পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রোম-সাম্রাজ্য [ ৪৯ ] রোম-লাম্রাজ্য ৮৩ খৃঃ পুঃ বসন্তকালে ৪০হাজার সৈন্ত এবং বহুসংখ্যক পারিষদসহ সাল্লা ব্রা থুসিয়ামে অবতীর্ণ হইলেন। তখন এল-সিপিও এবং নোবানান্স কন্সল ছিলেন। সিয়া ও সিসালপাইন গলের প্রোকদল কার্বে সাল্লার সহিত যুদ্ধার্থ সৈন্ত সংগ্ৰহ করিতেছিলেন। কিন্তু সিন্না নিজ বিদ্রোহীলৈঙ্কের হান্তে নিহত হইলেন। মেরায়াসের পক্ষ নেতৃহীন হইয়াও সাল্লার প্রতিরোধের নিমিত্ত্ব আয়োজন করিতে লাগিলেন। ২••••• সৈন্ত মেরায়াসের পক্ষে যুদ্ধ করিতে অস্ত্ৰধারণ করিল। কিন্তু সাল্লা কেবল মাত্র ৪•••• সৈন্তসহ ত্ৰাণ্ডুসিয়ামে উপস্থিত হইলেন। কিন্তু মেরায়াসৃপক্ষীয় সৈন্যদল অধিনায়ক এবং স্বশিক্ষা অভাবে কাপুর, টিনাম ও গ্রিনেটির যুদ্ধে পরাজিত হইয় ছত্রভঙ্গ হইল। - কন্সল নোৰ্বানাস, কাস্পিনীয়ার রণক্ষেত্রে পরাজিত হইয়া রোডস দ্বীপে প্রস্থান করিলেন। সাধা কাম্পিনীয়ার শিবির সন্নিবেশ করিয়া রহিলেন। এদিকে কার্বে ও কনিষ্ঠ মেরায়াস রোমের কন্সল নিযুক্ত হইলেন। ৪২ খৃঃ পূঃ সাল্লায় সৈম্ভের সহিত কনিষ্ঠ মেরায়াসের সাক্রিপোর্টাস নামক স্থানে যুদ্ধ হইল। মেরায়াস পরাস্ত হইয়া প্রিনেষ্টি নামক স্থানে আশ্রয় লইলেন। প্রিনেষ্ট উদ্ধারের জন্ত ২টা যুদ্ধ করিলেন। এই সময়ে প্লম্পি এবং কার্কে মেটালা সাল্লার পক্ষ হইয়া কার্বোর সহিত যুদ্ধ করিতে লাগিলেন। সারা নিৰ্ব্বিবাদে রোমে প্রবেশ করিলেন। কার্বে পরাজিত হইয়া আফ্রিকায় পলাইলেন । কিন্তু সামনাইট ও লুকানীয়গণ সারার বিরুদ্ধে যুদ্ধার্থ রোমের অভিমুখে ধাবিত হইল। কলিনগেট নামক স্বানে ভীষণ যুদ্ধ ঘটিল। সামনাইটসেনাপতি পণ্টিয়াস্ ক্রাসের অদ্ভুত বীরত্বে পরাভূত ও নিহত হইলেন। কাম্পাস মার্শিয়াস্ নামক রঙ্গক্ষেত্রে সান্নার নৃশংস আদেশে বহু সহস্ৰ সামনাইট এবং লুকানিয়ান বনিগণের শিরশ্ছেদ সাধিত হইল। এই ঘটনায় প্রিনেষ্ট তুর্গস্থ সৈন্যগণ আত্মসমর্পণ করিল, কনিষ্ঠ মেরায়াস্ আত্মহত্যা করিলেন। লুকানিয়ানগণ নির্দয়ভাবে হত হইল। সারা এখন ইতালীর সৰ্ব্বময় কৰ্ত্তা, তিনি মেরায়াস পক্ষীর যাবতীয় ব্যক্তির ছিন্নমুও জানিতে আম্বেশ প্রচার করিলেন ও পুরস্কারের লোভ দেখাইলেন। তদনুসারে ভীষণ লোমহর্ষণ দৃশ্বের অভিনয় হইতে লাগিল। ২•• সেনেটের সদস্ত, ৪৬ জন কন্সল, ১৬e • বিচারক, এবং ১s • • • • রোমবাসীরশোণিতস্রোতে রোম বীভৎস ধৃত ধারণ করিল। এই লোকভয়ঙ্কর নৃশংস কাৰ্য্যের সময়ে সারা রোমের ডিক্টেটর বা সাৰ্ব্বভৌম ৰূর্ব হইলেন । কন্সল-নিৰ্ব্বাচন বিলুপ্ত হইল, তাহাতে রোমে সাল্লার যথেচ্ছাচার শাসন প্রচলিত হইতে XᏙᎥI రి দেখিয়া ৮১ খৃঃ পূঃ দুইজন কন্সল নিযুক্ত হইলেন। কিন্তু সার অনির্দিষ্টকালের জন্ত . ডিক্টেটর রছিলেন। প্রকৃত গ্ৰন্ধাৰে রোমের সাধারণতন্ত্র শাসন তিরোহিত হইয়া ব্যক্তিগত যথেচ্ছাচারের প্রতিষ্ঠা হইল। সাল্লার স্বর্ণময় অশ্বারোহি-মূৰ্ত্তি সেনেটে স্থাপিত হইল। এই সময়ে সারা শাসনপ্রণালী লওক্তও করিয়া নানাপ্রকার পরিবর্তন করিয়াছিলেন। তিনি তাহার সৈগুীিগকে মানাস্থানে জায়গির দিয়া অধিবাসীদিগকে বিতাড়িত করিলেন এবং ১••••• ক্রীতদাসকে কণিলিও নামে রোমের ৩৫টা জাতির অন্তর্নিবিষ্ট করিলেন । ৭৯ খৃঃ পূঃ পৰ্যন্ত সাল্লা শাসনপ্রণালীর লামা পরিবর্তন করিয়া হঠাৎ বিশাল রোমসাম্রাজ্যের রাজদণ্ড পরিত্যাগপূৰ্ব্বক প্রত্ৰজ্য পরিগ্রহ করিলেন এবং স্বীয় জীবনের ও শাসনকালের নিকাশী হিসাব প্রস্তুত করিতে লাগিলেন। ৭৮ খৃ: পূ: ৬০ বৎসর বয়সে সারা শমনসদনে গমন করেন। সাল্লার আদেশ অনুসারে কম্পিাস মার্শিয়াস নামক স্থানে তাহার শবদগ্ধ করা হইয়াছিল। তাহার স্বরচিত একটী কবিতা তাহার স্মৃতিস্তম্ভে উৎকীর্ণ ছিল, তাহার মৰ্ম্ম এই যে, “মিত্রের উপকার ও শত্রুর অপকার সাল্লা শতধারে পরিশোধ করিয়াছিলেন।” তৎপ্রবর্তিত শাসনের মধ্যে সেলেটের পুনর্গঠন, প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থা এবং ফৌজদারী আদালতের সংস্কার, তাহার প্রতিভার পরিচায়ক। সেইগুলি রোমে স্থায়ী হইয়াছিল। সাল্লার মৃত্যুর পরে চারিদিকে বিশৃঙ্খলতা উপস্থিত হইল। তিনি কৃষককুলকে নিৰ্ম্মল করিয়া সৈন্যদিগকে জারগির দিয়াছিলেন। সেই সকল লোক এক্ষণে উত্তেজিত হইতে লাগিল । সাল্লার সহযোগী ইমেলিয়াস লেপিডাল সাল্লা-প্রবর্ধিত শাসনব্যবস্থার মূলোচ্ছেদ করিতে সঙ্কল্প করিলেন, কিন্তু তাহাতে অকৃতকাৰ্য্য হইয়া এটাস্কান বিদ্রোহীদিগের সহিত মিলিত হইয়া রোমের বিরুদ্ধে অস্ত্ৰধারণ করিলেন। সাল্লার লেপ্টেনাণ্ট কেটালাস মালভিয়ান সেতু নামক স্থানের যুদ্ধে লেপিডাসকে পরাজিত করিলেন। মেরায়াস পক্ষীয় শাসনকর্তা কিউসাটোরিয়াস্ স্পেন দেশে স্বীয় প্রাধান্ত স্থাপন করিতে চেষ্টত ছিলেন । ৭৯ খৃঃ পুঃ মেটালাস তাহার বিরুদ্ধে যুদ্ধার্থ প্রেরিত হইয়া পরাজিত ও অবশেষে প্রো-কদল পদে উন্নীত হইয়া পম্পি (গ্রেট ) স্পেনে প্রেরিত হইলেন। সাটোরিয়াস অনেক যুদ্ধে পম্পিকে পরাস্ত করিলেন। দুইবর্ষ পরে সার্টোরিয়াল স্বীয় বিদ্রোহী সৈন্স পাপাৰ্ণাকর্তৃক গুপ্তভাবে নিহত হইলেন। পার্পার্শাই ভাবিয়াছিলেন যে, তিনি পম্পিকে পরাস্ত করবেন। কিন্তু প্রথম যুদ্ধেই তিনি পম্পিকর্তৃক পরাজিত ও বন্দীকৃত হইলেন। পম্পি আবিলৰে স্পেন জয় করিয়া ইতালী যাত্রা করিলেন। এই সময়ে রোমে বিষম বিপদের স্বচল হইল। স্পার্টাকাস নামক এক