পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (ব্রাহ্মণ কাণ্ড, প্রথমাংশ).djvu/৩০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


રોના - বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস হষ্টয়াছিল। তাহাদিগকে রক্ষা করিবার জন্য পিন্ধেশ্বৰী প্রাণপণে ষত্ব করিয়াছিলেন । , এমন কি ভাগতে উভয় পক্ষে ক একটা খণ্ডযুদ্ধ হইয়াছিল। পরম ধাৰ্ম্মিক গোলোকনারায়ণ বিবাদ BBBD BB BBBBB BS BBBBBB BBB B BBB BB BBB BBB BBBBB স্ব স্ব মানসন্ত্রম রক্ষা করিতে কাতর হষ্টয়া পড়িয়ছিল। এ কারণ গোলোকনারায়ণ একদিন হঠাৎ ওয়াইজসাহেবের কাছাৰীতে উপস্থিত হইয়া বিবাদ মিটাষ্টয় আসেন । গোলোকনারায়ণের মহত্বদর্শনে ওয়াইজসাহেব কিছুদিন স্থির ছিলেন, কিন্তু তৎপরেই তাহার স্বভাবসিদ্ধ অত্যাচার ও উৎপীড়ন আরম্ভ করিলেন। এ সময়ে সিদ্ধেশ্বরী ও কালীনারায়ণ উপযুক্ত লোক রাখিয়া শত্রুর গতি রোধ করিয়াছিলেন । কিন্তু গোলোকনারায়ণ এরূপ নিত্যশক্রতা হষ্টতে একেবারে অব্যাহতিলাভের জন্য আবার একদিন সাহেবের কাছারীতে গিয়া জনাইলেন, *নিত্য এরূপ বিবাদে ফল কি ? হয় আমার ইচ্ছানুরূপ মূল দিয়া ॥% আন খরিদ কর ; না হয় তোমার ইচ্ছামত মূল্য দিয়া আমিই তোমার দখল অংশ ক্রয় করিয়া লই ।” সাহেব হাসিয়া উত্তর করেন, “তুমি বিক্রয় কৰিবে কেন ? আমার খরিদ তিস্তার প্রতিআনায় লক্ষ টাকা মূল্য দাও, আমিই বিক্রয় করিব।” গোলো কনারায়ণ তাহাতেই সন্মত হইলেন। তাহার পুত্ৰ কালীনারায়ণ ইতস্ততঃ করিতে থাকেন, কিন্তু কাহারও কথা না শুনিয়া ওয়াইজ মাহেবের অংশ খরিদ করিয়া ভাওয়ালে শাস্তিস্থাপন করি লেন। এই কাৰ্য্যে তিনি ঋণগ্রস্ত হইলেন। পরে কালীনারায়ণের বুদ্ধিকৌশলে ৫ বর্ষের মধ্যেই সমস্ত ঋণ পরিশোধ হইল। ঋণদায় ইষ্টতে যুক্ত গুইয়া গোলোকনারায়ণ ১২৬৩ সালে ( ১৩ই পৌষ ) দেহত্যাগ করেন । to তাহার যত্নে নিৰ্ম্মিত মাধবের মন্দির, বিস্তীর্ণ দার্থিক প্রভৃতি এখনও জয়দেবপুবে তাছার কীৰ্ত্তি ঘোষণা করিতেছে। তৎপুত্র কালীনারায়ণ পিতার মৃত্যুর পর প্রভূত সম্পত্তির মালিক হইলেন । তিনি পূৰ্ব্বেই ঢাকার ম্যাজিষ্ট্রেট ওয়ালটার সাহেবের যত্নে পারস্তভাষা শিথিয়াছিলেন। সঙ্গীতবিদ্যায় তাহার বিশেষ অনুরাগ ছিল । কালানারায়ণের তিন বিবাহ । বালককালে তাঙ্গর প্রথম বিবাহ হয় । তাছার প্রথম • পত্নী কোন সন্তান ন হইতেই ইহলোক পরিত্যাগ করেন। তংপরে ১৭ কি ১৮ বর্ষ বয়সে কালীনারায়ণের দ্বিতীয়বার বিবাহ হয় । এই দ্বিতীয়া পত্নীর গর্ভে একটা কষ্ঠ হইয় অল্পকাল মধ্যেই মাঙ্গ যায়। তৎপরে কএক বর্ষ মধ্যে আর কোন সস্তান না হওয়ায় গোলকনারায়ণ পুত্রের তৃতীয় বার বিবাহ দিয়াছিলেন । এষ্ট তৃতীয়া পত্নীর গর্ভে প্রথমে কৃপাময়ী দেবী এবং তৎপরে ১২৬৫ সালে ( আশ্বিনমাসে ) ভাওয়ালের রাজা রাজেন্দ্রনারায়ণ রায় চৌধুরী बांशंध्रुद्र জন্মগ্রহণ করেন পূর্কে গণ পিতামহীর সংযোগে ওয়tষ্টজমাহেবের কবল হইতে বিচক্ষণ হরিয়াছিলেন । এখন উত্তরাধিকারস্থত্রে সমুদয় পৈতৃক .সঙ্গ’ তি করিতে লাগিলেন ও পাশ্ববর্ভা অনেক পরগণার