পাতা:জগজ্জ্যোতি বা নুরজাহান.pdf/৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

[ e ] যদিও আমি তোমায় দেখি নাই, কেবল মাত্র তোমার দুঃখের কথা শুনিয়া যখন আমার এরূপ তুঃখ হইয়াছে, তখন তোমার হৃদয়বল্পভের যে সাতিশয় দুঃখ হইবে তাব আর সন্দেহ কি । কিন্তু সেলিম. সে সকলি বিধির নির্বন্ধ, তা না হলে সেই তরুণ বয়স্ক সরলা বালিকাকেই বা কেন এরূপ কঠোর ব্রত পালন করিতে হইবে। যা হোক, তুমি সে সকল চিন্তাকে আর মনেও স্থান দিও না । জাহা। মাতঃ, মনোরমার নিমিত্ত আর আমি বৃথা তুঃখ করি না । মনোরম আমার নয়, মনোরমণ এ জগতে কাহারও হইল না । কিন্তু মা, মনোরম আমাকে প্রাণের তুল্য ভাল বাসিত। কেন সেই হতভাগিনী, পিতার মৃত্যুকালে তাহার সহিত সাক্ষাৎ করিতে গিয়াছিল ; ত না হইলে তাহাকে চিরতুঃখিনী হয়ে বনে বনে ভ্রমণ করিতে হইত না । মনোরমে, তুমিই আমার হৃদয়ের একমাত্র ধন, ভাবি দিল্লীশ্বর জাহঙ্গীবের স্ত্রী, ভারতের একাধীশ্বর আকৃবরের পুত্রবধু হইতে। মা, এতদিনে আমি এ জীবন পরিত্যাগ করিতাম। কিন্তু নুরজাহানকে দেখিয়া অবধি আমার আশালতা পুনরায় অঙ্ক রিত হইয়াছে। নূরজাহানকে বিবাহ করিবার অনুমতি পিতার নিকটই বা কিরূপে প্রার্থনা করি ? এক্ষণে আপনি যদি অনুগ্রহ করেন, তাহা হইলে নুরজাহানকে বিবাহ করিয়া মনোরমার বিচ্ছেদজনিত শোক একবারে বিস্তৃত হইতে পারি। { } * রাজী। সেলিম, তুমি কি নুরজাহানকে ভাল বাস, ভূমি কি তাহাকে বিবাহ করিতে ইচ্ছা কর ?