পাতা:ঝাঁশির রাণী - জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১২

ঝঁশির রাণী ।

সরকার শ্রীমন্ত দামোদররাওর দত্তক-বিধান মঞ্জুর করিয়া তাহাকেই ঝাঁশির গদিতে স্থাপন করিবেন! এই সম্বন্ধে রাণী ঠাকুরাণীও হিন্দুস্থান সরকার-সমীপে এক পত্র প্রেরণ করেন। লর্ড ডালহৌসী ১৮৫৪ খৃষ্টাব্দে কলিকাতায় ফিরিয়া আসিলে পর, ইংরাজ সরকারের পররাষ্ট্রীয় সেক্রেটরি জে-পি-গ্রান্ট সাহেব ঝশি-রাজ্যের সমস্ত বৃত্তান্ত ও ইংরাজ-সরকারের সহিত তাহার কিরূপ সম্বন্ধ তাহার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস লিখিয়া তাহার সম্মুখে অর্পণ করিলেন। এই রিপোর্টের মুখ্য তাৎপর্য, কঁশি-রাজ্য খাস করিয়া লওয়া। এই রিপোর্টের উপরেই ভর করিয়া লাটসাহেবস্বীয় আদেশ-মন্তব্য প্রচার করিলেন। তাহার স্থূল মর্ম্ম এই;—যেহেতু ঝঁশি স্বাধীন রাজ্য নহে—ইংরাজ সরকারের অধীনস্থ মালিক রাজ্য মাত্র, অতএব সার্বভৌম অধিপতি ব্রিটিশ-সরকারের অনুমতি-ব্যতীত মহারাজার দত্তক গ্রহণ করিবার অধিকার নাই। এবং যেহেতু গঙ্গাধর- রাওর যে সকল পূর্বপুরুষের সহিত ব্রিটিশ-সরকারের বাধ্যবাধকতা-সম্বন্ধ ছিল তাহাদের বংশের কোন সাক্ষাৎ উত্তরাধিকারী বর্তমান নাই, অতএব এই দত্তক-বিধান মঞ্জুর করিয়া কঁশির গদি স্থায়ী রাখিতে ব্রিটিশ-সরকার বাধ্য নহেন। এতদ্ব্যতীত ঝাশি-রাজ্য ব্রিটিশ সরকারের মধ্যে ভুক্ত হইলে সমস্ত বুলেখণ্ডের রাজ্য-ব্যবস্থা সুচারুরূপে নির্বাহ হইবে এবং ব্রিটিশ সুশাসনে সমস্ত প্রজাবর্গেরও কল্যাণ হইবে।

 অতএব রাণীর জীবদ্দশা-পর্য্যন্ত তাহার ব্যয় নির্বাহার্থ ৫০০০ টাকার মাসিক বৃত্তি নির্ধারিত করিয়া ঝাঁশি-রাজ্য খাস করিয়া লওয়া হউক।

 প্রকৃত কথা লর্ড ডালহৌসী ভারতবর্ষে পদার্পণ করিয়াই যে সকল ক্ষুদ্র রাজ্য ও জাইগীর তখনও ব্রিটিশ সরকারের অধীন হয় নাই, তাহা- দিগকে যেন-তেন-প্রকারেণ ব্রিটিশরাজ্যভুক্ত করিবার জন্য তাহার ঐকান্তিক চেষ্টা হইয়াছিল। এই সর্ব্বগ্রাসী নীতি অবলম্বন করিলে বচন-ভঙ্গরূপ মহাপাতক হইবে এবং ইংরাজের শুভ্র যশে কলঙ্ক স্পর্শ