পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৪৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ছায়াছবি bét —আমি আজ বাসায় যাই নি—দুপুরে এখানেই শুয়েছিলাম। —খেলেন কোথায় ? - —রামজীবন তরফদারের স্ত্রীর শ্রাদ্ধ গেল আজ কিনা। নেমন্তয় ছিল । — । অম্বিন আমার বারানায়, চা খাবেন ? —না মশায়। এই গরমে চা ? দুপুরে লুচি ঠেলে ? —দালদা ঘি-এর তো ? —নইলে আর কোথায় পাচ্চে গাওয়া ঘি ? —না মশাই, ও নেমন্তম না খেয়ে ভালোই করেচি । খেলে অম্বল, না হয় পেটের অমুখ । আর এই গরমে ! চন্দ্রনাথবাবু ডাক্তার সেনের বারাগুয় এসে বসলেন এবং চাও খেলেন। পরে যথারীতি ভূতের গল্প শুরু হয়ে গেল । চন্দ্রনাথবাবুর মধ্যে একটু সমরপটু আত্মা বাস করে, অবিশ্বাসীর সঙ্গে যুদ্ধ করেই তার তৃপ্তি। শিশির সেন ভূতে বিশ্বাস করুক, না করুক, তাতে চন্দ্রনাথ কবিরাজের কি ? জিনিসটা যদি সত্যিই হয়, তবে শিশির সেসের অবিশ্বাস পেটার কি হানি করতে পারে ? চন্দ্রনাথবাবু সেটা বোঝেন না যে এমন নয়, বোঝেন সবই । তবু যদি একজন অবিশ্বাসীকেও একদিন আলোতে এনে হাজির করা যায় ! ইসলাম ও খৃষ্টধর্মের দিগ্বিজয়ী প্রচারকদের আশা যেন তার মধ্যে এসে বাসা বেঁধেচে । সত্যের আলোতে এসব অসৎ মুখ ছেলে-ছোকরাদের আনতেই হবে, তবেই প্রকৃত শাস্তি দেওয়া হবে এই দাম্ভিকদের । স্বার্থবাদী ছোকরা দাম্ভিকের দল! দু-পাত সায়েন্স পড়ে সব শিখে ফেলেচে । চন্দ্রনাথবাবু জানতেন না শিশির সেনের মতgছাকরা তার সম্বন্ধে কি মনে করে। ওরা আড়ালে মুখ টিপে হেসে বলে-বুড়ে একদম সেকেলে। কুসংস্কারে ভরা। ইংরাজি তে তেমন জানে না । কবরেজি করতো, সংস্কৃত জানে একটু-আধটু । দৃষ্টিভঙ্গি একেবারে উনবিংশ শতাব্দীর , কি করি, মেশবার কোনো লোক নেই এসব জায়গায় । কার সঙ্গে ছুটে কথা বলি, নইলে ওই বুড়ো হাবড়ার সঙ্গে বন্ধুত্ব আমার ? রামঃ ! 鬱 একটু পরেই হঠাৎ পশ্চিম দিগন্তে অন্ধকার করে একখানা বড় কালো মেঘ উঠলো এবং কিছুক্ষণ পরে কালবৈশাখীর ঝড় শুরু হয়ে গেল। চন্দ্রনাথ কবিরাজ নিজের কবরেজখানার জানল দরজা বন্ধ করতে ছুটে গেলেন । ধুলোয় চারিদিকে অন্ধকার হয়ে উঠলো, বড় বড় ফোটার বৃষ্টি পড়তে শুরু হলো বটে কিন্তু বৃষ্টি বেশি না হয়ে ঝড়টাই হলো বেশি। 藝 সডাক্তারখানার সামনের অশখ-গাছের একটা ডাল ভেঙ্গে উড়ে এসে পড়লো শিশির সেনের ডাক্তারখানার দরজার সামনে । বৃষ্টি-ভেজা সোদা মাটির গন্ধ বেরুবার সঙ্গে-সঙ্গে বাতাস ঠাণ্ড —গরম একদম কমে এল । , চন্দ্রনাথ বললেন–জী বাচা গেল ! শরীর জুড়িয়ে গেল যেন ! কতদিন পরে একটু বৃষ্টি পড়লো আজ মাটিতে। 穩