পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কাটিয়ে আসেন। বর্তমান পত্রের শেষে রবীন্দ্রনাথ লিখছেন, “কাল মোহিতৰাবু যাইবেন..." । পত্রের শেষে রবীন্দ্রনাথ মঙ্গলবারের উল্লেখ করেছেন । ১৩১০ বঙ্গাব্দের ১৯ জ্যৈষ্ঠ মঙ্গলবার ছিল । "কুরবাবুর প্রতি আপনার চিত্ত যেরূপ একান্ত বিমুখ হইয়াছে “ ।” কুঞ্জলাল ঘোষের সঙ্গে বিরোধই মনোরঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাস্তিনিকেতন ত্যাগের প্রধান কারণ । মনোরঞ্চনের মনে এ রকম ধারণা হয় যে, রবীন্দ্রনাথ কুঞ্চলালের প্রতি পক্ষপাতিত্ব করছেন । এই ধারণা তার মনে কীভাবে হয়, তার সংক্ষিপ্ত বিবরণ মনোরঞ্জনের লেখা "Santiniketan Reminisences. A vignette” #& offgots ( &Rotor ১৫ অগস্ট ১৯৩৯ ) এই মস্তব্যে অনেকখানি পরিস্ফুট হবে— ‘‘A certain individual once happened to speak against me to him [Rabindranath J in private. He was deeply annoyed but would not tell me why.” মনোরঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুত্র ঐকরুণাকিরণ তার পরলোকগত পিতার সংক্ষিপ্ত জীবনপঞ্জী আমাদের লিখে পাঠিয়েছেন, তার প্রাসঙ্গিক অংশ উন্ধেত হল— “বাবা শান্তিনিকেতনে যোগদানের কিছু পর কুঞ্জলাল ঘোষ আসেন । তিনি ছাত্রদের ও রবীন্দ্রনাথের কাছে বাবাকে ব্রাহ্মধর্মবিরোধী প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করেন । গুরুদেবের আচরণেও বাবা কিছু শীতলতার আভাস পান । • • বেদনাহত হয়ে তিনি শান্তিনিকেতন পরিত্যাগের চিন্তা স্বরু করেন । কবির কাছে কুঞ্জলাল আরো অভিযোগ করেন যে, সতীশচন্দ্রের S DDBDD ZDD BBBBSDD SHBB BBB BBS BB BBBBS *fr”, Visva-Bharati News-sla May–June 1981 Retrta z riffs i মূল রচনাটি এই গ্রন্থের পরিশিষ্টে সংকলিত হয়েছে। २0>