পাতা:বিশ্বকোষ ত্রয়োদশ খণ্ড.djvu/১৮৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্রাহ্মসমাজ [ ১৮৬ ] ব্রাহ্মসমাজ পীড়িত হুষ্ট । শখ্যাশায়ী হয়েন । শেষে তিনি কাশীযাত্রা করিয়াছিলেন । পাপমধ্যে ১৭৮৬ শকের ২• ফাঙ্কন ঠাহীর মৃত্যু হয় । মত:পর রাহ্মসমাজের কার্য্যভার শ্রীমদেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের হস্তে গুপ্ত হইয়াছে। ঈশ্বর প্রসাদে তিনি পুরুবায়ুঘকাল পবিত্রজীবন যাপন করিতেছেন। ব্ৰাহ্মসমাজ এখনও এক প্রকার তাহারাষ্ট হস্তে বিধূত রহিয়াছে। তিনি ব্ৰাহ্মসমাজের উন্নতি কল্পে যে যে কাৰ্য্য করেন, তাহা পুৰ্ব্বে বিবৃত হইয়াছে। { দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর দেখ । ] ১৭৬০ শকে, একবিংশ বর্ষ বয়ঃক্রম কালেই শ্ৰীমদেবেন্দ্র নাথের ধৰ্ম্ম ভাব উদাপ্ত হইয়াছিল। একদিন হঠাৎ রাম মোহন রায়ের প্রচারিত ঈশোপলিযং গ্রন্থের এক ছিন্নপত্রে " ঈশালাস্তমিদং সৰ্ব্বং” এই ব্রহ্মমগ্ন পাঠ করিয়া তিনি পরম পুলকিত হয়েন। ইহাই ঠাহার নীভূত সাবিীমন্ত্রদীক্ষ। তদবধি,কেবল রিসন্ধ্যায় কেন, পরস্তু দিনেও নিশীথে বেদোপ | নিগণের মৰ্ম্মসকল তাহার রসনায় বিলাস করিতেছে । দেবেন্দ্রনাথ ১৭৬১ শকে স্বতঃপ্রবৃত্ত হইয়া ত স্তুবোধিনীসভা আরম্ভ কfরলেন । ছুই বৎসর পরে তাহাও ব্রাহ্মসমাজের সহিত সংযুক্ত হইয়াছিল। তত্ববোধিনীসভার স্থাপনাবধি, নানামতের ও নানা ভাবের পৃথিবীস্থ সভ্যসমাজের সর্বশ্রেণীর লোক এাহ্মসমাজের এই দীর্ঘঞ্জীবী অশ্বত্থ তরুতলে আসিয়া দণ্ডায়মান হইতেছেন ৫ ৷ ১৭৮৫ শকে তত্ত্ববোধিনীসভা কএকট প্রধানকর্ষের অনুষ্ঠান করিয়া ব্রাহ্মসমাজের ইতিহাসে স্মরণীয় গুইয়াছেন। সে কৰ্ম্মগুলি এই:-(১) তত্ত্ববোধিনীপত্রিক প্রকাশ । (২) তত্ত্ববোধিনী-পাঠশালা স্থাপল । (৩) ব্রতরূপে ব্ৰাহ্মধর্মের দীক্ষা গ্রহণ। (৪) ব্রাহ্মসমাজের নিয়মাবলী অবধারণ এবং (৫) মাসিকসভা ও সান্ধৎসরিক উৎসবের বিধান । নিয়মাবলী অধধারণা প্রসঙ্গে দুই সভার একত্র সম্মিলনের | প্রস্তাব আলোচিত হয় । তাহাতে স্থির হইল যে, তত্ত্ববোধিনী

  • মদবেঞ্জ নাথের সময়ে স্কুল ও কলেজের প্রণালী মতে সাহিত,

DBB g BBBBBB BBB B BBBB BBB BB BB BBBBS জ্ঞের পৃষ্ঠপোষক হইয়াছিলেন । তাদের অধিকাংশই ছিলু কলেজের উত্তীর্ণ ছাত্র। হিন্দুকলেজের গবর্ণর পদাধিষ্ঠিত এ যুক্ত প্রসন্নকুমার ঠাকুর সংস্কৃত কলেজের ছাত্রবৃন্দের সাহায্যে হিন্দুকলেঞ্জের ছাত্রদিগের খায়। ইংরাজী ভাষায় লিখিত উচ্চতর সাহিত্য ও বিজ্ঞানের বঙ্গামূৰাপূৰ্ব্বক্ষ বাঙ্গাল পাঠ্য পুস্তক প্রস্তুত করিতেছিলেন। অধ্যাপক লীযুক্ত রামচন্দ্র বিদ্যাবাগীশ এই BBDD BBDDDD D DDD BBBBBBB BBBDD DBBB S BDD সংশ্লষে ও উপদেশে এই সম্প্রদায়ের স্বশিক্ষিত যুবকগণ দেবেশ্রনাথের প্রতিষ্ঠিত BBBBBBB BD DDD BBB BBBBBB B S DDDBB করিয়াছিলেন । সভা স্বতন্ত্রভাবে জ্ঞান ও বিজ্ঞানের অমুশীলন দ্বারা ব্ৰাহ্মধৰ্ম্ম প্রচার করিবেন । তাহার যে মাসিক উপাসনা ছহঁত, তাহ। বাহ্মসমাজের মাসিক সভারূপে প্রতিমাসের প্রথম রবিবারের প্রাতঃকালে সমাহিত হইবে । আরও স্থির হইল যে, এই দুই সভার পৃথক্ সাম্বৎসরিক উৎসব না হইয়া, যে দিবস এই নুতনমন্দিরে ব্রাহ্মসমাজের উপাসনা আরম্ভ হয়, সেই দিন ১১ই মাঘ ইহার সাম্বৎসরিক উৎসব হইবে । ইতিপূৰ্ব্বে শুই মাঘের সাম্বৎসরিক উৎসব উঠিয়া গিয়াছিল । এক্ষণে ১১ মাঘের উৎসবে দুষ্ট সভার সাম্বৎসরিক উৎসব স্মরণীয় রহিল । প্রথমে এাহ্মসমাজ “ ব্রহ্মসভা” নামে প্রথিত হইয়াছিল । বিদ্যাবাগীশকৃত মুদ্রিত-ব্যাখ্যানের অাখ্যাপত্রে (Title page) *4াহ্মসমাজে” গঠিত হয়,এই কথা সন্নিবিষ্ট থাকে । তত্ত্ববোধিনী পত্রিকায় প্রথমে এবং সেই সময়ের কোন কোন পুস্তকে “ব্রাহ্ম্য সমাজ” নাম ব্যবহৃত হইয়াছিল । ইহারই অব্যবহিত পরে *াহ্মসমাজ” নাম স্থিরীকৃত হইয়া যায় । এই সময় বিশুদ্ধ বাঙ্গালা ভাষায় জ্ঞানবিজ্ঞানসম্মত গ্ৰন্থ রচনার নিমিত্ত কৃতবিদ্য ব্যক্তি-সমুহ বাগ্র ছিলেন। এজন্য তত্ত্ববোধিনীসভার মধ্যে “গ্ৰন্থসতা” ও গ্রন্থসম্পাদকের কৰ্ম্মের বাহুলা হয় । সাহিত্য ও বিজ্ঞানের সহিত ধৰ্ম্মশিক্ষা দিবার নিমি ও তত্ত্ববোধিনী পাঠশালা সংস্থাপিত হইয়াছিল । উপনিষদাদি পাঠ হহত । পরে প্রাকৃতিক-বিজ্ঞানের শিক্ষা দে ওয়া হইত। এতদুপলক্ষে ক একখানি উৎকৃষ্ট পুস্তক তত্ত্ববোধিনী পত্রিকার সম্পাদক মুপ্রিসিদ্ধ অক্ষয়কুমার দত্ত দ্বার। রচিত হইয়াছিল । সুখপাঠ্য বাঙ্গালা-ভাষায় উন্নতজ্ঞানের অালোচনা হেতু তত্ত্ববোধিনীপত্রিকার সৰ্ব্বত্র সমাদর হইতে লাগিল । এই প্রকারে তত্ত্ববোধিনী-সভ ও ব্রাহ্মসমাজ একযোগে মহতা প্রতিষ্ঠা প্রাপ্ত হইয়াছিল। সাহিত্যন্ত্রসজ্ঞ, বিজ্ঞানপ্রিয়, তত্ত্বজিজ্ঞাস্থ, বিদ্যামুরাগী জনগণ এই সংসগে পরম আনন্দ অমৃতব করিতে লাগিলেন। ব্রাহ্মসমাজের উপাসনা-স্থান লোক পুণ হইতে লাগিল । ঐমদেবেন্দ্রনাথ দেখিলেন, সভাগৃহের দ্বিতীয়তলে লোৰু ধরে না ; সুতরাং তৃতীয়তালানিৰ্ম্মাণ আবশুক বিবেচনায়,তিনি প্রায় ৫ শত লোকের উপবেশনোপযোগী-স্থান নিৰ্ম্মাণ করিয়া দেন। তৎপরে ধৰ্ম্মসাধন-সম্বন্ধে কতদূর কি হইতেছে, তৎপ্রতি র্তাহার দৃষ্টি পড়িল। পূৰ্ব্বরচিত প্রতিজ্ঞাপত্রে স্বাক্ষর স্বারা বহুলোক নিত্য-উপাসনার নিমিত্ত সঙ্কল্প করিলেন বটে, কিন্তু উপাসনাপদ্ধতি তখনও নির্ণীত বা নির্ধারিত হয় নাই । এতদ্ভিন্ন ধর্শ্বের বোধ, চিস্তা ও অভ্যাগের উপযোগী এক খানি গ্রন্থের ও অভাব অনুভূত হইল। ক্ৰষে এই চুই অত্য তথায়