পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S)ు চয়নিক বধু "বেলা-ষে পড়ে এল, জলকে চল।”— পুরানো সেই স্বরে কে যেন ডাকে দূরে, কোথা সে ছায়া, সখি, কোথা সে জল, কোথা সে বাধাঘাট অশথ-তল । ছিলাম আনমনে একেলা এককোণে, কে যেন ডাকিল রে “জলকে চল ।” কলসী লয়ে কাখে পথ সে বঁাকা, বামেতে মাঠ শুধু সদাই করে ধুধু, ভাহিনে বঁাশ-বন হেলায়ে শাখা । দিঘির কালো জলে সাঝের অালো ঝলে, দুধারে ঘন বন ছায়ায় ঢাকা । গভীর থির নীরে ভাসিয়া যাই ধীরে কোকিল ডাকে তীরে অমিয়-মাখ । আসিতে পথে ফিরে, আঁধার তরুশিরে সহসা দেখি চাদ আকাশে অণকা । ജ് অশথ উঠিয়াছে প্রাচীর টুটি', সেখানে ছুটিতাম সকালে উঠি । শরতে ধরাতল শিশিরে কলমল, করবী থোলো থোলো রয়েছে ফুটি । প্রাচীর বেয়ে বেয়ে সৰুজে ফেলে ছেয়ে বেগুনি ফুলে-ভরা লতিকা দুটি । ফাটলে দিয়ে অণথি আড়ালে বসে থাকি, অাচল পদতলে পড়েছে লুটি ।