পাতা:বিশ্বকোষ ত্রয়োদশ খণ্ড.djvu/২১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छद्धि [ ২১ • J ভক্তি -o ভূত,ভবিষ্যৎ ও ৰ মান সকলসময়েই সত্যস্বরূপ ভগৱানে ভক্তিই সৰ্ব্বপেক্ষ শ্রেষ্ঠ । ভগবানকে লাভ করিবার প্রস্ত শাজে যত প্রকার সাধন কথিত হইয়াছে, সেই সকলের মধ্যে একমাত্র ভক্তিসাধনই সৰ্ব্বাপেক্ষ সুগম ও শ্রেষ্ঠ । অক্সান্ত সকল সাধনাই কচ্ছ-লাধ্য ও বহুল যত্নস্থলভ এবং তাহার সকল গুলিতে আবার সকলের অধিকারও নাই। কেবল দীনবেশে ভক্তির আবেশে তাছাকে ডাকিতে পারিলেই তিনি হৃদয়ে উদিত হইয়া থাকেন। যোগসাধনায় যুগযুগাস্তুে যাহ হয় না, ভক্তি সাধনায় মুহূৰ্ত্ত মধ্যে তাহা হইতে পারে। ८याश्रव्राप्छा गिनि बा७ भप्नम्न अर्द्धोउ, खक्लिग्नाएमा ठिनिहे k ঈলয়ের পরতে পরতে এখিত ও বিজড়িত। এইজন্স নারদ জগতে ঘোষণা করিয়াছেন যে, ‘ভক্তি অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ সাধন আর নাই ।” এই ভক্তি একরূপ হইয়াও একাদশ প্রকার। যখ,–গুণমাহাত্ম্যালকি, রূপালক্তি, পুঙ্গালক্তি, স্মরণাসক্তি, দাঙ্কাসক্তি সখ্যাসক্তি, কান্তাসক্তি, বাৎসল্যাসক্তি, আত্মনিবেদনাসক্তি, স্তন্মভোলক্তি এবং পরমবিরহালক্তি । ৰে যাহাকে ভাল বালে, সে তাহার সকল চেষ্টা ও সকল জঙ্গকে ভালই দেখে, কিন্তু কেছ কেহ কোন কোন অঙ্গের সৌন্দৰ্য্য বা কোন কোন ভাবে বিশেষ আকৃষ্ট হুইস্থা থাকে। সেইরূপ ভক্তগণ ভগবানে সৰ্ব্বতোভাবে আসক্ত হইলেও কোন কোন ভক্ত তাহার কোন কোন ভাবে বিশেষ আসক্ত ছইগা থাকেন। ইছ। কেবল রুচিবৈচিত্র্যেরই ফল বলিতে হইবে। রাজা পরীক্ষিৎ, নারদ, হনুমান, পৃথুরাজা প্রভৃতি গুপমহাত্ম্যাসক্ত ভক্ত। কৃষ্ণের বালরূপে নন্দ, উপনদী ও যশোদাদি এবং কিশোররূপে ব্ৰজনার প্রভৃতি ভজনা করিয়াছিল, এইজন্ত ইহার রূপাসক্ত ভক্ত। পৃথুরাজা পূজাসক্ত, প্ৰহলাদ স্মরণাসক্ত, হনুমান, অক্রয় ও বিচুয়াদি দাস্তাসক্ত, অৰ্জ্জুন, অগ্ৰীৰ, উদ্ধব, কাবের, স্ববল, শ্ৰীদামাদি সখ্যাসক্ত, ব্ৰজগোপিকাগণ কাস্তাসক্ত, নল, যশোদা, কৌশল্য, দশরথ, কগুপ, অদিতি প্রকৃতি বাৎসল্যাসক্ত, বলিরাজ। আত্মনিবেদনাসক্ত এবং কৌণ্ডিছ, শুকদেবাদি তন্ময়ভাসক্ত ভজ্ঞ ছিলেন। শুকদেব ভক্রিশিক্ষার একজন প্রধানতম আচার্ষ্যছিলেন, ৰেহেতু ভক্তিরসপ্রধান সেই 'শুকমুখাদম্বতন্ত্ৰৰসংযুক্তং প্রীমদভাগৰভ গ্রন্থখানি কথিত হইয়াছিল । (নারদগুক্তিস্বত্র) "ভক্ত্য। ভজনোপলংহারাগেশ্য পরায়ৈ ভদ্ধেতুৰাংশ ( শাশুিল্যস্থs e৬ ) छजन वा cनबाई cनोबै छख् ि॥ ७३ ८भाभै छखिन्हे नब्राভক্তির ভিত্তিস্বরূপ। পরাভক্তি সাধন করিতে হইলে ৰে नांनांविष बित्र फेभरिष्ठ इहेष्ठा गांधकरक छङिमार्ग श्रऊ बिक्लाउ করিয়া দেয়, গৌণী ভুক্তি সেই ৰিয়রাশিকে ৰিন করে, এবং পরাভক্তি লাভের পঞ্জ প্রভত ক্ষরিতে থাকে। এইস্থলে যে ভক্তিপদ ব্যবহৃত হইয়াছে, তাছ গোপী-ভক্তির প্রতিপামৰ, "র্সিাৰ্ধপ্রক্টভিসাহচৰ্যাচ্চেতরো" ( শাণ্ডিল্যস্থ৯৫৭) নমস্কার, নামকীৰ্ত্তনাদির ফল কেৱল অস্থরাগ। ভগবানের লীলাভূমি দর্শন, ভগৱৎমূৰ্ত্তির সেবা, সঙ্গরাগ, প্রভৃতি সমস্ত প্রকার সেবাই কেবল ঐকাস্তিক অতুরাগ লাভ করিবার জন্ত । গৌণী ভক্তি দ্বারা পবিত্রতা লাক্ত হয়, শ্রদ্ধাপুৰ্ব্বক ভাগবতসেবা করিতে করিতে অন্তঃকরণের বৃত্তিসমূহ পরিশুদ্ধ হইয়। আইসে, চিত্তশুদ্ধি হইলে তখন নিৰ্ম্মল ভক্তির অভু্যদয় হইয়া থাকে। এইজন্ত কোন কোন আচাৰ্য্য গৌণীভুক্তির প্রাধাপ্ত স্বীকার করিয়াছেন । অনেকেই জ্ঞান বড় কি ভক্তি বড় এই বিষয়ু লইয়া ৰিতওt করিয়া থাকেন, শাগুিল্যসুত্রে ইহার সিন্ধান্ত এইরূপ লক্ষিত হয়। জ্ঞানাদি সকল সাধনই ভক্তিসাধনের উপাদান यक्र° । छांन ७ सख्-िउँछप्ग्रहे गांशन ७ गांथा cङष्म इझे প্রকার। যে জ্ঞান দ্বারা বস্তুর পরিচয় উপলব্ধি হয়, তাহা ‘সাধনঙ্গান এবং জ্ঞান, জ্ঞেয় ও জ্ঞাতার অতীত যে কুনি, তাহা ‘সাধ্যজ্ঞান’, এই জ্ঞানস্বরূপই ব্ৰহ্ম । যে ভক্তি দ্বারা শাস্ত্রাদি পাঠে ও দেবাচ্চনাদিতে প্রবৃত্তি হয়, তাহাই সাধনভক্তি বা গৌণীভক্তি নামে অভিহিত, এবং জ্ঞানযোগাদি দ্বারা ভগবৎসাক্ষাংকারের পর মুক্তিলাভ করিলে ভগবানের কৃপাদৃষ্টিতে ষে প্রীতির সঞ্চার হয়, তাহার নাম পরাভক্তি বা সাধ্যাভক্তি। সাধন দ্বার%াধ্যা-ভক্তিলাভ এবং সাধন-ভক্তি দ্বারা সাধ্য-জ্ঞানলাভ হইয়া থাকে। অবস্থাভেদে উভয়েরই णाषद ७ cओब्ररु श्राप्झ् । यज्रङ: गोश्वास्नान ७ °ब्राछख्tि७ কিছুমাত্র প্রভেদ নাই, এই ভক্তি ও জ্ঞান দুইই এক । “ছেয় রাগস্থাদিতি চেল্লোত্তমাস্পদস্থাৎ সঙ্গবৎ” ( শাগুিল্যস্থ• ২১ ) অস্থয়াগের নাম ভক্তি। কোন কোন ঋষির মতে অমুরাগ ছঃখের হেতু স্বরূপ ; সুতরাং অস্থরাগ ত্যাগ করাই শ্ৰেয়: ; কিন্তু বস্তুতঃ তাহ লছে । কেন না সৎসঙ্গের ন্যায় ইহার আশ্রয় উত্তম। মঙ্গুষ্যের মধ্যে পরস্পরে ষে অমুরাগের সঞ্চার ছয়, फाशण्ड बित्द्राक्षबष्ठ झः५ श्रेढा पाएक, क्रुि छेश्वब्राश्व्राप्ण फाश हऐबाबू जखादमी नारें । cफ्न नो चेश्वरब्रव्र विtब्राशe নাই ৰিচ্ছেদও নাই। কুসঙ্গ করিলে দুঃখ পাইবার সম্ভাবন। আছে, কিন্তু সৎসঙ্গে দুঃখ পাই ाज आत्रका नाइँ । স্ত্রীপুরুষের অঙ্গরাগের স্থায় ছঃখের আশঙ্কা আছে ৰলিয়া