পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ববেকের প্রেম 警 ●● মহেলের প্রাপ্য টাকা তাহাকে বঝাইয়া দিলেন। মহেন্দু দেখিল, মেজর সাহেবের মািখখানা গম্ভীর—বিরক্তির ছায়াও তাহাতে সপেস্ট। মহেন্দু আফিসে নিজ প্ৰথানে গিয়া বসিয়া ভাবিতে লাগিল, না পাঁড়বার কারণ সাহেব যাহা বলিলেন, তাহাই কি সত্য ? না, কাহাবও নিকট কোন “কাণাঘাষা” শুনিয়া তাঁহার মনে একটা সন্দেহ প্রবেশ করিয়াছে ? যাহা বলিলেন, তাহা আফিসে না বলিয়া, নিজ গহেও ত বলিতে পারিতেন ! তাঁহার কুঠীতে আর আমি যাই, ইহা কি তাঁহার ইচ্ছা নয় ? বাস্তবিক, এ দিকে একটা বাড়াবাড়ি হইয়া উঠিয়াছিল বইকি; সেটা নিতান্ত নিবন্ধিতার কায হইয়াছে।” ইহার দই দিন পরে মেজর সাহেব আফিসের বারান্দায় আসিয়া হঠাৎ দেখিলেন কিছদরে তাঁহার গহভূত্য একখানি চিঠি হাতে করিয়া মহেন্দ্রের আফিসের দিকে যাইতেছে। সাহেব বেয়ারাকে ডাকিলেন। সে ব্যক্তি চিঠিখানি বঙ্গমধ্যে লুকাইয়া, প্রভুর নিকট আসিয়া দাঁড়াইল। সাহেব তাহাকে নিজের খাসকামরায় আনিয়া বলিলেন, “কিকা চিঠঠি— ডেখলাও ” প্রভুর সক্ৰোধ মাত্তি দেখিয়া বেয়ারা কম্পিত হন্তে চিঠিখানি বাহির করিয়া দিল । তাঁহার সীর হস্তাক্ষরে মহেন্দ্রের নাম লেখা। খামের মুখে জল দিয়া ভিজাইয়া দিলেন। কিয়ৎক্ষণ পরে উহা সন্তপণে খালিয়া চিঠি পাঠ কবিলেন। সেই কয়েক লাইন ইংরাজীর অনুবাদে এই— “প্রিয়তম, আজ তিন দিন তোমায় চোখের দেখাটিও দেখিতে পাই নাই। সে জন্য কি কটে যে আছি, তাহা বলিতে পারি না। আজ রাত্রি নয়টার পর এলিয়ট ট্যাঙ্কের পশ্চিমে, আমাদের সেই নিজান বক্ষতলে বেঞ্চখানিতে তুমি বসিয়া থাকিও । সৌভাগ্যবশতঃ একটা সুযোগ ঘটিয়াছে—ঐ সময় সেখানে গিয়া আমি তোমার সহিত ঘণ্টা দই যাপন করিতে পাবিব। এস—এস—এস—তোমায় না দেখিতে পাইলে আমি মরিয়া যাইব । তোমারই— Jo এলসি।” মেজর সাহেব কাগজে টকিয়া লইলেন—এলিয়ট—ট্যাঙ্ক—পশ্চিমে—বেঞ্চে । তাহার পর, খামখানি আঠা দিয়া অাঁটিয়া ডাকিলেন—“বেয়ারা!” বেয়ারা আসিয়া দাঁড়াইল। সাহেব বলিলেন, “যাও, চিঠঠি মোহেনবাবকে দেও। হাম ইস চিঠিকো দেখা, মেমসাহেব ইয়ে মোহেনবাব কোইকো মং বোলো খবরদার। বোলনেসে—বোলনেসে—” মেজর সাহেব তাঁহার টেবিলের দেরাজ টানিয়া একটা রিভলভার বাহির করিয়া বেয়ারার দিকে লক্ষ্য করিয়া বলিলেন, বোলনেসে, হাম তুমকো শট করেগা—জান মারেগা—সমঝা ?” বেয়ারা কম্পিতপদে এক হাত পিছাইয়া গিয়া, করযোড়ে কাতরস্বরে কহিল, "নেহি খোদাবন্দ-হাম কুছ নেহি বোলেগা। কোইকো নেহি বোলেগা। মেরা জান পিয়ারা হয়।” মেজর সাহেব রিভালভারটি দেরাজে বন্ধ করিয়া বলিলেন, “আচ্ছা—ইয়াদ রাখখো, মাও 1» 11 wи, 11 বিকালে মেজর সাহেব স্মীকে বলিলেন, “এলসি, আজ আমি বাড়ীতেই খাইব । বাবলুচ্চিকে বলিয়া দাও।” এ কথা শুনিয়া মেমসাহেবের মাথায় যেন বজ্রাঘাত হইল। মনের ভাব যথাসাধ্য