পাতা:প্রায়শ্চিত্ত ১৯২০ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রায়শ্চিত্ত 8ዓ উদয়াদিত্য। সে যে অনেক নীচে। লাফিয়ে পড়া চলে না তো । স্বরমা । ( উদয়াদিত্যকে মৃদ্ধস্বরে ) আমাদের এখানে যে দাড়িয়ে থাকলে কোনো ফল হবে তা তো বোধ হয় না । মহারাজ কি শুতে গিয়েছেন ? বসন্ত রায় । হা, শুতে গিয়েছেন— রাত তো কম হয় নি। সুরমা । মা কি একবার তার কাছে গিয়ে – উদয়াদিত্য। মা এ-সমস্ত কিছুই জানেন না । জানলে তিনি কামাকাটি করে এমনি গোলমাল বাধিয়ে তুলবেন যে, আর কোনো উপায় থাকবে না। জানই তো, তিনি মহারাজের কাছে কিছু বলতে গেলে সমস্তই উলটো হবে— মাঝের থেকে কেবল তিনিই অস্থির হয়ে উঠবেন। সুরমা । বিভা, কাদিস নে বিভা ! এ কখনো ঘটতেই পারে না । এ একটা স্বপ্ন— এ সমস্তই কেটে যাবে। রামমোহনের প্রবেশ রামচন্দ্র। কী রামমোহন, কী করবি বল। রামমোহন। যতক্ষণ আমার প্রাণ অাছে ততক্ষণ— রামচন্দ্র । আরে তোর প্রাণ নিয়ে আমার কী হবে ? এখন পালাবার উপায় কী ? 蠱 রামমোহন। মহারাজ, তুমি যদি ভয় না কর, আমি এক কাজ করতে পারি। রামচন্দ্র। কী বল। রামমোহন । তোমাকে পিঠে করে নিয়ে রাজবাটীর ছাতের উপর থেকে আমি খালের মধ্যে লাফিয়ে পড়তে পারি। বসন্ত রায় । কী সর্বনাশ ! সে কি হয় !