পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/২২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দম্পতি لماذج করিয়াছিলেন, বা প্রখ্যাতনাম বার্ণার্ড পেলিসি এনামেল করার প্রক্রিয়া উদ্ভাবন করিয়াছিলেন । কিন্তু এরূপ অমানুষিক অধ্যবসায় দেখাইয়াও কোনো ফল হইল না—গদাধর কাহাকেও টাকা দিতে পারিলেন না ! * ছবি বাজারে চলিল না, কাগজে নানা বিরুদ্ধ সমালোচনা হইতে লাগিল—তবুও গোলাদর্শকর। মাস-দুই ধরিয়া বিভিন্ন মফঃস্বলের শহরে ছবিখানা দেখিল। কিন্তু ডিষ্ট্রিবিউটারের অগ্রিম দেওয়া টাকা শোধ করিতেই সে টাকা ব্যয় হইল—গদাধরের হাতে যাহা পড়িল— তাহার অনেক বেশি তিনি ঘর হইতে বাহির করিয়াছেন। প্রায় ত্ৰিশ হাজার টাকা খরচ করিয়া গদাধর পাইলেন সাত হাজার টাকা । তেইশ হাজার টাকা লোকসান । ইতিমধ্যে আরও মুশকিল হইল। পুনরায় একখানা ছবি তোলা হইবে বলিয়া আটিস্টদের সঙ্গে,যে-বাগান-বাড়ী ভাড়া লইয়া স্টুডিও খোলা হইয়াছিল—তাহাদের সঙ্গে এবং মেসিন-বিক্রেতাদের সঙ্গে এক বৎসরের কণ্টাক্ট করা হইয়াছিল—ছবি তুলিবার দেরি হইতেছে দেখিয়া তাহারা চুক্তিমত টাকার তাগাদা শুরু করিল। কেহ-কেহ অন্যথায় নালিশ করিবার ভয়ও দেখাইল । গদাধর যে সাত হাজার টাকা পাইয়াছিলেন—তাহার অনেক টাকাই গেল এই দলের মধ্যে কিছু কিছু করিয়া দিয়া তাহাদিগকে আপাততঃ শাস্ত করিতে। শোভার টাকা শোধ দেওয়ার কোনো পস্থাই হইল না। বাজারেও এখন প্রায় পচিশ হাজার টাকা দেন । অঘোরবাৰু উপদেশ দিলেন, ইহার একমাত্র প্রতিকার নতুন একখানা ছবি তৈরি করা। আরও টাকা চাই—গদাধর ডিস্ট্রিবিউটারদের সঙ্গে কথা চালাইলেন। তাহার। এ ছবিতে বিশেষ লোকসান খায় নাই, নিজেদের টাকা প্রায় সব উঠাইয়া লইয়াছিল—তাহারা বাকি ত্রিশ হাজার টাকা দিতে রাজী হইল—কিন্তু গদাধরকে ত্রিশ হাজার বাহির করিতেই হুইবে । ষাট হাজার টাকার কমে ছবি হইবে না। অঘোরবাৰু উৎসাহ দিলেন, ছবি করিতেই হইবে। দু'একখানা ছবি অমন হইয় থাকে । ë সাত সামনের হপ্তাতেই কাজ আরম্ভ করা দরকার—কিছু টাক চাই । গদাধর ভড়মশায়কে বলিলেন-ক্যাশে কত টাকা আছে ? —হাজার-পনেরো । —আর, মোকামে ? --«2ांग्न जाँउ हाँछॉन्न |