পাতা:দেবী চৌধুরানী - বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রথম খণ্ড–একাদশ- পরিচ্ছেদ فره অল। (পুনশ্চ সভয়ে ) সে কি ? কি বলিস্ ? ফুল । ( অতি অক্ষুটম্বরে ) কারও সাক্ষাতে বলিস নে—কাল তার মা এসে তাকে নিয়ে গেছে । - ভগিনী। অ্যা ! অলকমণির গা থর থর করিয়া কঁাপিতে লাগিল। ফুলমণি তখন এক আষাঢ়ে গল্প ফাদিল । ফুলমণি প্রফুল্লের বিছানায় রাত্রি তৃতীয় প্রহরের সময়ে তার মাকে বসিয়া থাকিতে দেখিয়াছিল। ক্ষণপরেই ঘরের ভিতর একটা ভারি ঝড় উঠিল—তার পর আর কেহ কোথাও নাই। ফুলমণি মূৰ্ছিত হইয়া, দাতকপাটি লাগিয়া পড়িয়া রহিল ৷ ইত্যাদি। ইত্যাদি। ফুলমণি উপন্যাসের উপসংহারকালে দিদিকে বিশেষ করিয়া সাবধান করিয়া দিল, “এ সকল কথা কাহারও সাক্ষাতে বলিস না—দেখিস, আমার মাথা খাস।” দিদি বলিলেন, “ন গো ! এ কথা কি বলা যায় ?” কিন্তু কথিতা দিদি মহাশয়। তখনই চাল ধুইবার ছলে ধুচুনি হাতে পল্লী-পরিভ্রমণে নিষ্ক্রান্ত হইলেন এবং ঘরে ঘরে উপন্যাসটি সালঙ্কার ব্যাখ্যা করিয়া, সকলকে সাবধান করিয়া দিলেন যে, দেখ, এ কথা প্রচার না হয়। কাজেই ইহা শীঘ্র প্রচারিত হইয়া রূপান্তরে প্রফুল্লের শ্বশুরবাড়ী গেল। রূপান্তর কিরূপ ? পরে বলিব । একাদশ পরিচ্ছেদ প্রভাতে উঠিয়া প্রফুল্ল ভাবিল, “এখন কি করি ? কোথায় যাই ? এ নিবিড় জঙ্গল ত থাকিবার স্থান নয়, এখানে একা থাকিব কি প্রকারে ? যাই বা কোথায় ? বাড়ী ফিরিয়া যাইব ? আবার ডাকাইতে ধরিয়া লইয়া যাইবে । আর যেখানে যাই, এ ধনগুলি লইয়া যাই কি প্রকারে ? লোক দিয়া বহিয়া লইয়া গেলে, জানাজানি হবে, চোর ডাকাইতে কাড়িয়া লইবে । লোকই বা পাইব কোথায়? যাহাকে পাইব, তাহাকেই বা বিশ্বাস কি ? আমাকে মারিয়া ফেলিয়া টাকাগুলি কাড়িয়া লইতে কতক্ষণ ? এ ধনের রাশির লোভ কে সম্বরণ করিবে ? - - প্রফুল্ল অনেক বেলা অবধি ভাবিল। শেষে সিদ্ধান্ত এই হইল, “অদৃষ্টে যাহাই হৌক, দারিদ্র্য-দুঃখ আর সহ করিতে পারিব না। এইখানেই থাকিব । আমার পক্ষে দুর্গাপুরে আর