পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


adషి S BBBBBBBD BBBBB BBBBBBB S BBBDDS দরিদ্র পূজয়ে জল দিয়া নারায়ণ । শ্রদ্ধা ভক্তি স্তুতিবশে হয় তার সম । ধনাঢ্য পুরুষ দেয় দিব্য দেবালয় । ইষ্টক পাষাণ হেমমণি রৌপ্যময় ॥ মুকুতার ঝার স্তম্ভ প্রবাল পাথর । নানাবিধ দিব্য রত্ন অতি মনোহর ॥ শুভতিথি শুভক্ষণ করি নিরূপণ । শ্রদ্ধাম্বিত গোবিন্দেরে করে সমপণ ॥ অন্নদান ভূমিদান ধেনুদান আদি । ব্রাহ্মণে ভুঞ্জায় কত না হয় অবধি ॥ মৃত্তিকার গৃহ এক করিয়া রচন । তাহাতে স্থাপয়ে হরি ধনহীন জন ॥ দুই এক ব্রাহ্মণে করয়ে অন্নদান। সমান লভয়ে পুণ্য বেদেতে বাখান ॥ ংক্ষেপে কহিমু দান ধৰ্ম্মের কথন । শোক দূর কর রাজা স্থির কর মন ॥ বিধির লিখন ফল ভুঞ্জয়ে সংসারে । যেন ধৰ্ম্ম তেন ফল বেদেতে বিচারে ॥ অধৰ্ম্মেতে কেহ ধৰ্ম্ম লভে কৰ্ম্মফলে । ধৰ্ম্ম হৈতে পাপ কেহ লভয়ে ভূতলে ॥ এত শুনি যুধিষ্ঠির সবিস্ময় মন । জিজ্ঞাসেন কহ দেব ইহার কারণ ॥ অধৰ্ম্মেতে কেবা ধৰ্ম্ম পাইল সংসারে । শুনিবারে ইচ্ছা বড় কহিবে আমারে ॥ মহাভারতের কথা অমৃত লহরী। আমার কি শক্তি ইহা বর্ণিবারে পারি ॥ মস্তকে বন্দিয়া মাত্র বিপ্ৰ-পদরজ । কহে কাশীদাস গদাধর দাসাগ্রজ । প্রয়াগ মাহাম্ম্যে ব্যাধ ও স্বমতির উপাখ্যান । ভীষ্ম বলিলেন শুন পাণ্ডুর নন্দন । পুর্ব ইতিহাস কথা শুন দিয়া মন ॥ ধনপতি নামে বৈশ্য অযোধ্যায় ধাম । সৰ্ব্বধনে পূর্ণ বৈশ্ব গুণে অনুপম ॥ সুমতি নামেতে তার ভাৰ্য্যা গুণবতী । পরম মুন্দরী সেই যেন কাম-রতি ॥ সৰ্ব্বস্তুখে পূর্ণ বৈশ্ব মহাধনবান । পুত্রহীন কেবল দুঃখিত মতিমান ॥ নানামতে নানাযজ্ঞ করয়ে বিস্তর । ভাৰ্য্যা সহ ব্ৰত আচরিল বৈশ্বাবর ॥ অদৃষ্টের বশে তার না হৈল নন্দন। এই হেতু সদা বৈশ্য রহে দুঃখী মন ॥ পুত্রহীন বৃথা জন্ম সংসার ভিতরে। পুত্র বিন মাছি পার নরক দুস্তরে ॥ এইরূপে বৈশ্ব বহু করিল চিন্তন । দূরদেশে গেল চলি বাণিজ্য কারণ ॥ একদিন বৈশ্যপত্নী দাসীগণ সঙ্গে । সরোবরে মান হেতু চলিলেন রঙ্গে ॥ উপবন মধ্যে আছে রাম সরোবর। স্নানে পুণ্যফল তাহে লভয়ে বিস্তর ॥ সেই সরোবরে গেল স্নান করিবারে । হেনকালে এক ব্যাধ আসে তথাকারে । লুব্ধক তাহার নাম বিখ্যাত ভুবন ॥ দেখিয়া কন্যার রূপ হয় অচেতন ॥ পীতবর্ণ অতি রঙ্গ জিনিয়া কাঞ্চন । রক্তমাংস রবিত্ৰাস দেখিয়া পিন্ধন ॥ কুচযুগ জিনি পূগ কিবা রসায়ন । করিকর ভুজবর মধ্য পঞ্চানন ॥ মুখজ্যোতি দেখি শশী নিন্দে আপনারে । দেখিয়া মুছিত ব্যাধ হইল অন্তরে ॥ ক্ষণেকে চৈতন্য পেয়ে বলয়ে বচন । শুন আজ স্নবদনী মম নিবেদন ॥ তোমা সম রূপবতী নাহি ত্রিভুবনে । এ রূপ যৌবন ব্যর্থ কর কি কারণে ॥ দূরদেশে গেল পতি বাণিজ্য কারণে । রতিস্থখহীন হ’য়ে বঞ্চহু কেমনে ॥ তোমাতে মজিয়া মন কম্পিত আমার । স্মরশরে মম অঙ্গ হৈল ছারখার ॥ দয়া করি রামা মোরে করাও রমণ । নহে এইক্ষণে আমি ত্যজিব জীবন ॥ নরহত্য মহাপাপ জানহ আপনি । এত শুনি ক্রোধচিত্তে বলে নিতস্বিনী ॥