পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৪৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রসন্নবদনাং নিত্যং জগদ্ধাত্রীং স্থতপ্রদম্। [ মহাভারত । --~ প্রাণপণে যুঝে সবে অনেক প্রকার । অচেতনে পড়ি গেল রথের উপর ॥ কেহ ভূমি পড়ি গেল হয়ে অচেতন । তবে রণে প্রবেশিল কৃষ্ণের নন্দন ॥ তাত্মধ্বজ সনে সেও অনেক যুঝিল । বাহুল্য কারণ তাহ লেখা নাহি গেল ॥ তাম্ৰধ্বজ বাণে তার শেষ হৈল তনু । অচেতন হয়ে রণে পড়ে ফুলধনু ॥ আইল সাত্যকি ভৗম করিতে সমর । ছাইল গগন তবে এড়ি নানা শর ॥ মহাবীর তাম্ৰধ্বজ ভয় নাহি করে । কাটিল ভীমের গদা দিব্য পাঁচ শরে ॥ ধনুৰ্ব্বাণ হাতে ল’য়ে বীর বৃকোদর। তাম্ৰধ্বজ সহ কৈল অনেক সমর ॥ সাত্যকি সাহস করি এড়ে নানা বাণ । নৃপতি তনয় তাহ করে খান খান ॥ তবে তাত্মধ্বজ বীর আশী বাণ দিয়া । বিন্ধিলেক ভীমসেনে জর্জর করিয়া ॥ সাত্যকি সহিত তবে বাধে মহারণ । তারে পরাজিল শিথিধ্বজের নন্দন ॥ এ সব ঈশ্বরলীলা কেহ নাহি জানে । যতেক পাণ্ডবসৈন্য পরাজিল রণে ॥ তাহা দেখি কিরীটির ক্রোধ হৈল মনে । গাণ্ডীব লইয়া বীর প্রবেশেন রণে ॥ কিরাট দেখিয়। তবে তাম্ৰধ্বজ বীর । তাক্ষবাণ দিয়া তার বিন্ধিল শরীর ॥ কিরাটী যতেক বাণ যুড়েন ধমুকে । তাম্ৰধ্বজ নিবারিল বাণ দিয়া তাকে ॥ নিবারিতে না পারিয়া তাত্মধ্বজ শরে । পার্থের জর্জর অঙ্গ রক্ত বহে ধারে ॥ মহাকোপে উপজিল পাণ্ডুর নন্দনে । ভয় পেয়ে জিজ্ঞাসেন তবে নারায়ণে ॥ ওহে কৃষ্ণচন্দ্র আমি না পারি বুঝিতে । সংগ্রামে সমর্থ নাহি তাত্মধ্বজ সাথে ॥ ভীষ্ম দ্রোণ কর্ণবীরে পরাজিনু আমি । । নিবাত্তকবৃচে বিনাশিক্ষু চক্রপাণি ॥ ! i l | | i i | খাণ্ডব দহিমু আমি তুষিমু অনলে । কালকেতু নিপাত করিমু বাহুবলে ॥ সংগ্রাম করিয়া আমি তুফি শঙ্করে । জিনিমু কৌরবগণে বিরাট নগরে ॥ চিত্ররথ গন্ধবের্বর কৈমু অপমান । আপনি জানহ তুমি আমার সংগ্রাম ॥ সুরথ স্থধন্ব। আমি নিপাতিমু রণে । যুঝিতে ন পারি আমি তাম্ৰধ্বজ সনে ॥ বীর নাহি দেখি তাত্মধ্বজের সমান । শুন কৃষ্ণ পাইলাম বড় অপমান ॥ গোবিন্দ বলেন সখা ত্যজহ সমর । মহাবলবান শিখিধবজের কোঙর ॥ জিনিতে নারিবে তুমি তাত্মধ্বজ বীরে । বৈষ্ণব উহার পিতা বিদিত সংসারে ॥ গোবিন্দ বলেন সখা কর অবধান । তুমি কিম্ব আমি হারি একই সমান ॥ তোমাতে আমাতে সখা কিছু ভেদ নাই । ভক্তের মর্যাদা আমি রাখিবারে চাই । রাজার সাহস আজি দেখাব তোমারে । চল দুইজন যাই পুরীর ভিতরে ॥ শিখিধ্বজ সম দাতা নাহি ত্রিভুবনে । সংগ্রাম ত্যজহ তুমি আমার বচনে ॥ দ্বিজবেশ ধরিয়া রাজার ঠাই যাব । নৃপতি সাহস আমি তোমারে দেখাব ৷ পাইবে যজ্ঞের ঘোড় ভয় নাহি মনে । ংগ্রাম ত্যজিয়া তুমি এস মোর সনে ॥ এত শুনি ধনঞ্জয় কৃষ্ণের উত্তর । ঈষৎ হাসিয়া বীর ত্যজেন সমর ॥ পাণ্ডবের কৃষ্ণ বলি জানে সৰ্ব্বজন । তব পদে ভক্তি মোর নাহি নারায়ণ ॥ দপহারী তব নাম বিদিত সংসারে । সাক্ষাৎ সে দপ তুমি দেখাও আমারে । এত শুনি কৃষ্ণচন্দ্র হাস্যমুখে কন । তোমা বিন সখা মম আছে কোনজন " রণ জিনি তাম্ৰধ্বজ ছাড়ে সংহনাদ । চলিল বাপের পাশে লইতে প্রগা •