পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৪৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


रङादा বল্লালসেনের পুত্র লক্ষ্মণসেনের সময়ে লক্ষ্মণ সংবৎ চলিত হইয়াছিল। ঐ সংবতের সাঙ্কেতিক চিহ্ন লিসং’। মাঘ মাসে উহার বৎসর আরম্ভ হয়। ১১০৮ খৃষ্টা হইতে লক্ষ্মণ সংবৎ চলিয়া আসিতেছে। (স্ত্রীযুক্ত বাবু রাজকৃষ্ট মুখোপাধ্যায়ের বাঙ্গালার ইতিহাস দেখ )। মিথিলায় লক্ষ্মণাক চলিত আছে এবং তথায় শিবসিংহ রাজা ও বিদ্যাপতি কবির নিবাস ছিল, বঙ্গদর্শনে এই রূপ প্রবন্ধ প্রকাশিত হয় । কিন্তু আমরা বিশেষ অমুসন্ধান করিয়া জানিলাম বাকুড়া জেলার অন্তর্গত ছাতনা গ্রামে শিবসিংহ রাজা ও বিদ্যাপতির নিবাস ছিল । - { বিদ্যাপতি শব্দ দেখ )। পূৰ্ব্বে গ্রিস দেশের অন্তর্গত ইলিস্ প্রদেশের ওলিম্পিয় নামক ক্ষেত্রে গ্রিসবাসীর মিলিত হইয়া মল্লক্রীড়া করিতেন। চারি বৎসর অন্তর অন্তর মহাসমারোহে এই উৎসব সম্পন্ন হইত। এই উৎসব হইতে ওলিম্পিয়াদ নামক অব্দের স্বষ্টি হয় । খৃষ্টের জন্মের ৭৭৬ বৎসর পূৰ্ব্বে ১লা জুলাই হইতে এই অব্দের আরম্ভ হইয়াছিল। ইহার পর রোমনগরের নিৰ্ম্মাণকাল হইতে আর একটি অন্ধ প্রচলিত হষ্টয় পড়ে। এই মহানগর ঠিক কোন সময়ে স্থাপিত হইয়াছিল, সে বিষয়ে সকলের মত সমান নহে। কাহার মতে ৭৪৭ খৃঃ পূৰ্ব্বে, কাহার মতে ৭৫০ খৃঃ পূৰ্ব্বে, কাহার মতে ৭৫১ খৃঃ পূর্বে, কাহার মতে ৭৫২ খৃঃ পূৰ্ব্বে, আবার কেহ কেহ বলেন খৃষ্ট জন্মের ৭৫৩ বৎসর পূৰ্ব্বে এই নগর স্থাপিত হয়। ২১শে এপ্রেল হইতে রোমনগরের অন্ধ গণনা করা হইত। এখন খৃষ্ট ধৰ্ম্মাবলম্বীদের মধ্যে সৰ্ব্বত্রই খৃষ্টাদ চলিত হইয়াছে । তদ্ভিন্ন যে যে স্থানে খৃষ্ট ধৰ্ম্মাবলম্বীদের অধিকার বিস্তীর্ণ হইয়া পড়িয়াছে, সে সকল স্থানেও খৃষ্টান্ধের চলন দেখা যায়। কোন সময় হইতে খৃষ্টা চলিত হইয়াছে, সে বিষয়ে বিরোধ অনেক । কেহ কেহ বলেন স্লিপ্ত খুষ্টের জন্মের পর হইতেই খৃষ্টাক গণনা করা হইয়। থাকে। পূৰ্ব্বে অনেকে ২৫ মার্চ হইতে খৃষ্টাব্দ গণন। করিতেন। ১১০০ খৃষ্টাব্দে জার্মন প্রভৃতি দেশে খুষ্টের জন্ম দিন হইতে বৎসর আরম্ভ করা হইত। অতি প্রাচীন কালে খৃষ্টধৰ্ম্মাবলম্বীর পৃথিবীর সৃষ্টির সময় হইতে একটা অদ গণনা করিতেন। কিন্তু কতকাল হইল পৃথিবীর সৃষ্টি হইয়াছে, বাইবল দেখিয় তাহ। নিশ্চিত করা সুকঠিন। হিব্রু, সমরিতান এবং সেগুজিন্তু, বাইবলের এই তিন প্রকার প্রামাণিক পুস্তক [ ৪৩২ ] | অবদ দেখিয়া সৃষ্টির কাল নিরূপণ করিতে হয়। কিন্তু এক্ট তিনখানি পুস্তকে মতের সামঞ্জস্ত নাই, অতএব বাইবল দেখিয়া স্বষ্টির কাল নিশ্চিত করা বিড়ম্বনামাত্র। দি-বিগ্নোল অন্ততঃ দুইশত প্রকার গণনা দৃষ্টি স্থির করিয়াছেন যে, খৃষ্ট জন্মের পূৰ্ব্বে ৩৪৮৩ বৎসরের নুন নহে এবং ৬৯৮৪ বৎসরের অধিক নহে পৃথিবীর স্বষ্টি হষ্টয়াছে। কিন্তু সচরাচর খুষ্ট জন্মের পূৰ্ব্বে ৪০০৪ বৎসরই গৃহীত হইয় থাকে। ইহুদীদিগের অব্দ এখনকার খৃষ্টধৰ্ম্মাবলম্বীদের মত নহে। ইহঁর মুযাকে ভক্তি করেন, কিন্তু য়িষ্ণু খৃষ্টকে মূষ বলিয়া মানেন না । তাছার বলেন যে, মানুষের ত্ৰাণকৰ্ত্তা এখনও জন্মগ্রহণ করেন নাই। তজ্জন্ত ইহুদী জাতির মধ্যে খৃষ্টাব্দের চলন নাই। ইত্ৰেলাইটরা মিশর হইতে যে সময়ে প্রস্থান করিয়াছিলেন, তাহার পূর্বের হরিপদ সংক্রান্তি হইতে ইহুদীরা একট বর্ষ গণন করেন । তাহার পর নিশান বা অাবিদ মাসে তাহার শত্রুর হস্ত হইতে মুক্তি পাইলে বিষ্ণুপদ সংক্রান্তি হইতে আর একটী বর্ষ গণনা করা হয় । অতঃপর এই ঘটনার প্রসঙ্গে খৃঃ পূঃ ১৬২ বৎসর হইতে একট অন্ধ চলিয়। আসে। কাহার মতে ২৯১ বৎসর খৃঃ পূঃ হইতে ঐ অক চলিয়া আসিতেছে। এই অঞ্চ ৮৪ বৎসর পরিবৃতিতে চলিয়া থাকে । ইহুদীদের মধ্যে পৃথিবী সৃষ্টির অন্ধও চলিত আছে। র্তাহাদের মতে খৃষ্ট জন্মের ৩৭৬০ বৎসর পূৰ্ব্বে পৃথিবীর স্বষ্টি হইয়াছিল। পারস্ত দেশে মন্ধদের অন্ধ চলিত নাই। তৃতীয় জেদগার্ড রাজা হইলে ৬৩২ খৃঃ অব্দের ১৬ই জুন হইতে একটা নূতন বর্ষ চলিয়া আসিতেছে। পূৰ্ব্বে ৩৬৫ দিনে উহার এক একটী বৎসর হইত। কিন্তু ইহাতে ক্রমশঃ বৎসরের গোল হইতে লাগিল । তাই ১৯৭৯ খৃঃ অব্দে খোরাসনের সুলতান জেলালুদিন মালেক শ বর্ষ গণনার সংশোধন করিয়া মলমাসের হিসাব গ্রহণ করিলেন। এই অব্দ এখনও ভারতবর্ষের পার্শিজাতির মধ্যে প্রচলিত আছে। কিন্তু পার্শিরা সৰ্ব্বত্র এক সময় হইতে বর্ষ গণনা করেন না । কোথাও সেপ্টেম্বর, কোন স্থানে বা অক্টোবর মাস হইতে র্তাহারণ বৎসর গণনা করিয়া থাকেন । খৃষ্ট জন্মের ২০০০ বৎসর পূর্বে র্যাউ সম্রাটের রাজত্বকালে চীন দেশে দুই প্রকার বৎসর চলিত ছিল। রাজকীয় কাৰ্য্যাদি চাঙ্গ বৎসরের হিসাবে সম্পন্ন করা