পাতা:চিঠিপত্র (প্রথম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শান্তিনিকেতন প্রিয়বরেষু ঈশ্বর আমাকে যে শোক দিয়াছেন তাহা যদি নিরর্থক হয় তবে এমন বিড়ম্বন আর কি হইতে পারে। ইহা অামি মাথা নীচু করিয়া গ্রহণ করিলাম । ষিনি আপন জীবনের দ্বারা আমাকে নিয়ত সহায়বান করিয়া রাখিয়াছিলেন তিনি মৃত্যুর দ্বারাও আমার জীবনের অবশিষ্টকালকে সার্থক করিবেন । তাহার কল্যাণ স্মৃতি আমার সমস্ত কল্যাণ কৰ্ম্মের নিত্যসহায় হইয়া আমাকে বলদান করিবে ... ইতি ১৮ই অগ্রহায়ণ ১৩০৯ অনুরক্ত শ্রীরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর দীনেশচন্দ্র সেনকে লিখিত চিঠিপত্র > 9, . لا لاس ه لا ...তোমার পত্ৰখানি পাইয়া আমার হৃদয় স্নিগ্ধ হইল । তুমি অল্পদিন এখানে থাকিয়াই তাহার স্নেহপ্রবণ হৃদয়ের পরিচয় পাইয়াছ । তাহার স্বভাব মাতৃভাবে পূর্ণ ছিল এবং তিনি তোমাকে আপন সন্তানের চক্ষেই দেখিয়াছিলেন । এখানকার বিদ্যালয়ে তুমি আসিবে এবং তাহার স্বত্ব শুশ্রুষার অধীনে থাকিবে ইহার জন্য তিনি ঔৎসুক্যের সহিত প্রতীক্ষা করিয়াছিলেন। তুমি তাহার কাছে থাকিলে কখনো মাতার অভাব একমুহূৰ্ত্তের জন্যও অনুভব করিতে পারিতে না ইহা নিঃসন্দেহ । ঈশ্বর আমাকে যে শোক দিয়াছেন সেইশোককে তিনি নিষ্ফল করিবেন না— তিনি আমাকে এই শোকের দ্বার দিয়া মঙ্গলের পথে উত্তীর্ণ করিয়া দিবেন। У e Q