পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৪৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অপ্রস্তুতপ্রশংস৷ আসিতেছেন না, এই কার্য্য বর্ণনা করাই কবির অভিপ্রেত। কিন্তু সেই প্রকৃত বিষয় ছাড়িয়া, যে দেশে পতি বাস করিতেছেন তথাকার কোকিলদের কুহুস্বর কাকের ডাকের সঙ্গে তুলনা করিয়া পতি কেন গৃহে ফিরিয়া আসিতেছেন না, সেই কারণের উল্লেখ করা হইয়াছে। অর্থাৎ বিরহিনী নারী ষে খানে বাস করিতেছেন, তথায় কোকিলের রবে সৰ্ব্বদাই তাহাকে ব্যাকুল করিয়া তুলিতেছে। প্রবাসে যেখানে তাহার পতি আছেন, সেখানকার কোকিলের রব মিষ্ট হইলে তিনি অবশু মুগ্ধ হইয়া দেশে ফিরিয়া আসিতেন । ২ ।—কারণ বর্ণনা করিবার অভিপ্রায়ে কার্য্যের বর্ণনা । যথা— হিমকর পেখি, তানত করু আনন, রহত করণ পথ হেরি । নয়ন কাজর দেই, লিথই বিধুস্তুদ, তা সঞে কহত ংি টেরি । , রাধিক কৃষ্ণ বিরহে মলিনী হইয়া বসিয়া আছেন এমন সময়ে আকাশে তিনি চন্দ্ৰ দেখিতে পাইলেন। অমনি তিনি চক্ষের কাজলে রাহু আঁকিয়া ক্রোধে চন্দ্রের প্রতি কহিতে লাগিলেন । চন্দ্র দেখিয়া রাধিকার বিরহানল অধিক প্রজ্বলিত হইয়াছিল। অতএব রাধিকার মনঃকষ্ট বৃদ্ধি হইবার কারণ বর্ণনা করাই কবির অভিপ্রেত। কিন্তু সেই প্রকৃত বিষয় ত্যাগ করিয়া রাধিক। চন্দ্রকে ভয় দেখাইবার নিমিত্ত রাহু আঁকিয়াছিলেন, এই কার্য্যের বর্ণনা কর। হইয়াছে। অতএব রাহু উল্লিখিত হওয়ায় চন্দ্রই রাধিকার অধিক দুঃখের কারণ তাহা ব্যক্ত হইল। ৩ –বিশেষ বিষয়ের বর্ণনা করিবার অভিপ্রায়ে সামান্ত বিষয়ের বর্ণনা । যথা— পাদ্যহতং যদুখায় মুৰ্দ্ধানমধিরোহতি। স্বস্থাদেবীপমানেপি দেহিনস্তদ্বরং রজঃ । যে ধূলা পদ দ্বারা মাড়াইলে উড়িয়া মস্তকের উপর পড়ে, সেই অচেতন ধুলি অপমানিত হইলেও চেতন এবং সস্তুষ্ট দেহী অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ । আমাদের অপেক্ষ ধূলি শ্রেষ্ঠ, এই বিশেষ প্রস্তুত প্রকাশ করা বক্তার অভিপ্রেত। কিন্তু তাহা দেঃ} সামান্ত অপেক্ষ শ্রেষ্ঠ, এই সামান্তাকারে বর্ণনা করা झहेग्नाट्छ । [8२२ ] ৪।--সামান্ত বর্ণনা করিতে গিয়া বিশেষ বর্ণনা । যথা— অপ্রস্তুতপ্রশংসা অগিয়ং যদি জীবিতাপহা হৃদয়ে কিং নিহিতা ন হস্তি মাম। বিষমপ্যমৃতং কচিস্তুবেদমৃতস্ব বিষমীশ্বরেচ্ছয়।। এই মালা যদি প্রাণনাশিনী, তবে আমার হৃদয়ে থাকিয় আমাকে নষ্ট করিতেছে না কেন ? অতএব ঈশ্বরের ইচ্ছায় কোন আধারে বিষও অমৃত হয়, কোথাও অমৃতও বিয হইয় থাকে। এখানে, কোথাও অহিতকারী বস্তু হিত করিয়া থাকে এবং কোথাও হিতকর বস্তু অহিত করিয়া থাকে এই সামান্ত প্রস্তুত বিষয় বলিতে গিয়া বিয এবং অমৃত এই বিশেষ অপ্রস্তুত কথিত হইয়াছে । ৫ –তুল্য বিষয়ের বর্ণনা করিবার অভিপ্রারে তুল্যের বর্ণনা দুই প্রকার। তাহার মধ্যে একটা শ্লেষমূলক এবং আর একটা সাদৃশ্বমূলক। শ্লেষমূলক প্রয়োগ স্থলে সমাসোক্তি অলঙ্কারের দ্যায় কোথাও কেবল বিশেষণ পদের শ্লেষ হইয়া থাকে। অন্যত্র আবার শ্লেষ অলঙ্কারের দ্যায় বিশেষ্য এবং বিশেষণ এই উভয় পদের শ্লেষে ও দেখা যায় । কেবল বিশেষণ পদের শ্লেযে যথা – সহকারঃ সদামোদে বসস্তীসমম্বিতঃ। সমুজ্জ্বলরুচিঃ শ্ৰীমান প্রভূতোংকলিকাকুলঃ । এই শ্লোকের দুই প্রকার অর্থ। একটা অর্থ আম্র বৃক্ষের পক্ষে অন্ত অর্থ নায়কের পক্ষে । আঞ্জবৃক্ষের পক্ষে যথা,— এই সহকার বৃক্ষ সৰ্ব্বদাই সৌরভযুক্ত, এবং কাস্ত কালের পল্লবাদিতে সুশোভিত। ইহা উজ্জ্বল কান্তিযুক্ত ও সুশ্ৰ এরং প্রচুর মুকুলে পরিপূর্ণ। নায়কের পক্ষে । সদামোদঃ—সৰ্ব্বদা আহলাদযুক্ত । বসন্তীসমন্বিত:—বসন্তকালের উপযুক্ত বেশভূষাতে শোভিত। সমুজ্জ্বলরুচিঃ-শৃঙ্গারাভিলাষযুক্ত। প্রভূতোৎকলিকাকুলঃ—অতিশয় উৎকণ্ঠিত। কোন নায়িকা অপ্রস্তুত আম্রবৃক্ষ উদ্দেশে এই সমস্ত কথা গুলি বলিল, কিন্তু তাহার সেই সমস্ত কথা গুলির শ্লেষার্থ দ্বারা প্রস্তুত না য়কের প্রতীতি হইতেছে। তজ্জন্ত ইহাকে শ্লেষমূলক অগ্রস্তুতপ্রশংসা অলঙ্কার বলা যায় । বিশেষ্য শ্লেষে যথা— পুংস্তাদপি প্ৰবিচলে যদি, যদ্যধোপি যায়াদ, যদি প্রণয়নে ন মহানপি স্তাৎ। অভুদ্ধরেক্তদপি বিশ্বমিতীদৃশীয়ং কেনাপি দিক্‌ প্রকটিত পুরুষোত্তমেন ।