পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/২৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| ; &ફ T-For “ধূপং চায়াত্রিকং পণ্ডেং করাত্যাঞ্চ প্রবন্ধতে । কুলকোটিংসমূহ্ত্যযাতিৰিকো পরং পাম্।।” (বিষ্ণুধর্শ্বোত্তর) ং পূৰিতে, রাজগণ নীরাঙ্গন শাস্তিকার্য সম্পন্ন করিয়া শত্রুবিজয়ে গমন করিবেন। ইহার বিষয় বৃহৎসংহিতায় এইরূপ লিথিত আছে— ভগবান বিষ্ণু জাগরিত হইলে, তুরঙ্গ মাতঙ্গ ও মনুষ্যগণের নীরাজন করিতে হইবে। কাৰ্ত্তিক শুক্লপক্ষের পূর্ণিম, দ্বাদশী ও অষ্টমীতে কিংবা অশ্বিনমাসে মীরাঞ্জন নামে শাস্তি করিতে হইবে। নগরের উত্তর-পূৰ্ব্বদিকে প্রশস্ত ভূমিতে, প্রশস্ত দারুযোড়শ হস্ত উন্নত ও দশহস্ত বিস্তৃত একটী তোরণ করিতে হইবে, তাহাতে সর্জ, উল্লম্বরশাখা ও ককুভময় এবং কুশ বহুল এক শান্তি-নিকেতন করিবে। উহার স্বারে বংশবিনিৰ্ম্মিত মৎস্ত, ধ্বজ ও চক্ৰ নিৰ্ম্মাণ বিধেয় । শান্তিগ্রহ ও অন্যান্য সকলের পুষ্টির জন্ত অশ্বগণের গলদেশে প্রতিসরণমন্ত্রদ্বার, ভল্লাতক শালিধান্ত, কুড় ও সিদ্ধাৰ্থ বন্ধন করিবে এবং রবি, বরুণ, বিশ্বদেব, প্রজাপতি, ইন্দ্র ও বিষ্ণু সম্বন্ধীয় মন্ত্রে শাস্তিগৃহে ৭ দিন অশ্বগণের শান্তি করিবে। সেই অশ্বগণ পুণাহে শঙ্খ, তুৰ্য্যধ্বনি ও গীতধ্বনি দ্বারা বিমুক্তম্ভয় এবং পূজিত হইলে, পরষবাক্যে বা অন্য প্রকারে তাড়নীয় হয় না। অষ্টম দিনে কুশ ও চারদ্বারা আবৃত আশ্রমাগ্নিকে তোরণের দক্ষিণদিক হইতে উত্তরাভিমুখে বেদীর উপরে স্থাপনীয়। চন্দন, কুষ্ঠ, সমঙ্গ (মঞ্জিষ্ঠা ), হরিতাল, মনঃশিলা, প্রিয়ঙ্গু, বচ, দন্তী, অমৃত, অঞ্জন, হরিদ্র, সুবর্ণ, অগ্নিমন্থ, কটস্তর, ত্রায়মাণা, সহদেবী, শ্বেতবর্ণ, পূর্ণকোষ, নাগকুসুম, স্বগুপ্ত, শতাবরী, সোমরাজী ও পুপ এই সকল প্রব্যে কলস পূর্ণ করিয়া প্রচুর মধুপায়স যাবক প্রভৃতি, নানা প্রকার ভক্ষ্য সহিত বলি উপহার দিবে। খদির, পলাশ, উচ্চুম্বর, কাশ্মরী বা অশ্বথস্থায় যজ্ঞীয়কাষ্ঠ করিতে হইবে। ঐশ্বৰ্য্যপ্রার্থীদিগের পক্ষে স্বর্ণ বা রৌপ্য দ্বারা ক্রকৃ নিৰ্ম্মাণ করা কর্তব্য। রাজা পূৰ্ব্বমুখে অশ্ববৈদ্য ও দৈবজ্ঞগণসহিত অগ্নি সমীপে উপবেশন করিবেন। পরে লক্ষণযুক্ত অশ্ব ও শ্রেষ্ঠ হস্তীকে স্নান ও দীক্ষিত করাইয়া অক্ষত, শ্বেতবস্ত্র, গন্ধদ্রব্য, মাল্য ও ধূপ দ্বারা অভাচিত করিয়া বাক্যদ্বারা সাস্বন৷ এবং বাদ্যযন্ত্র শঙ্খ, পুণ্যাহ শঙ্কা করিতে করিতে আশ্রমতোরণের সমীপে আনিবে । এইরূপে আনীত অশ্ব সকল, যদি দক্ষিণচরণ সমুৎক্ষেপণপূর্বক অবস্থান করে, তাহা হইলে সেই নরেন্স অচিরে বিনা স্বত্বে শত্রগণকে জয় করিতে সমর্থ হন। কিন্তু অখ ভীত হইলে রাজার অশুভ হয়। পুরোহিত খাবিধি অভিমন্ত্ৰণ করিয়া খাদ্যপ্রদান করিলে, [ રજૂર ] নীরাজনা অখ যদি তাহা আম্রাণ বা আহার করে, তাহা হইলে জয় হয়। रूिढ हेहांब्र विश्रब्रैौऊ झहेtश श्र७छ हहेग्न थाटक । फेझबtब्रव्र শাখা কলসজলে প্লাবিত করিয়া নৃপ ও নাগসমন্বিত সেনা ও অশ্বগণকে শাস্কিপৌষ্টিক মন্ত্রদ্বারা পুরোহিত স্পর্শ করিবেন এবং রাষ্ট্রবৃদ্ধির জন্ত আভিচারিক মন্ত্রে ভূয়োভূয়ঃ শাস্তি করিয়া, পুরোহিত মুগ্ধয় শক্রপ্রতিকৃতিনিৰ্ম্মণিপুৰ্ব্বক শূলদ্বারা তাহার বক্ষঃস্থল বিদীর্ণ করিবেন । পুরোহিত অভিমন্ত্রণ করিয়া অশ্বকে খলীন ( লাগাম ) প্রদান করিবেন। তৎপরে রাজা এইরূপে নীরাজিত হইয়া উত্তরপূৰ্ব্বদিকে গমন করিবেন। তখন চারিদিকে নানাপ্রকার মাঙ্গলিক ধ্বনি হইতে থাকিবে। এই সময় সৈন্য সকল আহিলাদিত, অশ্ব, হস্তী ও নরগণে পরিবৃত, নিৰ্ম্মল প্রহরণসকল দীপ্তিময়, বিকারশূন্ত এবং অরিপক্ষের ভয়োদ্দীপক হয়, সেই রাজা অচিরে পৃথিবীজয় করিত্তে সমর্থ হইয়া থাকেন । ( বৃহৎস” ৪৪ অ” ) কালিকাপুরাণে নীরাজনাশাস্তির বিধি এইরূপ লিখিত ಇtಡ್ಕ নীয়াজন শাস্তিদ্বারা অশ্ব, গজ প্রভৃতি সৈন্ত বৰ্দ্ধিত হয় । অশ্বিন মাসের স্বাতিযুক্ত শুক্ল তৃতীয়াতে নিজপুরের ঈশানভাগে উত্তমস্থান সংস্কার করিতে হইবে। তাহার পর অষ্টম দিবস উপস্থিত হইলে নীরাজন করিতে হইবে। রাজা মহাবল ও মনোহর একটী অশ্বকে ৭ দিন পর্যন্ত গন্ধপুষ্প ও বস্ত্রাদি দ্বারা আরাধনা করিবেন। তৃতীয়াদিতে পূজা করিয়া উক্ত অশ্বকে যজ্ঞস্থানে উপস্থাপিত করিবেন। তাহার চেষ্টামুসারে শুভাশুভ জানা যাইবে ;—অশ্ব ঐ স্থানে উপস্থিত হইয়া যদি পলায়ন করে, তাহা হইলে রাজার ক্ষয় ছয় এবং অশ্ব যদি অশ্রু ত্যাগ করে, তাহা হইলে রাজপুত্রের মৃত্যু হয়, অশ্ব যদি ভূমি গমনে প্রতিকূলতাচরণ করে, তাহা হইলে রাজমহিষীর মুর্তু ও অশ্ব যদি মুখ নাসা চক্ষু প্রভৃতিতে শব্দ করে, তাহ হইলে যে দিকে সন্মুখীন হুইয়া ঐ শব্দ করে, সেই দিকের বিপক্ষ সকল বিনষ্ট হয়। ঐ অশ্ব যদি দক্ষিণপাদের অগ্রভাগ উত্তোলন করিয়া রাজার অগ্রে অবস্থান করে, তাহা হইলে ভূপতি সকল বিপক্ষকেই পরাজয় করেন। দশমীতিথিতে প্রাতঃকালে নীরাজন করিবে, দৈববশতঃ উক্ত তিথিতে অসমর্থ হইলে উক্ত দশমীর পর দ্বাদশীতে নীরাজন শক্তি করিবেন । ইহাতেও যদি বিঘ্ন উপস্থিত হয়, তাহা হইলে নিজপুরের ঈশশকোণে ষোড়শহস্তপরিমিত স্থানের মধ্যে দশছন্ত পরিমিত বিপুল তোরণ ৰিশ্মাণ করিবে। ৩২ হাত দীর্ঘ ও ১৬ হাত পরিমাণ বিস্তুত ৰঙ্গমণ্ডপ নিৰ্ম্মাণ করিবেন। বেদীর উত্তরভাগে অত্যুত্তম বেদী নিৰ্ম্মাণ করিবেন। এই স্থানে