল নানা আভরণ ॥ চরণে নৃপুর পরে দোসারী মুকুত । সিন্দুর পরিল কেহ করি পূর্ণ পিন্থা ॥ চন্দনের বিন্দু তার চারিদিকে দিল । সুন্দর অলকা তাহে বেষ্টিত করিল। তাম্বুল ভক্ষণ করি নানা গীত গায় । চরণে নূপুর কেহ নাচিয় বেড়ায় ॥ কেহ অসিচৰ্ম্ম করে বীরবেশ ধরি । ধেয়ে যায় কুরুক্ষেত্রে পতি অনুসরি ॥ মুক্তকেশ আম্রশাখা ল’য়ে কত জন । কেহ পথে পড়ে, কেহ শোকে অচেতন ॥ অনেক চলিল ৰুরী পতি-পুত্র শোকে। প্রবোধ করিতে তারে নারে কোন লোকে ॥ হস্তিন হইল শূন্য কেহ না রহিল । রাজার সঙ্গেতে রাজবধূগণ চলিল ॥ প্রথম বয়সে কেহ দেখিতে উত্তম । মুক্তকেশে ধায় যেন সোণার প্রতিমা ॥ হেনমতে কুরুক্ষেত্রে যায় নরপতি । সঙ্গেতে নাহিক রথ সৈন্য ঘোড়া হাতী ॥ যুবতী সমূহ সঙ্গে চলিল রাজন। শূন্য হৈতে কৌতুক দেখয়ে দেবগণ ॥ শোকাকুল হয়ে পথে যায় নরপতি । হেনকালে অশ্বথাম কৃপ মহামতি ॥ কৃতবৰ্ম্ম সহ পথে হৈল দরশন । নিরখিয়া রাজাকে আইল তিনজন ॥ পরিচয় নৃপতিকে দিল আপনার । ধৃতরাষ্ট্র বলে তবে কহ সমাচার ॥ কৃতাঞ্জলি হ’য়ে বলে সেই তিনজন । অবধানে শুন রাজ। সব বিবরণ ॥ - মুখে না আইসে বাক্য কহিতে ডরাই । কহিবার যোগ্য নহে মনে দুঃখ পাই ॥ I | l | | ! t | i শুন কহি মহারাজ সব সমাচার । কুরুক্ষেত্রে হৈল যত ক্ষত্রিয় সংহার। একাদশ অক্ষৌহিণী সকলি মরিল। অশ্বথামা কৃতবৰ্ম্ম কৃপ এড়াইল ॥ দৈবে না হইল তিন জনার মরণ । শত ভাই সহিত পড়িল দুৰ্য্যোধন । করিল দুষ্কর কৰ্ম্ম ভীম দুরাচার। একেল মারিল তব শতেক কুমার ॥ শুনহ গান্ধীরী দেবী করি নিবেদন । ভীম করিলেক কুরুবংশের নিধন ॥ যত কৰ্ম্ম করিলেক দুর্য্যোধন বীর । যত কৰ্ম্ম করিলেক দুঃশাসন ধীর ॥ শতপুত্র তোমার করিল যত কৰ্ম্ম । যেমত আছিল মাত ক্ষত্রিয়ের ধৰ্ম্ম । পরাক্রম করিয়া পড়িল ঘোর রণে । স্থরপুরী গেল সবে চাপিয়া বিমানে ॥ শোক পরিহর দেবি না কর বিলাপ । দুৰ্য্যোধন প্রাণপণে করিল প্রতাপ ॥ অন্যায় করিয়া ভীম ভাঙ্গিলেক উরু । সেই ক্রোধে করিলাম মোর কৰ্ম্ম গুরু ॥ সবান্ধবে পাঞ্চালেরে করিলু সংহার। বধিলাম দ্রৌপদীর পঞ্চটী কুমার ॥ পাণ্ডবের রণে অবশেষ সপ্তজন । শ্ৰীকৃষ্ণ সাত্যকি পঞ্চ পাণ্ডুর নন্দন ॥ শুনহ সকল কথা না করিহ ভয় । অবিলম্বে কুরুক্ষেত্রে চল মহাশয় ॥ আজ্ঞা দেহ আমরা আপন স্থানে যাই । কুরুক্ষেত্রে আছয়ে পাণ্ডব পঞ্চভাই ॥ এত বলি রাজার লইল অনুমতি । প্রদক্ষিণ করিয়া চলিল শীঘ্ৰগতি ॥ হস্তিনাপুরেতে গেল কৃপ মহাশয় । কৃতবৰ্ম্ম চলি গেল আপন আলয় ॥ ব্যাসের আশ্রমে গেল দ্ৰোণের নন্দন । কুরুক্ষেত্রে গেল হেথা অন্ধক রাজন ॥ ধৃতরাষ্ট্র আইল শুনিয়া পঞ্চভাই । শ্ৰীকৃষ্ণের সঙ্গে যুক্তি করেন সবাই ॥