পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক জলপ্রান্তে ক্ষুব্ধ ক্ষুঃ কম্পন রাখিয়া, · সজল চরণচিহ্ন আঁকিয়া আঁকিয়া সোপানে সোপানে, তীরে উঠিলা রূপসী শ্ৰস্ত কেশভার পৃষ্ঠে পড়ি গেল খসি । অঙ্গে অঙ্গে যৌবনের তরঙ্গ উচ্ছল লাবণ্যের মায়ামস্ত্রে স্থির আচঞ্চল বন্দী হয়ে অাছে—তারি শিখরে শিখরে পড়িল মধ্যাহ্নরৌদ্র—ললাটে অধরে উরু-পরে কটিতটে স্তনা গ্রচূড়ায় বাহুযুগে,—সিক্ত দেহে রেখায় রেখায় ঝলকে ঝলকে । ঘিরি’ তার চারিপাশ নিপিল বাতাস অণর অনন্ত আাকাশ যেন এক ঠাই এসে আগ্রহে সন্নত সর্বাঙ্গ চুমিল তার,—সেবকের মতে। সিক্ত ততু মুছি নিল অ’ ত গু অঞ্চলে সযতনে, —ছায়াখানি রক্ত পদতলে চু্যত বসনের মতে রহিল পড়িয়া — অরণ্য রহিল স্তন্ধ, বিস্ময়ে মরিয়া । ত্যজিয়া বকুলমূল মুছম্বন্দ হাসি’ উঠিল অনঙ্গদেব । 峪 সম্মুখেতে অগসি’ থমকিয় দাড়াল সহসা মুখপানে চাহিল নিমেষহীন নিশ্চল নয়ানে ক্ষণকাল তরে ; পরক্ষণে ভূমি-"পরে জাকু পাতি’ বসি', নির্বক বিস্ময়ভরে নতশিরে, পুষ্পধন্থ পুষ্পশর-ভার সমৰ্পিল পদপ্রাস্তে পূজা-উপচার `అలి