পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/২৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Scte শিবনাথ-জীবনী । ধাবিত হইল। যে নিয়মতন্ত্র প্রণালী দশখানি হাতকে একত্ৰ করিয়া ঈশ্বরের কাজে লাগাইবার একটী প্ৰধান যন্ত্রস্বরূপ, তাহা আমাদের একটী কণ্টকস্বরূপ হইয়া উঠিয়াছে। পরস্পরের প্রতি অপ্ৰেম প্ৰদৰ্শন ও পরস্পরের দোষ দর্শনের একটী ক্ষেত্ৰ হইয়া শিবনাথ সাধনাশ্রম প্ৰতিষ্ঠা করিবার যে সকল কারণ দেখাইয়া ছিলেন, তার মধ্যে এই কয়টা প্ৰধান ১ । ব্রাহ্মেরা ধনৈশ্বৰ্য্যে বাড়িতেছেন এবং সেই সঙ্গে প্রচারক সংখ্যা কমিতেছে। ২ । সাধন ক্ষেত্রের অভাবে লোকের ধৰ্ম্মভাব ক্ষীণ হইতেছে। কাৰ্য্য নিৰ্বাহক সভা নিয়মতন্ত্র প্রণালীকে আধ্যাত্মিকতা বৃদ্ধির উপায় করিতে পারিতেছে না। এই শেষের কথাটী বড় গুরুতর কথা । ১৮৮৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ডায়েরিতে যে লিখিয়াছিলেন-তাহাতে দেখিতেছি, কাৰ্য্যনিৰ্বাহক সভা তাহাকে স্থায়ী আচাৰ্য্য হইতে দেন নাই-স্থায়ী আচাৰ্য্য উপাসকমণ্ডলীর আধ্যাত্মিকতা বৃদ্ধির সহায়তা করিতে পারেন, তাহা না দেওয়াতে আধাত্মিকতা বৃদ্ধির একটা সদুপায় নষ্ট হইল। SBDDB DB D BBB BDBB BD DDB DDD DS অর্থাৎ- ধৰ্ম্মসমাজের প্রাণই বাহির হইয়া যাইবে । তৃতীয় কথা বিরোধী শক্তির সহিত সংগ্ৰাম করিয়া তাকে অগ্রসর হইতে হইবে। আমিও সুস্পষ্ট দেখিতে পাইতেছি।--সাধনাশ্রম প্ৰতিষ্ঠা করিবার বহু পূর্বেই তিনি বুঝিতে পারিয়াছিলেন, যে ধৰ্ম্মপ্রচারক হইয়া যে