পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/১৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


যোগবল না সাইকিক ফোস ? DDD BBB BBBB BBBD DBD D DDD DDDD BBkSg DDD BBBD উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করিয়া তাহাকে “মেম সাহেব” বানাইবার পর, সে যদি পিতৃনির্বাচিত পারকে বিবাহ করিতে অসম্মত হয়—পিতামাতার অবাধ্যতা করে,—তবে সে দোষ কাহার ? মেয়ের, না তার পিতার ? নবগোপালবাব এখন স্বকৃত কর্মেরই ফলভোগ করিতেছেন । ই’হার পরা নাম নবগোপাল চট্টোপাধ্যায়। বাঁহব্বটিতে বাবচ্চি প্রকাশ্যভাবে মগোঁও রন্ধন করে, আবার অন্তঃপরে লক্ষীপজা ইতুপজাও হয়। আমদানী রপ্তানির কারবার-ফ্লাইভ স্ট্রীটে ইহার বড় হউস আছে, তিনটা ব্যাঙ্কে চলতি হিসাব, দইখানা মোটর কার। দটি পত্র সবোধ ও প্রবোধ—সবোধ বিলাতে; প্রবোধ প্রেসিডেন্সি কলেজে বি-এ পড়িতেছে। একটি মাত্র কন্যা প্রমীলা—সেই সব্বকনিষ্ঠা—বয়স আঠারো বৎসব—চেহারাটিও ভাল। আই-এ পরীক্ষা শেষ হইলে সিমলা পাহাড়ে তার মাসি ও মেসোমহাশয়ের নিকট বায় পরিবত্তনে গিযাছিল। সেখানে তার মাস দই অবস্থানের পর, মাসিমা পত্র লিখিলেন, তাঁর কত্তার কোনও পাঞ্জাবী বন্ধর এক বিলাতফেরত পত্র নব্য ব্যারিস্টার মিটার যোশীর সঙ্গে প্রমীলার অত্যন্ত “ভাব” হইয়াছে—উহারা পবপরকে বিবাহ করিতে ব্যাকুল। নবগোপালবাব ইতিমধ্যে কিন্তু কন্যার জন্য অন্য একটি পার ঠিক করিয়া ফেলিয়াছেন। রায় বাহাদর খেতাবধারী জমিদারের ছেলে, এম-এ এবং আইন একসঙ্গে পড়িতেছে, দেখিতেও সপরিষে, কলিকাতায় বাপের পাঁচখানা বাডী আছে, ছেলে আইন পাস করিয়া এক বড় অ্যাটীণ আফিসের অংশীদার হইবে শ্বির হইয়া আছে। পারটিকে কত্তা গহিণী উভষেরই ভরি পছন্দ; প্রমীলা সিমলা হইতে ফিরিলে আষাঢ় মাসে কিংবা শ্রাবণের প্রথমেই বিবাহ হইবে পরামশ হইযা আছে। এমন সময় সিমলা পাহাড় হইতে ঐ ভয়ানক পত্র আসিল। নবগোপালবাবর মাথায় যেন বজ্রাঘাত হইল। পাঞ্জাবী পারটি ব্রাহ্মণ কিংবা অন্যজাতি, পত্রে তাহার কোনও উল্লেখ নাই। ব্রাহ্মণ হইলেও, বাঙ্গালীতে পাঞ্জাবীতে বিবাহ সমাজনিয়মের একান্ত বহিভূত কম-জাতি যাইবে। তাঁর গহিণী ত কাঁদিযা কাটিযা অন্থিব হইলেন। পবে তাঁর ফিটের ব্যারাম ছিল, এদিকে অনেক দিন সেটা আর দেখা দেয নাই। আবার ফেট হইতে লাগিল। নবগোপালবাব কন্যাকে টেলিগ্রাম কবিযা দিলেন, “তোমর জননী অত্যন্ত পীড়িতা, শীল্প এস।” টেলিগ্রাম পাইয়া প্রমীলা একটি মাসতুতো ভাইয়ের সঙ্গে কলিকাতায় প্রত্যাগমন করিল। মা কত তুতি-মিনতি কত কান্নাকাটি কারলেন, পিতা কত বঝাইলেন, শেষে ब्राण कर्णाब्रट्जन, किन्छू थप्नौजान्न भन आफज अफ़ैल ! इन जिल, “वारक अग्नि भन्न धान পতিত্বে বরণ করেছি, তার সঙ্গে তোমরা বিয়ে যদি না দাও ত আমি বরং চিরকুমারী থাকবো—অন্য কাউকে বিয়ে করতে পারবো না।”