পাতা:চীন ভ্রমণ - ইন্দুমাধব মল্লিক.pdf/১১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

হংকং

১০৩

 নিয়ে যায়। খাওয়া শেষ হইলে পরিস্কার কাচকড়র পাত্রে অডিকলম সুগন্ধি গরম জল ও সাবাঙ এবং এক একখানি ধবধবে ভিজান ভাঁজ করা তোয়ালে এক একটি লোকের জন্য প্রস্তুত থাকে। হাত মুখ ধুইয়া মুছিয়া চুরট থাইতে খাইতে বাহির হইতে হয়। এত উপাদেয় দ্রব্যাদি উপভোগ করার মূল্য এক ডলার মাত্র।

 জাহাজ হইতে নামিবার আগেকার আর একটী ঘটনা পাঠক মহাশয়দের জানা উচিত। জাহাজ নঙর করার পর সিঁড়ি ফেলা হইলেই জনা কতক চীনে ধোপানী কাপড় নিতে এলো! তাদের মধ্যে এক জন এলোচুলে প্রথম শ্রেণীর সেলুনে ঢুকলো। সে তথায় আসিবামাত্রই সব চাকর-বাকার তার কাছে পতঙ্গের মত এসে উপস্থিত হ’লো। সেও চির-পরিচিতের মত আতি অল্পসময়ের মধ্যেই কাহাকে বা মিষ্টি হাসি কাহাকেও বা মিষ্ট কথা উপহার দিয়ে আমার ছোকরা চাকরের পিট চাপড়ে ব'ল্লে,—“আ গেল যা দুষ্ট ছেলে,—তুমি আমাকে এতক্ষণ বল নাই যে ডাক্তার সাহেব কাপড় কাচাতে চান!” ছোকরা এরূপ ব্যবহারে বড়ই খুসী হ’য়ে বল্লে, “আমি এখুনি তাই ব’লতে যাচ্ছিলুম ভাই।কিন্তু ৪।৫ দিনের ভেতর দেওয়া চাই।”

 তারপর দিন আমাকে বলিল,— “ধোপানী আপনার কাপড় কালাই আনবো ব'ল্লে।” আমি জিজ্ঞাসা করিলাম, -“তুমি কেমন ক'রে জানলে? আমি তো এত শীঘ্র তোমাকে তার বাড়ি তাগাদার জন্য যেতে বলি নাই? কেন তবে সন্ধ্যাবেলা তার বাড়ি গিয়েছিলে বাপু?” সে ঘাড় নীচু ক’রে রইল, এ কথায় আর উত্তর দিতে পারিল না। কাপড় কাচিয়া আসার পর সে আমাকে বলিল,—“প্রতি কাপড় খানিয় জন্য ধোপানীকে ১৫ সেণ্ট দিতে হবে।” অন্যে ১০ সেপ্ট দেয় জেনেও আমি দ্বিরুক্তি না ক'রে তাই দিলাম। দশখানি কাপড় কাচার মূল্য ১॥০ ডলার অর্থাৎ দুই টাকা এক আনা লাগিল।