পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


• বিভূতি-রচনাবলী আত্মা হয়ে যাবো । পুপও জানে না, পুষ্প মেয়েমানুষ, ও ভালবাসায় বড় হয়ে এখানে এসেচে, জ্ঞানে নয় । ওসব কথার উত্তর সে দিতে পারবে না। আচ্ছ, এখন আসি মণ্ট, । নতুন সবে কাল এসেচ, এমে কত কি অদ্ভুত ব্যাপার দেখবে, কত কি নিজেই জানতে পারবে । সময় ফুরিয়ে যাবে না, সময় এখানে অফুরন্ত, অনন্ত । যতীনের মা চলে গেলেন । wტ যতীন একদিন পুষ্পকে বল্লে—কত দিন হয়ে গেল এখানে এসেচি বলতে পারিস পুষ্প ? এখানে তো দিনরাত্রির কোনো হিসেব পাইনে । পুপ বল্পে-পৃথিবীর অভ্যেধ দূর হতে এখনও তোমার অনেক দিন লাগবে যতুদ। এখানে দিনরাত্রির কোনো দরকার যখন নেই, তখন ধাড় দেখা অভ্যেপটা ছেড়ে দাও । সময় যে অফুরন্ত, অনস্ত, যতদিন সেটা অনুভব না করবে, ততদিন মুক্তি হবে না। মনের দ্বিধা, সংকীর্ণ ভাব দূর না হোলে মুক্তি সম্ভব নয়, যতুদ । - —কি ধরনের মুক্তি ? —কি জানি, আমি এ সব বড় বড় কথা জানিনে, তোমায় আবার আমি কি বোঝাবো যতুদ, তুমি আমার চেয়ে কম বোঝে ? —বাজে কথা বলে আমায় ভোলাতে চাস নে পুপ। আমি অনেক কিছু জানতে চাই, আমাকে শেখানোর ব্যবস্থা করে দিবি ? কত কি যে জানতে চাই তার ঠিক নেই। কে আমায় বলে দেবে বল তো ! —আছে, লোক আছে। তোমায় নিয়ে যাবো একদিন সেখানে। খুব উচু এক আত্মা আমায় বড় স্নেহ করেন। আমার স্তরে আসতে র্তার কষ্ট হয়। তাই আমিই যাই তার সঙ্গে দেখা করতে। তুমি যাবে একদিন ? আমি গুরুদেব বলি তাকে। বৈষ্ণব সাধু। –কিন্তু আমি সে সব উচ্চস্তরে কি করে যাবো পুপ ? মোটে সেদিন পৃথিবী থেকে এসেচি —তোমার দয়ায়তাই এত উচু স্তরে আছি, এর চেয়েও উচুতে কি ভাবে যাবো ? —যাওয়া ঠিক কঠিন নয়, কিন্তু থাকতে পারবে না বেশিক্ষণ। যাতে যেতে পারো তার ব্যবস্থা আমি করবো । • . —আচ্ছা একটা কথা জিজ্ঞেস করি পুষ্প, আমার এখনও একটা সন্দেহ হয়, এ সব স্বপ্ন নয় তো ? bs —যাও, পাগলামি কোরো না যতুদা । তোমার একথার উত্তর অন্তত একশো বার না দিয়েচি তুমি আসা পর্যন্ত ? দেখবে আর একটা জিনিস, দেখাবো? অবহি তোমায় সেখানে আজ যেতেই হবে । —কি সেটা ?