পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/১৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


हैं भगंच्चों গোচর হয়, তবে ব্রাহ্মণকে শত গো দান কল্পিবেন অথচ নগরীকে, আপনাকে বা পুত্রকে নীরাজিত করিবেন। দেবক্ষুক্ত মন্ত্রদ্বারা দশহাজার হোম বা তৎপ্রতীকারের নিমিত্ত আমিত্তে তিলহোম করিবেন। ব্রাহ্মণাদি জাতিভেদে যে চারি প্রকার হস্তী আছে, তাহারা ব্ৰাহ্মণ প্রভৃতি চারিজাতির পক্ষে বাছনকার্য্যে যথাক্রমে গুভপ্রদ। মন্থয্যের আয়ু নির্ণয় করিবার স্বেরূপ মানাবিধ লক্ষণ অাছে, হাতীর আয়ু নির্ণয় করিবার জন্তও প্রাচীন আৰ্য্যচিকিৎসকগণ কতকগুলি লক্ষণ স্থির করিয়াছেন। সেই লক্ষণগুলি আষার দুই ভাগে বিভক্ত, বাহ ও আভ্যন্তর। আভ্যন্তর লক্ষণ যোগিগণ একমাত্র যোগবলেই অবলোকন করিয়া থাকেন, এস্থলে তাহার উল্লেখ নিম্প্রয়োজন। বাহলক্ষণ দ্বাদশটা ৷ যথা-হস্তগত, বদনাশ্রিত, বিষাণষ্ট, শিরস্থ, ময়নগত, কর্ণাশ্রিত, কণ্ঠস্থ, গাত্রস্থিত, চরণস্থিত, অপরাঙ্গস্থিত, কাস্তিস্থ ও সত্ত্বস্থিত। এই সকল লক্ষণ আবার ক্ষেত্র নামে উল্লেখ কয়া হইয়া থাকে। তন্ত্র জাতীয় হস্তীর পূর্ণ আয়ু ১২• বৎসর, মন্ত্র জাতীয়েয় ৪০ বৎসর এবং মিশ্রজাতী রের অনিয়ত। পূৰ্ব্বে ষে দ্বাদশ লক্ষণের উল্লেখ করা হইল, সেই দ্বাদশটা লক্ষণ থাকিলেই হাতীয় পূর্ণায়ু হইয়া থাকে এবং হীন হইলে আয়ুরও মূনতা হয়। হস্তগত লক্ষণের অভাব হইলে ১০ বৎসর আয়ু কমিয়া যায়, এই প্রকার ষে কোন দুইটী লক্ষণ হ্রাস হইলে ২০ বৎসর, তিনটী হীন হইলে ৩• বৎসর এবং চারিটা হীন হইলে ৪০ বৎসর আয়ু কমিয়া যায়। এই প্রকার এক একট লক্ষণের অভাষে ১৭ বৎসর করিয়া আয়ুর ক্ষয় হইয়া থাকে। এই লক্ষণগুলি হাতীর দুষ্ট লক্ষণের দোষও দূর করিয়া থাকে। পদ লক্ষণ থাকিলে দন্তদোষ বিনষ্ট হয়। এই প্রকায় দন্তলক্ষণ বাহিখদোষ, বাহিখলক্ষণ নেত্রদোষ, নেত্রলক্ষণ তালুদোষ ও তালুলক্ষণ স্বৰূদোষ সষ্ট করে। এই প্রকার অপরাপর স্থানের লক্ষণেও অপরাপর দোষ নিবারণ করিয়া থাকে। স্থানভেদে, দেশভেদে এবং আহার ও বাতপিত্তভেদে হস্তীশরীরের বিভিন্ন বর্ণ হইয়া থাকে। তাছার মধ্যে সিঙ্গুর, শঙ্খ, বৈদূৰ্য্য, বিদ্যুৎ, সুবর্ণ বা ইন্দ্ৰনীল বর্ণের ছাতীই ভাল। অতিশয় শ্বেতবর্ণ, রক্তবর্ণ বা শুক এবং ময়ূরসদৃশ यáदिभिटे श्डौ जर्रुीरभक ¢थ8 । uहेक्रण शांठी थाग्रहे দেখিতে পাওয়া যায় না। প্রাচ্য বনে ইহার দুই একটা ছাতী কখনও কখন দেখিতে পাওয়া যায়। পৃঙ্গার, জঙ্গার, জন্ম, অস্থি, পঙ্ক, মঞ্জি বা আম্রপুপ ভূল্য বর্ণের হাতী ভাল নহে, ইহাতে নানা রকমের উৎপাত হইবার সম্ভাবনা। \ [ s૧ ] शस्त्र • মন্থয্যের ষে সকল ব্যাধি আছে, হস্তীদিগেরও যেই সকল शांशि, इझेब्र शां८क । हेशग्न किंकि९नी७ बन्नध्षाग्न छांग्र कब्र! कर्डबा । अक्रफुश्रूत्वांtभग्न भएउ मष्ट्रवादक cष भाजांग्न ठेवश्व সেবন করাইতে হয়, হাতীকে তাহার চতুগুণ মাজাক্স ঔষধ সেবন করাইবে । বনে হস্তী বা হস্তিনী পীড়িত হইলে সংস্কারবশে আপনারাই ঔষধ অম্বেবঙ্গ করিয়া লইয়া সেবন করে। হাতীর পেটে প্রায়ই কৃমি হইয়া থাকে। হস্তীরা জানে ক্রিমির ঔষধ কৰ্দ্দম। কৃমি হইলে তাহার কাদার গোল পাকাইয়া খাইয়া ফেলে। গৃহপালিত হস্তীর সুচিকিৎসার ব্যবস্থাও প্রাচীন চিকিৎসকগণ নিরূপণ করিয়াছেন । মঙ্গুষ্যের পীড়া হইলে যেরূপ শাস্তি স্বস্ত্যয়ন করিতে হয়, হস্তীর পীড়া হইলেও সেইরূপ করিবার বিধান আছে । (অগ্নিপু- ৩১১ অঃ) প্রাচীন আর্য্যগণ হস্তীর ষে সকল লক্ষণ, শাস্তি ও ঔষধাদি নিরূপণ করিয়াছেন, তাহ সংক্ষেপে এই স্থানে উল্লেখ করা হইল, বিশেষ জানিতে হইলে, পরাশর, বৃহস্পতিংহিতা, যুক্তিকল্পতরু, পালকাপ্য, অগ্নিপুরাণ প্রভৃতি দ্রষ্টব্য। প্রাচীনকালে ভারতে যে সকল স্থানে হস্তীয় বসবাস ছিল তাহা পুৰ্ব্বে লিখিত হইয়াছে। বর্তমান সময়ে এসিয়া ও আফ্রিকা এই উভয় স্থানকেই হস্তীর আকর বলা ধাইতে পারে। দুই স্থানেই হস্তীর আকার ও গঠনগত বিলক্ষণ ভেদ আছে। দেখিলেই আকারগত ভেদ অনেকটা বুঝিতে পার। স্বায়। ইহাদের আভ্যন্তরিক গঠন প্রণালীরও তারতম্য আছে। এলিয়ার মধ্যে সিংহল, ভারতবর্ষ, ব্ৰহ্মদেশ, গুীমদেশ, মলয় উপদ্বীপ ও পূৰ্ব্বীপের পাৰ্ব্বত্য ও জঙ্গলময় ভূভাগেই বর্তী দেখিতে পাওয়া যায়। সিংহলে সমুদ্রপৃষ্ঠ হইতে ৭৮