পাতা:ত্রিদিববিজয় কাব্য.djvu/৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় সঙ্গ । 歌款 শিব-অংশে ধরাতলে জাগাবে নিজীবে অসহীয়ে, এ আশীষ করিমু তোমারে । ও স্বহাসি, বরাঙ্গনে, আননে তোমার, ভুবনে কল্যাণকর, প্রেমময় হবে ; রবির স্বহাসি যথা হয় ধরাতলে ।” নতশির স্থশোভিনী নমিল। মহেশে, ব্রীড়া-অবনত এবে । নমিলা বাসব মায়ের চরণ বন্দি, বন্দি মহেশ্বরে । হায় রে, যেমতি নমে কুহুম হরষে, নমে যবে শাখা বধু সমীরণ সখে । এতেক কহিয়া ধাত পুনঃ আঁখি মুদি, রোধি শ্বাস, ডুবিলা যোগ-সাগরে, বাহজ্ঞান-হত । হেরি শোভা, ভাবিল ভবানী ; “ভেঁই যোগিবর তোমা’ কহে ত্রিভুবনে, আশুতোষ ; হে ত্রিশূলি, স্মৃষ্টি, স্থিতি, লয়, তোমারই রহস্ত, নাপ, তুমিই সে জান, জ্ঞানময় । দয়া, প্রভু, কর এ দাসীরে : র্তেই জীলে অমুগত । যে প্রেমের স্বধা বরবিছ চরাচরে, কে করে ইয়াত্ত তার, করিবে কেমনে ?” এই ভাবে দেবী আপন ভুলিয়', ভাবিলা মানসপটে সে সৌম্য-মাধুরী, ক্ষণেক । চেতন পাই',—