পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কৃষিজাত ফসলের দর নিয়ন্ত্রণের উপায় ংলায় যদি কতকগুলি বড় বড় লিমিটেড, আড়তদারী-প্রতিষ্ঠান স্থাপিত হয়, এবং বাংলার যুবক-সম্প্রদায়ের মাথায় যদি স্বার্থৰুদ্ধি ও প্রতারণার কোন উদ্দেশু চাপিয়া না বসে, তাহা হইলে প্রত্যেক জেলার এামাঞ্চলের বিশ্বস্ত উৎসাহী কৰ্ম্মী যুবকগণকে লইয়া উক্ত লিমিটেড, আড়তদারী-কোম্পানীর অনুকরণে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র যৌথ কারবার খোলা যাইতে পারে। এই জাতীয় বহুসংখ্যক ক্ষুদ্র প্রতিষ্ঠানের দ্বারা পল্লী-অঞ্চলের উৎপন্ন অধিকাংশ মালের বাজার-দর নিয়ন্ত্রণ ( control ) করা সম্ভব হইতে পারে। এই কাজে মূলধন সংগ্ৰহ করা অপেক্ষা চাষী-সম্প্রদায়ের বিশ্বাস অর্জন করাই বেশী প্রয়োজন । বাংলার যে-সমস্ত অঞ্চলে প্রচুর পরিমাণে পাট, ধান, কলাই, মণ্ডরী প্রভৃতি উৎপন্ন হয়, তথাকার উৎসাহী কৰ্ম্ম যুবক-সম্প্রদায় যদি কিছু মূলধন সংগ্ৰহ করিয়া নদী ও রেলষ্টেসনের ধারে গুদাম ভাড়া লইয়া ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আড়ত খুলিয়া বসিতে পারেন, এবং চাষী-সম্প্রদায়ের উৎপন্ন সমস্ত মাল তাহারা বিক্রয় করিয়া দিবেন—এইরূপ প্রচার করিয়া সাধারণের বিশ্বাস অর্জন করিতে সক্ষম হন, তাহা হইলে ক্রমশঃ সব মাল তাহাদের আয়ত্তাধীনে আসিবে। অবশ্য প্রথম প্রথম কেহই উহাতে বিশ্বাস স্থাপন করিতে চাহিবেনা, হয়তো বা বিরুদ্ধ-প্রচারকারীও অনেক জুটিয়া যাইবে । কিন্তু স্থানীয় কতকগুলি লোকও যদি বুঝিতে পারে যে, ইহাদের উদ্বেগু সাধু, এই সমস্ত প্রতিষ্ঠান কর্তৃক মাল বিক্রয় হইলে প্রবঞ্চনার কোন সম্ভাবনা নাই, বরং বেশী লাভ হইবে, তখন আপনা হইতেই উহার সার্থকতা প্রচারিত হইয়া পড়িবে এবং জনসাধারণেরও