পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/১০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অপরাজিত ꬃጫ কত বেলায় খায়। রবিবার বলিয়া বুঝি এভ দেরি । কিন্তু যখন তিনটা বাজিয়া গেল, তখন অপুর মনে হইল, কোথাও কিছু ভুল হইয়াছে নিশ্চয়। হয় সে-ই ভুল বুঝিয়াছে, না হয় উহারা ভুল করিয়াছে। তাহার এত ক্ষুধা পাইয়াছিল যে, সে আর বসিতে পারিতেছে না। উঠিবে কিনা ভাবিতেছে, এমন সময় সুরেশের ছোট ভাই সুনীল বাড়ির ভিতর হইতে বাহিরে আসিল। অপু ডাকিবার পূর্বেই সে সাইকেল লইয়া বাড়ির বাহিরে কোথায় চলিয়া গেল ! সেই মুনীল—যাহাকে সঙ্গে লইয়া নিমন্ত্রণে ছাদ বাধিবার দরুণ জোঠিম। তাহাকে ফলারে-বামুনের ছেলে বলিয়াছিলেন । ইহাদের যে এতদিন পর আবার দেখিতে পাওয়া যাইবে, তাহা যেন অপু ভাবে নাই। মুনীলকে দেখিয় তাহার বিস্ময় ও আনন্দ দুই-ই হইল। এ যেন কেমন একটা ঠিক বুঝানো যায় মা— ইহাদের সঙ্গে দেখা করিতে আসিবার মূলে অপুর কোন স্বার্থসিদ্ধি বা মুযোগ-সন্ধানের উদ্দেশু ছিল না, বা ইহা যে নিতান্ত গায়ে পড়িয়া আলাপ জমাইবার মত দেখাইতেছে— একবারও সে কথা তাহার মনে উদয় হয় নাই ! এখানে তাহার আসিবার মূলে সেই বিস্ময়ের ভাব—ঘাহা তাহার জন্মগত। কে আবার জানিত, খাস কলিকাতা শহরে এতদিন পরে নিশ্চিন্দিপুরের বাড়ির পাশের পোড়ে ভিটাটার ছেলেমেয়েদের সঙ্গে দেথা হইয়া যাইবে। এই ঘটনাটুকু তাহাকে মুগ্ধ করিবার পক্ষে যথেষ্ট। এ যেন জীবনের কোন অপরিচিত বাকে পত্রপুষ্পে সজ্জিত অজানা কোন কুঞ্জবন—বাকের মোড়ে ইহাদের অস্তিত্ব যেন সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিত । বিস্ময় মনের অতি উচ্চভাব এবং উচ্চ বলিয়াই সহজলভ্য নয়। সত্যকার বিস্ময়ের স্থান অনেক উপরে—বুদ্ধি যার খুব প্রশস্ত ও উদার, মন সব সময় সতর্ক-নূতন ছবি, নূতন ভাব গ্রহণ করিবার ক্ষমতা রাখে—সে-ই প্রকৃত বিস্ময়-রসকে ভোগ করিতে পারে। যাদের মনের যন্ত্ৰ অলস, মিনমিনে-পরিপূর্ণ, উদার বিস্ময়ের মত উচ্চ মনোভাব তাদের অপরিচিত থাকিয়া যায় । foots total Affairga Mother of Philosophy biziai o on to বিস্ময়ই আসল Philosophy, বাকীটা তাহার অর্থসঙ্গতি মাত্র। তিনটার পর সুরেশ বাহির হইয়া আসিল। সে হাই তুলিয়া বলিল—কাল রাত্রে ছিল নাইট-ডিউটি, চোখ মোটে বোজে নি—তাই একটু গড়িয়ে নিলাম—চল, মাঠে ক্যালকাটা টিমের হকি খেলা আছে—একটু দেখে আসা ধাকৃ— অপু মনে মনে স্ববেশদকে ঘুমের জন্ত অপরাধী ঠাওর করিবার জন্ত লজ্জিত হইল। সারারাত কাল বেচার ঘুমার নাই—তাহার ঘুম আসা সম্পূর্ণ স্বাভাবিকই তো।. সে বলিল—আমি আর মাঠে ঘাবো না মুরেশদ, কাল এগজামিন আছে, পড়া তৈরী হয় নি মোটে—আমি ধাই—ইয়ে—জ্যোঠমার সঙ্গে একবার দেখা ক'রে গেলে হতো— সুরেশ বলিল-স্থ্যা হা-ৰেশ তো—এসে না— •