পাতা:প্রায়শ্চিত্ত ১৯২০ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রায়শ্চিত্ত \9వ উদয়াদিত্যের প্রবেশ মহিষী। বাবা উদয়, সুরমাকে বাপের বাড়ি পাঠানো যাক ! উদয়াদিত্য । কেন মা, স্বরমা কী অপরাধ করেছে ? মহিষী। কী জানি বাছা, আমরা মেয়েমানুষ কিছু বুঝি না। বউমাকে বাপের বাড়ি পাঠিয়ে মহারাজার রাজকার্যের যে কী স্বযোগ হবে, মহারাজই জানেন । উদয়াদিত্য । মা, রাজবাড়িতে যদি আমার স্থান হয়ে থাকে তবে স্বরমার কি হবে না ? কেবল স্থানটুকুমাত্রই তার ছিল, তার বেশি তো আর কিছু সে পায় নি! মহিষী ! ( সরোদনে ) কী জানি বাবা, মহারাজ কখন কী ষে করেন কিছু বুঝতে পারি নে। কিন্তু তাও বলি বাছ, আমাদের বউমা বড়ো ভালো মেয়ে নয়। ও রাজবাড়িতে প্রবেশ করে অবধিই এখানে আর শাস্তি নেই। হাড় জালাতন হয়ে গেল । তা, ও দিনকতক বাপের বাড়িতেই যাক-না কেন, দেখা যাক— কী বল বাছা ? ও দিনকতক এখান থেকে গেলেই দেখতে পাবে, বাড়ির শ্ৰী ফেরে কি না। [ উদয় নীরব থাকিয়া কিয়ংকাল পরে প্রস্থান সুরমার প্রবেশ সুরমা । কই, এখানে তো তিনি নেই। মহিষী। পোড়ারমুখী, আমার বাছাকে তুষ্ট কী করলি ? অামার বাছাকে আমায় ফিরিয়ে দে। এসে অবধি তুই তার কী সর্বনাশ না করলি ? অবশেষে— সে রাজার ছেলে— তার হাতে বেড়ি না দিয়ে কি তুই ক্ষাস্ত হবি নে ? স্বরম। কোনো ভয় নেই মা ! বেড়ি এবার ভাঙল। আমি বুঝতে পারছি আমার বিদায় হবার সময় হয়ে এসেছে— আর বড়ো ফেরি নেই।