পাতা:বিশ্বকোষ ঊনবিংশ খণ্ড.djvu/৫৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বরাহমিহির “শাক শরীস্তোধিযুগোলিতে হতে মানং ধতকৈঁরয়নাংশক্ষাঃ হাঃ ।” ইত্যাদি স্থলে ৪৪৫ শকের উল্লেখ এবং “মত্বা বরাহমিহিরাদিমতৈ:" ইত্যাদি প্রসঙ্গ থাকায়জ্যোতির্বিাভরণকে খৃ: পূৰ্ব্ব প্রথম শতাব্দীর গ্রন্থ অথৰা এই গ্রন্থের প্রমাণ অনুসারে বরাহমিহিরকে নব্যুরে একটী রত্ন বলিয়া স্বীকার করা যায় না । আবার কেহ কেহ ব্ৰহ্মগুপ্তটাকাকার পৃথুস্বামীর দোহাই দিয়া এই বচনট বলিয়া থাকেন— “নবাধিকপঞ্চশতসংখ্যশাকে বরাহমিহিরচার্ধে দিযং গত: ” ৫•৯ শকে বরাহমিহিরাচাৰ্য্য স্বর্গগমন করেন। সংস্কৃত সাহিত্যেৰ ইতিহাস-লেখক প্রসিদ্ধ জৰ্ম্মণ পণ্ডিত বেবের(Weber) আমরাজের দোহাই দিয়া উক্ত ৫.৯ শক গ্রহণ করিয়াছেন। কিন্তু আশ্চর্য্যের বিষয় এই যে, পৃথুস্বামী বা আমরাজের টীকার ঐরূপ কোন কথার আভাস নাই । আবার হলমঞ্জরীর দোহাই দিয়া কোন কোন মহারাষ্ট্রজ্যোতির্বিদ এই বচনটা পাঠ করিয়া থাকেন,— "স্বস্তি নৃপক্ষুধ্যসুমুজশকে যাতে দ্বিষের স্বয় ত্রৈমানাদমিত্তে ত্বনেহলি জয়ে বর্ষে বসস্তুদিকে ” “চৈত্রে শ্বেতদলে গুতে বহুতিথাবদিতাসাভূদ [ ¢¢१ ] বেদাঙ্গে নিপুণে বরাহমিহিরে বিপ্রে রবেরাশিভি: ॥” | অর্থাৎ ৩০৪২ যুধিষ্ঠিরের অন্ধে বা ২ বিক্রমসংবতে চৈত্র মাসে আদিত্যদাসের ঔরসে হুর্যের আশীৰ্ব্বাদে বেদাঙ্গনিপুণ বরাহমিহির জন্মগ্রহণ করেন। দুঃখের বিষয়, এই শ্লোকটীও । কোন প্রাচীন জ্যোতি স্থে না থাকায় বিশ্বাসযোগ্য নহে । * সুতরাং দেখা ধাউক, বরাহমিহির আপনার গ্রন্থে কিরূপ । পরিচয় দিয়াছেন । তাহার বৃহজ্জাতকের উপসংহারাধ্যায়ে লিখিত আছে--- “আদিত্যদাসতনয়প্তদবাঞ্চবোধ: কপিথকে সবিহ্বলন্ধৰরপ্রসাদ । BBBB BDDBBBBB BDBS BB DDDBBBS BttDD DDD S উক্ত শ্লোকনুসারে বরাহমিহিরের পিতার নাম আদিত্যদাস, | তিনি অবস্ত্রীবাসী। কপিথ নামক স্থানে তিনি স্বৰ্য্যদেবকে প্রসন্ন করিয়া বরলাভ করিয়াছেন । পঞ্চসিদ্ধাস্তিকার রোমকসিদ্ধাস্তুের অহর্গণ স্থির উপলক্ষে বরাহমিহির লিখিয়াছেন “সপ্তাখিবদnংখ্যং শক কলিমপাস্ত চৈত্র শুক্লাঙ্গে । অৰ্দ্ধাস্তমিতে ভানেী যবনপুরে ষ্টেমদিবসাদা; ॥" উক্ত শ্লোক অনুসারে, ৪২৭ শকে চৈত্র শুক্ল প্রতিপদ মঙ্গলবার পাওয়া যাইতেছে। নিজ সময় ধরিয়াই জ্যোতির্বিদগণ অহর্গণ স্থির করিয়া থাকেন। এরূপ স্থলে আমরা বরাহমিহিরকেও ঐ সময়ের লোক বলিয়া স্থির করিতে পারি।

  • শঙ্কর বালকৃষ্ণদীক্ষিত রচিত “ভারতীয় জ্যোতিঃশাস্ত্র" খ্ৰীঃৰ ।

XVII 28 o বরাহমিহির এদেশে বরাহমিহির ও খন সম্বন্ধে অনেক গল্প প্রচলিত আছে । কেহ কেহ খনাকে বরাহমিহিরের কচ্ছা, কেহ বা পত্নী, কেহ বা পুত্ৰৰ বলিয়। মনে করেল। কিন্তু ঐ সকল অনুমান বা প্রবাদের মূলে কিছুমাত্র ঐতিহাসিক সত্য আছে বলিয়। মনে করি না । বরাহমিহির তৎপূৰ্ব্বৰ পাঁচখানি সিন্ধান্থের আশ্রয় কবিয পঞ্চসিদ্ধান্তিক রচনা করেন। ঐ পঞ্চসিদ্ধান্থের নাম— “পোলিশ-রোমক বাসিষ্ট-সেীর-পৈতামহস্থ পঞ্চসিদ্ধাঙ্গ " পেলিশ, রোমক, বাসি, সৌর ও পৈতামহ এই পাঁচখানি সিদ্ধান্ত । বলিষ্ঠ ও পৈতামহ এই দুইখানি সিদ্ধান্ত আলোচনা করিয়া জ্যোতিঃশাস্ত্রের ইতিবৃত্ত-লেখকগণ খৃ: পূৰ্ব্ব ১৩শ শতাব্দীন সিদ্ধান্ত বলিয়া স্বীকার করেন । কিন্তু পোলিশ ও রোমক এষ্ট ছুইখানিব নাম দেখিয়া অনেকে মনে করেন বরাহমিহির প্রাচীন পাশ্চাত্য জ্যোতিষের ও সাহায্য গ্রহণ করিয়াছিলেন । পোলিশসিদ্ধান্তে মৰনপুর বা আলেক্জাঞ্জিয় হইতে দেশান্তব গৃহীত হইয়াছে। এদিকে আযাব রোমকসিন্ধান্তে গত দিনসংখ্যানির্ণয়ার্থ যবনপুরের মধ্যাহ্ন ধরা হইয়াছে।’ প্রসিদ্ধ মুসলমান পণ্ডিত অলীরুণী লিথিয়াছেন, পোলিশ সিদ্ধান্ত যুনানীর পৌলসের রচনা । তদনুসারে কেহ কেহ মনে করেন যে, δή*5ffa Paulus Alexandrinus q* যে জ্যোতিগ্রন্থ আছে, পেশিশসিদ্ধান্ত তাঙ্গারই সংস্কৃত অনুবাদ ; কিন্তু যাহারা উক্ত গ্রীকৃগ্রন্থ মিলাইয়া দেপিয়াছেন, তাহারা বলেম যে গ্রীকৃগ্রন্থের সহিত উহার কিছুমাত্র মিল নাই। বিশেষতঃ পোলিশ সিদ্ধান্ত একখানি ছিল না। ব্রহ্মসিদ্ধান্থের টীকাকার পৃথক ও ভট্রোৎপল পোলিশসিদ্ধান্ত হইতে কতকগুলি শ্লোক উদ্ধৃত কবিয়াছেন, ঐ সকল শ্লোকের সস্থিত পঞ্চসিদ্ধান্তিকার অন্তর্গত পোলিশসিদ্ধান্তের কোনরূপ ঐক্য নাই। সৌর ও আর্যভটসিদ্ধান্তের মতের সহিত বরং মিল আছে । রোমকসিদ্ধান্ত নাম শুনিয়া ও অনেকে স্থির করিয়া বসিয়াছেন যে, আলেক্জাঞ্জিয়ার প্রসিদ্ধ জ্যোতির্বিদ টলেমীর মূল গ্রন্থ অবলম্বনে সংস্কৃত ভাষায় রোমকসিদ্ধাস্ত রচিত হইয়াছিল। কিন্তু ব্রহ্মগুপ্তের ব্রহ্মসিদ্ধাস্ত পাঠ করিলে তাহা মনে হয় না । লাট, বশিষ্ট, বিজয়নন্দী ও আর্যভট এই চারিঙ্গনের গণন ভিত্ত্বি করিয়া শ্ৰীষেণ রোমকসিদ্ধান্ত ৰচনা করেন। ভট্টোৎপল ও মলবেরুণীও তাহাই বলিয়াছেন। (3)" ६यनं{55 मृद्धाँ ने{७}: সপ্তাৰপ্তান্ত্রিগুগসংযুক্ত: | বারাণসাtং ত্রিকৃতি; সাধনমল্পত্র যক্ষ্যাদি।" (পঞ্চসিদ্ধাস্তিকায় গোলিশ )