পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/৩০৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জয়তু নেতাজী واوا جا নিজেদের স্বার্থ ও মুখ-সুবিধার মাপে কাটিয়া ছাটিয়া লইতে চায়, তাহাদিগকেই অবিশ্বাসী বলিয়াছি। এই অবিশ্বাসীদের নিকটেই স্বভাষচজের সকল কীৰ্ত্তিই মূল্যহীন । ইহাদিগকে বুঝাইবার বা বিশ্বাস করাইবাৰ চেষ্টাই নিষ্ফল । 8 নেতাঞ্জীর সেই পন্থা যে ভ্রাস্ত ও অকল্যাণকর ছিল, এবং গান্ধীমন্ত্রই যে ভারতকে—শুধুই রাজনৈতিক সঙ্কট নয়,—একটা আধ্যাত্মিক সঙ্কট হইতে বক্ষা করিয়াছে, এমন কথা এখনও প্রচারিত হইতেছে । হয়তে মিথ্যা যতই অপ্রতিষ্ঠ হইয় উঠে, ততই বৃহত্তর মিথ্যার স্থষ্টি কবিতে হষ । গান্ধী-কংগ্রেসের মূৰ্ত্তি যতই সুপ্রকট হইয়া উঠিতেছে ততই গান্ধী-নাতিকে বাচাইয়া ঐ কংগ্রেসকেই ধৰ্ম্মভ্ৰষ্ট বলিয়া গালি দেওয়া আবশুক হইয়াছে —অর্থাৎ, বিচাটাকে ক গুণমুখী না কবিয়া মোহটাকেই জায় রাখিতে হইবে । সম্প্রতি একজন বুদ্ধিমান ব্যক্তিকেও এমন কথা বলিতে দেখিয়া আমরা বিক্ষিত হইয়াছি, যে—

  • রক্তাক্ত বিপ্লবকে এডাইয়া মহাত্মা বৈদেশিক শাসন-পাশ ইহতে ভারতবর্ষকে মুক্ত করিয়া যে আত্মিক সৰ্ব্বনাশের পথ হইতে জাতিকে রক্ষা কবিয়াছিলেন, মহাত্মার অভাবে ইহারা ( কংগ্রেস-নেতাগণ ) পথভ্রষ্ট হইয়া সেই সৰ্ব্বনাশকেই অলিবাৰ্য্য করিয়া তুলিয়াছেন ।"

এই একটি কথার মধ্যে ঐতিহাসিক ঘটনার কার্ধ্যকরণ-তত্ত্বও যেমন, তেমনই সহজ যুক্তিকেও লঙ্ঘন করা হইয়াছে। যাহা এত শীঘ্র নষ্ট হইয়া যায় তাহার বিনাশ-বীজ কি সেই বস্তুর উৎপত্তির মধ্যেই ছিল না ? মহাত্মার মৃত্যু হইবামাত্র যদি তাছার শিষ্মের