পাতা:চিঠিপত্র (ত্রয়োদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অত্যন্ত বিচলিত হয়ে স্থবোধচন্দ্র শিলাইদহ ত্যাগ করেন । ২ মাৰ ১৩১৪ রবীন্দ্রনাথ শিলাইদহ থেকে ঐশচন্দ্রকে জানাচ্ছেন, “স্ববোধ আভ্যন্ত অশাস্ত হইয়া পড়িয়াছে । সে এখানে ফিরিয়া আসিয়া কাজে ৰোগ দিতে অক্ষম এইরূপ আমাকে জানাইয়াছে—বোধকরি জয়পুরে অথবা দিল্লীতে কোনো কাজের আশা পাইয়া থাকিবে ।” শিলাইদহ ত্যাগ করে স্ববোধচন্দ্র জয়পুর রাজ্যের কর্ম গ্রহণ করেন । কিন্তু অল্পকালই সেখানে কাজ করে ফিরে আসেন এবং কাটোয়ায় প্রধান শিক্ষকের পদ গ্রহণ করেন । কিছুকাল পর সে-কাজ ও ছেড়ে দ্বিয়ে আবার জয়পুর রাজ্যের কাজে ফিরে যান। পরবর্তীকালে স্থবোধচন্দ্র জয়পুর-রাজসরকারের কাজে বিশেষ উন্নতি করে রাজ্যের প্রধান *ffsa”tan (Secretary Mahakma Khas ) effef8* za রবীন্দ্রনাথের সঙ্গে স্থবোধচন্দ্রের যোগাযোগ পরবর্তীকালেও অক্ষুঞ্জ ছিল। স্ববোধচন্দ্র তার তিন পুত্রকেই শাস্তিনিকেতন আশ্রম-বিদ্যালয়ে শিক্ষা লাভের জন্ত পাঠিয়েছিলেন । নব পর্যায় বঙ্গদর্শন, সমালোচনী, ভারতবর্ষ প্রভৃতি সাময়িকপত্রে স্থবোধচন্দ্রের কিছু সাহিত্যচর্চার নিদর্শন আছে। তার রচিত তিনখানি গ্রন্থ উল্লেখযোগ্য : ‘পঞ্চপ্রদীপ’ ( ১৩১৮ ), 'লিখন" ( ১৩২৪ ), “আমাদের গ্রাম’ ( ১৩৩২ ? ) । இ: পত্র -ধুত প্রসঙ্গ স্ববোধচন্দ্র মজুমদারকে লিখিত পত্র ১ । স্ববোধচন্দ্র ২৭ কাৰ্ত্তিক ১৩০৯ ( ১৩ নভেম্বর ১৯০২ ) তারিখে শমীন্দ্রনাথকে সঙ্গে নিয়ে শাস্তিনিকেতনে যান, কুকলাল ঘোষকে ঐদিনই बिछांजप्त्वब्र नित्रयांवनौ निरष नाठांप्ना श्द्र ( बर्डबांन आइडूङ नज, Woo .