পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোবিন্দ দাসের করচা শুনিয়া প্রভুর বাণী হাত জোড় করি। কহিতে লাগিনু কথা আপনা পাশরি ॥ এত কৃপা কেন মোরে অহে দয়াময় । অধমের নামটি গোবিন্দ দাস হয় ॥ ছিলাম গৃহস্থ গৃহে নানা কৰ্ম্ম করি। এবে কিন্তু হইয়াছি পথের ভিকারী ॥ বিষয় ছাড়িয়া এক্স প্রভুদরশনে । এবে স্থান দেহ প্ৰভু ও রাঙ্গা চরণে ॥ বৰ্দ্ধমান কাঞ্চননগরে মোর ধাম । শুামাদাস কৰ্ম্মকার জনকের নাম ॥ এই বাত শুনি প্রভু বলিল আমারে । থাকরে গোবিন্দ তুমি আমার আগারে ॥ আমার গৃহেতে তব হইবে পালন। প্রত্যহ করিবে মুখে নাম সঙ্কীৰ্ত্তন ॥ প্রতিদিন সুখে পাবে কৃষ্ণের প্রসাদ । একেবারে পূরিবে মনের সব সাধ । সেবার কৰ্ম্মেতে তুমি নিয়ত থাকিবা । গঙ্গাজল তুলসী আনিয়া যোগাইবা ॥ প্রসাদ পাইবা নিত্য উদর পূরিয়া। রসা শাক মুকুতা মোচার ঘণ্ট দিয়া ॥ এত বলি সঙ্গে প্ৰভু চাহে লইবারে । অমনি চলিমু মুহি প্রভুর সংসারে ॥ গঙ্গার উপরে বাড়ী অতি মনোহর । পাচ খানি বড় ঘর দেখিতে সুন্দর ৷ নগরের দক্ষিণ সীমায় প্রভুর বাস । হরিনামে মত্ত প্ৰভু সদাই উল্লাস ॥ প্রকাও এক দীঘী হয় নিয়ড়ে তাহার। কেহ কেহ বলে বারে বল্লাল সাগর। যে সকল ভক্ত সদা থাকে প্রভুর কাছে।” একে একে সকলের নাম কব পাছে ॥ অদ্বৈত আচাৰ্য্য আর স্বরূপ শ্ৰীবাস । আচাৰ্য্যের দুই পুত্র অচ্যুত কৃষ্ণদাস ॥ মুকুন্দ মুরারিগুপ্ত আর গদাধর। নরহরি বিদ্যানিধি শেখর শ্রীধর ॥ অন্তরঙ্গ ভক্ত আরো দুই চারি জন । যাহাদের সঙ্গে হয় গোপনে ভজন ॥ * অবধৌত নিত্যানন্দ পাগলের মত । গড়াগড়ি দিয়া অশ্রু ফেলে অবিরত ॥ শাস্তমূৰ্ত্তি শচী দেবী অতি খৰ্ব্ব কায় । নিমাই নিমাই বলি সদা ফুকরায় ॥ বিষ্ণুপ্রিয়া দেবী হন প্রভুর ঘরণী । প্রভুর সেবায় ব্যস্ত দিবস রজনী ॥ লজ্জাবতী বিনয়িনী মৃদ্ধ মৃদ্ধ ভাষ। মুহি হইলাম গিয়া চরণের দাস । এইরূপে শচীগৃহে দাস হয়ে থাকি। না বলিতে সব কৰ্ম্ম সমাপিয়া রাখি ॥ ভোজনেতে পটু মুহি আনন্দেতে খাই । করিয়া প্রভুর কার্য্য সঙ্গেতে বেড়াই ॥ প্রতিদিন ভোগ হয় বিষ্ণুর মন্দিরে। কত ফল মূল ছানা ননি সর ক্ষীরে ॥ শাক স্বপ দধি স্বত্ত মোদক পায়স । বড় লাভ মিষ্টকাদি খাইতে স্বরস ॥ • প্রতিদিন শচীমাতা করেন রন্ধন । আনন্দে করেন সবে প্রসাদ ভোজন ॥ পেটুকের শিরোমণি মুই হই দাস । দয়াল প্রভুর পত্রে থাই বার মাস ॥ কি বলিব প্রসাদের নাহিক তুলনা । অমৃত সমান হয় যার এক কণা ॥ এইরূপে রছিলাম প্রভুর আগারে। চৈতন্তের দাস বলি সবে কৃপা করে ॥ আমার প্রভুর প্রভু চৈতন্ত মোসাই। শ্ৰখন যেখানে যান সঙ্গে সঙ্গে বাই ॥

  • “पञरछब्रछ म८छ क८ब्र ब्रन पत्रांश्वांगन । বহিরঙ্গ সঙ্গে করে নাম সঙ্কীৰ্ত্তন ॥”