পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/৫৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তসর निब्रांज, झग्निङकौ, बिडौठकी, जांभणकौ, कूश्म, cमोण, यमद्रौ প্রভৃতি বৃক্ষে তসর জন্মে। রেশমকীট-জাতীয় কীট উল্লিখিত বৃক্ষ সকলে তসর গুটি প্রস্তুত্ত করে । বলা বাহুল্য গুসর রেশমেরই প্রকার ভেদ মাত্র । [ রেশম দেখ । ] উপরে যে সকল স্থানের নাম লিখিত হুইল ঐ সকল catनt* ऊनद्र छऋण प्रख्ठांवठ:हे छे९*ाघ्र इग्न, ड८द हेहाद्र 5य s বহু বিস্তৃত। তসরের চাষ রেলম চাষের মত নহে। রেশমের চাষে ষেরূপ ভূতপাত খাওয়াইয়া রেশমকীটদিগকে পালন করা হয় এবং ষত্বপূর্বক কীটদিগকে গৃহ মধ্যে প্রতি*ांगन कब्रिग्नां शृं८छ्हे खफ्रैिंक छे९*ांमन कब्र श्ञ, उनब्र क्रांtष ঐ সকল প্রদেশে সেরূপ করে না । চাইবাসা, হাজারিবাগ, লোহারডাগ প্রভৃতি স্থানে তসর উৎপাদনকারিগণের তসরচাষ সেরূপ স্বত্বসাধ্য নহে । অরণ্য মধ্যে স্বভাবে উৎপন্ন তসরকীটদিগকে পশু পক্ষ্যাদির আক্রমণ হইতে রক্ষণ করা ব্যতীত আর কিছুই নহে । তসর চাষ। পূৰ্ব্ব হইতে কতকগুলি পরিপক্ক বীজ অর্থাৎ গুটি সংগ্ৰহ করিয়া রাখিয়া দেয় এবং যথা সময়ে ঐ গুটি কাটিয়া প্রজাপতি বাহির হইলে উহাদিগকে ধরিয়া সন্নিহিত অরণ্যে ছাড়িয়া দেয় । এই সময়ে ইহাদের স্ত্রী পুরুষের সন্মিলন হয় । অবিলম্বেই স্ত্রী প্রজাপতিগণ বৃক্ষের পত্রে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র চেপ্টা সর্ষপাকার অণ্ড প্রসব করে। झे नकल श्र७ न्नेव९ स्राप्ने प्रङब्रार श्रह्मनिष्ठ नृढ़ गध श्हेग्रा যায় । এক একটা প্রজাপতি ৩/৪ দিন ধরিয়া ২ a • হইতে ২৫ • পর্য্যন্ত ডিম্ব প্রসব করে । একবার সমস্ত আগু প্রসব করিলেই প্রজাপতিগণের জীবনের কার্য্য শেষ হইল। আও প্রসব করিবার ৩/৪ দিন পরেই ইহারা মরিয়া যায় । পুংপ্রজাপতিগণ শীঘ্ৰ মরিয়া যায়। তখন কেবল অওগণই ভবিষ্ণুৎ তসর কীটবংশের বংশরক্ষক বলিয়। বৰ্ত্তমান থাকে । ये नकल श्र७ इहेtङ २०॥१२ निन भzषा क्रूझ क्रूझ कौफ़े নির্গত হয় এবং পত্রোপরি চঞ্চল ভাবে বিচরণ করিতে थारक ।। ७हे नभन्न भै नकन कौप्ने अठिभग्न cभप्लेक श्य । অনবরত কোমল পত্র ভক্ষণ করিতে করিতে শীঘ্র শীঘ্ৰ বৰ্দ্ধিত इहे८ङ थt८क ।। ७हे नभम्र हेशंब्रt ७18 दtब्र cथांणन झांtफ़ । ८भाजन झांक्लिदांग्न नभन्न हेक्षांब्री किङ्कक१ श्रांशग्न विशद्ध wब्रिত্যাগ করিয়া নিস্তদ্ধভাবে থাকে। এইরূপে ১০১৫ দিন পরে ঐ সকল কীট পূর্ণাবয়ব প্রাপ্ত হয়। তখন ইহাদের আকার ७४ हेक् इहे८ऊ *७ हेक्ष भर्षाख श्ब्र शां८क ।। ७हे नक न কীট ধূসরবর্ণ এবং নীল, পীত, লোহিত প্রভৃতি নানাবিধ বর্ণে চিত্র বিচিত্র। চক্ষু ছুটী উজ্জল এবং পদ সকল ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র । [ tse ] ক্তময় छिन्न कूछेदfद्र *ग्न रुदेgफ ५ङांग९काण *ीर्षाख ७ई जङ्गब कौtफ़ेब्र श्रtनक श्रद्ध । यथभङः क्रूज़, अबइग्नि निौगिक প্রভৃতি ছাদের পরম শক্ত। চিল, কাক ও অষ্টা বনচর পক্ষী, কাঠমার্জার, সর্প প্রভৃতি প্রাণী সুবিধা পাইলেই ঐ সকল दौफ़े ५ग्निब्र छक५ क८ग्न । ७छछ aहे नभरग्न उनग्न-5ांशैौनेिश्वtरु অতি সস্তপণে ঐ সকল কীট রক্ষা করিতে হয়। রক্ষকগণ তীরধমু, প্রস্তর, বংশ প্রভৃতি দ্বারা ঐ সকল অধিকারীদিগকে उॉफ़ाहेब्रl cमग्न ; अंत्रण छांबांग्न हेशtक श्राफ़ cन७ब्रां कtश् । যাহারা অাড়া দেয়, তাহারা এই সময়ে কঠোর ব্রহ্মচৰ্য্য श्रदशश्न कग्निम्नां বনমধ্যে বাস করে। তাছাদের दिशंज ७क़* नां कब्रिहण कौछे भब्रिग्नां शांग्न । शूङब्रां१ ऊांझांज्ञ] पञग्नष्{ा মধ্যে পর্ণকুটীর নির্মাণ করিয়া ২৩ মাস কাল ব্রতপরায়ণ হইয়া শুদ্ধাচারে থাকে। মল মূত্র ত্যাগ করিলেই স্নান করে, প্রত্যহ একবেলা হবিষ্কার ভোজন করে এবং তৃণশয্যায় শয়ন করে । যে পৰ্য্যন্ত গুটিগুলি পরিপক্ক না হয় সে পৰ্য্যস্ত স্ত্রী পুত্রাদির মুখাবলোকন করে না । ইহাদের আর এক বিশ্বাস আছে যে, আড়া দিয়া ব্যাঘ্ৰ গমন করিলে গুটিপোকার উৎপাদিকাশক্তি বৃদ্ধি হয় । সুতরাং ব্যাঘ্ৰ গমন করিলে রক্ষকগণ অধিক লাভের আশা করিয়া থাকে । বলা বাহুল্য সাঁওতাল, কোল, কুড়মি প্রভৃতি জাতীয়েরাই প্রধানত: তসর চাষ করে। অনেক ইংরাজ বণিক সম্প্রতি এ বিষয়ে দৃষ্টিপাত कझिाtझ्न । 哆豪 কীট সকল পূর্ণাবয়ব প্রাপ্ত হইলে গুটি নিৰ্ম্মাণ জন্ত ব্যগ্র হয় । তখন ইহার বৃক্ষের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শাখা প্রশাখায় মুখ নিঃস্থত লাল দ্বারা একটা বৃন্ত নিৰ্ম্মাণ করে । এই লালাই পরে গুস্ক হইয়া দৃঢ় তসরস্বত্ররূপে পরিণত হয় । বৃন্ত নিৰ্ম্মিত হইলে ঐ সকল কীট মুখনিঃস্থত লালদ্বারা ক্রমাম্বয় ঘূরিতে ঘুরিতে পূৰ্ব্বেক্তরূপে একটা কোষ নিৰ্ম্মাণ করিয়া তন্মধ্যে বন্দী হয়। এই সকল কোষ বা গুটির আকার ঈষৎ লম্বা গোল অর্থাৎ অণ্ডাকৃতি । কীটের জাতি অনুসারে উহার ছোট বড় নানা প্রকার হইয়া থাকে। বৃহত্তম তসর গুটি ৩—৩ ইঞ্চ পৰ্য্যন্ত লম্বা হইয়া থাকে। গুটির মধ্যে ৩৪ দিন পর্য্যস্ত কীট ক্রমাগত সুত্র বাহির করিয়া পরে ক্ষান্ত হয় এবং গুটির মধ্যে নিদ্রা যাইতে থাকে। এই অবস্থায় ইহারা পানাহার সমস্ত ব্যাপার পরিত্যাগ করিয়া মৃতবৎ নিম্পন্দ ও নিশ্চেষ্ট অবস্থায় অবস্থান করে। কিন্তু আশ্চর্য্যের বিষয় এই যে, এই রূপে ২৩ মাস থাকিলেও ইহাদের মৃত্যু হয় না। এই অবস্থায়ুকোষ কাটিয়া ইহাদিগকে বাহির করিলে পিঙ্গলাবর্ণ অসাড় মাংসপিণ্ডবং কীট বহির্গত