পাতা:গল্পসল্প - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গল্পসল্প রাজা বললেন, তুমি অন্ন নিয়ে চলে, আর আমাকে দেখিয়ে দাও সেই-সব ফলমূল যা তুমি নিজে জড়ো করে খাও। কন্যা বললে, আমার যে অপরাধ হবে । রাজা বললেন, তুমি দেবতার আশীৰ্বাদ পাবে। তোমার কোনো ভয় নেই। অামাকে পথ দেখিয়ে নিয়ে চলো । বাপের জন্য তৈরি অন্নের থালি সে মাথায় নিয়ে চলল। ফলমূল সংগ্ৰহ ক'রে দুজনে তাই খেয়ে নিলে । রাজা গিয়ে দেখলেন, বুড়ো বাপ কুঁড়েঘরের দরোজায় বসে। সে বললে, মা, আজ দেরি হল কেন । কন্যা বললে, বাবা, অতিথি এনেছি তোমার ঘরে । বৃদ্ধ ব্যস্ত হয়ে বললে, আমার গরিবের ঘর, কী দিয়ে আমি অতিথিসেবা করব । রাজা বললেন, আমি তো আর-কিছুই চাই নে, পেয়েছি তোমার কন্যার হাতের সেবা । আজ আমি বিদায় নিলেম । আর-একদিন আসব। সাত দিন সাত রাত্রি চলে গেল, এবার রাজা এলেন রাজবেশে । তার অশ্ব রথ সমস্ত রইল বনের বাইরে। বৃদ্ধের পায়ের কাছে মাথা রেখে প্রণাম করলেন ; বললেন, আমি বিজয়পত্তনের রাজা। রানী খুজতে বেরিয়েছিলাম দেশে বিদেশে । এতদিন পরে পেয়েছি— যদি তুমি আমায় দান কর, আর যদি কন্যা থাকেন রাজী । বৃদ্ধের চোখ জলে ভরে গেল। এল রাজহস্তী— কাঠকুড়ানী মেয়েকে পাশে নিয়ে রাজা ফিরে গেলেন রাজধানীতে । অঙ্গ বঙ্গ কলিঙ্গের রাজকন্যারা শুনে বললে, ছি !