পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৩৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অন্ত্যেষ্টি [ ৩২৮ ] অন্ত্যেষ্টি পৰ্য্যস্ত সমগ্ৰ চৰ্ম্মথানি খুলিয়া শবের উপরে ঢাকা দেওয়া চাই (৭)। সেকারণ বোধ হইতেছে, এখন আমরা ছাগ মেষাদি যে রূপে বলি দিই, তাহাতে মাথা পৃথকৃ হইয় পড়ে। সুতরাং পা হইতে মস্তক পর্যন্ত চৰ্ম্মথানি সমগ্র থাকে না। অতএব মুসলমানদের মত আর্যের রাজগধীকে জবাই করিতেন কিম্বা অন্ত কোন প্রকারে মারিতেন, এখন তাহ নিশ্চিত করা কঠিন। (৮) তাহার পর যজ্ঞীয় পাত্র গুলি শবের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের উপর সাজান হইত। দধি এবং ঘূতপূর্ণ অগ্নিহোত্রহবনী মুখে রাখা হইত ; নাকে ক্ৰব ; চক্ষে সুবর্ণ খণ্ড কিন্ধ। আজ্যক্ৰব ; প্রাশিত্রহরণ কাণে ; কপালপাত্র ভাঙ্গিয়৷ মস্তকের উপরে রাথ হইত ; ললাটের উপর এককপাল ; মস্তকে চমসও দিবার প্রথা ছিল। আশ্বলায়নীয় স্বত্রে অন্ত প্রকার ব্যবস্থা দেওয়া হইয়াছে। যথা,— দক্ষিণহস্তে জুহু ; বাম হস্তে উপভৃৎ ; দক্ষিণ পাশ্বে স্ফ্য ছুরিকা ; বাম ভাগে অগ্নিহোত্রহবনী ; দন্তে গ্রাভু ; মস্তকে কপাল ; বক্ষঃস্থলে ধ্রুব ; নাসিকায় ক্ৰব ; নাসারদ্ধে, প্রাশিত্রহরণ ; উদরে চমস ও পাত্ৰী ; জননেন্দ্রিয়ে শমি ; উরুর নিয়ে উদুখল ও মুসল ; উরুর উপরে অরণি ; পায়ে স্থপ । রাজগবীর মাংসও দেহের স্থানে স্থানে দিবার নিয়ম ছিল । অশ্বলায়ন তাহার এই রূপ ব্যবস্থা করিয়া (৭) পুরুষন্ত স্যাবর্ষপেদঘানি মৃজমহে। যথা নে অত্র নাপরঃ পুর জরস আয়তি। তৈ• আ• ৬। ১ - ২। ১’ । পুরুষন্ত স্যাবরি বি তে প্রাশমসিস্ত্রসং। শরীরেণ মহমিহি স্বধ য়েহি পিতৃমুপ প্রজয়াহুম্মাণিহাবহ । ৬ ৷ ১ ৷ ২ ৷ ১১ ৷ মৈবং মাংস্ত প্রিয়েহহং দেবী সতী পিতৃলোকং যদেষি। বিশ্ববার নম্ভসা সংব্যয়স্তুভে নো লোকে পয়সা ইভাববৃৎস্ব । ৬। ১। ২। ১২ মৃতব্যক্তির সহগামিনি (রাজগবি)। আমরা তোমার দ্বার প্রেতাত্মার পাপ হইতে এরূপে শোধন করিলাম, যেন জরা কিম্বা পূৰ্ব্বের অপর কোন পাপ আমাদের কাছে না আসিতে পারে। ৫ সুভব্যক্তির অনুগামিনি! আমরা তোমার প্রাণকে শিথিল কৰি দিলাম। তুমি শরীরের দ্বারা ভূমি প্রাপ্ত হও, স্বধ দ্বারা পিতৃলোক প্রাপ্ত হও । এই পৃথিবীতে পুত্রাদি সহ আমাদিগকে ক্ষম। কর । হে প্রিয়ে (রাজগবি ) ! আমি হত হইলাম এমন কথা মনে করিও না। কারণ তুমি দেবী ও সতী এবং ছালোক দিয়া পিতৃ লোকে যাইতেছ। আমাদিগকে ইহলোকে ও পরলোকে ক্ষীরপূর্ণ কর। (৮) অথৈনং চৰ্ম্মনা সশীর্ষবালপাদেন উত্তরলোয়। প্রোন্নতি । { সায়ন, আ- ভায্য ) । ছেন যে, গোরুর চৰ্ব্বী মৃতদেহের মাথায় ও চক্ষে দেওয়া চাই। বৃক্কক হাতে ; হৃদয় বক্ষঃস্থলে ; গোরুর মাংস এবং অন্তান্ত ইন্দ্রিয় শবের অপরাপর অঙ্গে দেওয়া श्झेऊ । রাজগবীকে বধ করিবার সময়ে কোন বিঘ্ন ঘটিলে তাহার সম্মুথের বাম পার খুর ভাঙ্গিয় তাহাকে ছাড়িয়া দেওয়ার নিরম ছিল। এরূপ স্থলে আর্য্যের গোমাংসের অভাবে চাউল কিম্ব যব বাটিয়া তাহাই মৃতদেহের স্থানে স্থানে দিতেন । আবার গোরুর অভাবে শ্মশানে ছাগল লইয়া গেলে তাহাকে বধ করা হইত না। এক গাছী সরু দড়ীতে ছাগল টা চিতার কাঠে বাধা থাকিত । শেষে আগুনে দড়ী পুড়িয়া গেলে সে পলাইয়। যাইত । এই সকল আয়োজন শেষ হইয়া গেলে, মৃত ব্যক্তি ব্রাহ্মণ হইলে তাহার হাতে এক থওঁ সুবর্ণ দেওয়া হইত ; ক্ষত্রিয়ের হাতে ধতুক, বৈশ্বের হাতে রত্ন । তাহার পর, মৃতপতিরণ বিধবা নারী স্নানাদি করিয়া চিতার উপরে স্বামীর বাম পাশে শুহঁতেন । কিন্তু আশ্বলায়ন, পতির মস্তকের কাছে শুইতে ব্যবস্থা করিয়াছেন। অগ্নি, সমর্পণ করিবার পূৰ্ব্বে ঋত্বিক, কিম্বা মৃত ব্যক্তির পুত্র, সহোদর অথবা অন্ত কোন নিকট কুটুম্ব কাছে আসিয়া বলিতেন,—“হে প্রেত ? এই নারী পতিলোক কামনা করিয়া তোমার মৃতদেহের কাছে গুইয়া আছেন। তিনি পূৰ্ব্বে পতিপরায়ণতার কৰ্ত্তব্য কৰ্ম্ম সম্পন্ন করিয়াছেন। র্তাহাকে ইহলোকে থাকিতে অনুমতি করিয়া প্রজা ও ধন দাও (৯) । অবশেযে মৃত ব্যক্তির কনিষ্ঠ সহোদর, শিয্য কিম্ব পুরাতন চাকর এই কথা (১০) বলিয়া বিধবা নারীর হস্ত ধরিয়া তুলিয়। আনিতেন । ‘হে নারি! তুমি মৃত পতির কাছে শুইয়া আছ । তুমি মৃত পতির নিকট হইতে উঠিয়া জীবিত লোকদের কাছে আইস । তোমার যিনি পাণিগ্রহণ করিতে ইচ্ছা করেন, তাহাকে বিবাহ কর । এই মন্ত্র পাঠ করা হইলে বিধবা নারী পতির হাত হইতে সুবর্ণাদি লইয়। চিতা হইতে উঠিয়া আসিতেন । কিন্তু কোন কোন শাস্ত্রকার বলেন যে, ঋত্বিক্ কিম্বা মৃত (৯) ইয়ং নারী পতিলোকং বৃণানা নিপদ্যত উপ ত্বা মৰ্ত্ত প্রেতম্। বিশ্বং পুরাণমমুপালয়ন্ত তস্তৈ প্রজাং ত্রবিশঞ্চেস্থ ধেহি। (১০) উদাম্ব নার্যস্তি জীবলোকমিতাহমেতমুপশেষ এহি। হস্তগ্রাভস্ত দিধিধোস্বমেতং পত্যুর্জলিত্বমভিসম্বভুব ।