পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/৮৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ፃ¢ ব্যবসায়ে বাঙালী কেহ কেহ হয়তো বলিতে পারেন, “গবর্ণমেণ্ট পেপারের ওই লামাপ্ত স্বদে টাকাগুলি আটকাইয়া না রাখিয়া, উহা অন্ত কোন লাভজনক ব্যবসায়ে খাটাইলে প্রচুর লাভ করা যায়।” তাহাদের এ যুক্তি একেবারে ভিত্তিহীন নহে, বরং সমীচীনই বটে। কিন্তু একটা কথা আছে। মূল ব্যবসাকে যদি একটা দৃঢ় ভিত্তির উপর দাড় করান না যায়, তবে অনেক সময় অন্যান্য ব্যবসায়ে লোকসান দিয়া হয়তো মূল ব্যবসাটিই নষ্ট হইয়া যাইতে পারে। তারপর গবর্ণমেন্ট পেপার” খরিদ করিলে টাকাটা ঠিক একেবারে আবদ্ধ হইয়াও থাকে না। ঐ ‘পেপার” ব্যাঙ্কে গচ্ছিত রাখিয়া ব্যাঙ্ক হইতে টাকা ধার পাওয়া যায়, অর্থাৎ উক্ত পেপার বন্ধক রাথিয়া অল্প স্বদে সাময়িক টাকা লইবার ব্যবস্থা আছে। গবর্ণমেণ্ট পেপার ব্যাঙ্কে গচ্ছিত রাখা একপক্ষে যেমন নিরাপদ, অপরপক্ষে তেমনি উহার দ্বারা সাময়িকভাবে টাকার অভাবও পূরণ করা চলে। টাকার সচ্ছলতা ব্যবসায়ীর টাকার সচ্ছলতা থাকা অতিশয় প্রয়োজন। টাকার সচ্ছলতা না থাকিলে, অনেক সময় অনেক সুযোগ তাহার নষ্ট হইয়া যায় । বর্তমান দিনে যে-ব্যবসায়ীর যে-পরিমাণ টাকার সচ্ছলতা আছে, সেই ব্যবসায়ী সেই পরিমাণ লাভ করিয়া থাকে। মালের দরের সর্বদাই ওঠা-পড়া হইয়া থাকে। পড়তি বাজারে কম দরে মাল কিনিয়া মজুত রাখিতে না পারিলে, মোটা লাভ হয় না । তাছাড়া, কম দরে মাল খরিদ না থাকিলে অনেক সময় প্রতিবেশী ধনী ব্যবসায়ীর সহিত প্রতিযোগিতায় মাল বিক্রয় করিয়া খরিদার ধরিয়া রাখা অসম্ভব হইয়া পড়ে। ফুে-ব্যবসায়ীর কম দরে মাল খরিদ থাকে, বাজারদর চড়িয়া গেলেও, ঐ ব্যবসায়ী কখনই তখনকার বাজার-দরের সহিত