পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/২০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


TURI SSá - এইরুপ করিতে করিতে রাত্রি সাড়ে নয়টা বাজিয়া গেল। ঘাম পায় না। । রাম আহার সারিয়া এই ঘরের মেঝেতেই নীচে বিছানা পাতিতে পাতিতে বলিল, “দাদাবাব এখনও শলে না ? দশটা ষে বাজতে চলল। শোও, নইলে আসখ করবে যে ” R নিরঞ্জন বলিল, “ঘম আসছে না রে!” "কেন দাদাবাব ? রোজ ত এ সময় ঘমোও তুমি।” “আজ মনটা বড় খারাপ। আঞ্জ অনেক কথা ভাবছি।” রাম নিজ বিছানার উপর আরাম করিয়া বসিয়া বলিল, “কি ভাবছ, দাদাবাব ?” নিরঞ্জন বলিল, “দ্যাখ-একা একা আর ভাল লাগে না। আমরি বিয়ে করতে ইচ্ছে হয়েছে ।" ዛሬ রাম বলিল, “বেশ ত ! সে ত ভাল কথা দাদাবাবু!—তুমি বিলেত থেকে ফিরে মা এলে বিয়ে করবে না বলেছিলে—তাই ত এত দিন, মেয়ে দেবার জন্যে যে এসেছে, তাকেই ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মামাবাবকে আমি চিঠি লিখে দিই—সবঘর বজাতের একটি সন্দরী পাত্রী পথর করে রাখনে। সামনে আশ্বিন কাত্তিক মাস, অগ্রহায়ণ মাস পড়তেই তোমার বউ এনে দিই। আমিও ত বড়ো হয়েছি, কবে আছি কবে নেইতোমায় যেমন কোলে পিঠে করে মানুষ করেছিলাম, তোমার দল একটি ছেলেমেয়েকেও মানুষ করে দিয়ে যাই।” নিরঞ্জন বলিল, “সবঘরে সবজাতে যদি নাই হয়! আমি যদি অন্য জাতের কোনও মেয়েকে—যদি সে খাটানও হয়,—তাকে বিয়ে করি, তাতেই বা কি ?” রাম বলিল, “কায়েতের ছেলে হয়ে তুমি খিণ্টেন বিয়ে করবে কেন, দাদাবাব ? তাতে পিতৃপুরুষের জল পিন্ডি লোপ হয়ে যাবে যে ! মামাবাবুই বা মত দেবেন কেন ?” নিরঞ্জন বলিল, “মামাবাব ত আর তোমাদের মত গোঁড়া হিন্দ নন!” • রাম বলিল, “হ্যাঁ তা আমি জানি। মামাবাব ত ছোঁড়া বয়সে যখন এখানে কলেজে পড়তেন, তখন ত বেন্ধ সভায় গিয়ে খিকেটন হবার মৎলবই করেছিলেন। ওনার বাপ মা এসে কত কন্টে ওঁকে ফিরিয়ে বাড়ী নিয়ে গিয়ে বিয়ে দ্যান।” “তুই এত খবর জানলি কি করে রে ?” “আমি জানিনে ? আমার যখন গোঁফ উঠেনি, তখন থেকেই ত তোমাদের সংসারে আমি রয়েছি। কত্তামশায়ের বিয়ের পর, তিনি যখনই শবশুরবাড়ী যেতেন, আমাকে সঙ্গে নিয়ে যেতেন। ওনাদের ঝি-চাকরের কাছে তখন সব কথাই আমি শুনেছিলাম।” “তা হলেই বুঝে দাখ, কোনও খাটনি মেয়েকে যদি আমার বিয়ে করতে ইচ্ছে হয় —মামাবাব বোধ হয় বাধা দেবেন না।” রাম উচ্চ হইয়া উঠিয়া বলিল, “কি সব্বনাশ —দাদাবাব কি ভাবছ বল দেখি ? তুমি কি ডোরা দিদির কথা মনে করে আমায় এই সব কথা বলছ ?" নিরঞ্জন ঈষৎ হাসিয়া বলিল, “যদি তাই হয়। তবে বলি শোন। আমি মনে সিথরই করেছি, যদি বিয়েই করি, তবে ডোরাকে ছাড়া আর কাউকে করবো না "ি রাম ভাঁতস্বরে বলিয়া উঠিল, “রাম রাম, দাগ দগণ ! ছি ছি দাদাবাব ও কথা তুমি মুখেও এন না। কি সব্বনাশ !” রামরে এই আকস্মিক উচ্ছৰসে নিরঞ্জন অত্যন্ত বিস্মিত হইয়া বলিল, “কেন রামদা ও কথা বলছিস কেন ?” - রাম বলিল, “তবে শনবে দাদাবাব ? মামাবাব তোমায় জানাতে বারণই ক’রে গিয়েছিল—কিন্তু এখন আর না বলে উপায় কি ? রাম রাম। দগণ দগো ! হে মা কালী, রক্ষা কর।”