পাতা:মহর্ষি মনসুর - মোজাম্মেল হক.pdf/৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

মহষি মনসুর শিশুকে হস্ত তুলিয়া আশীৰ্ব্বাদ পূৰ্ব্বক প্ৰস্থান করিল। গৃহ উল্লাসময়—হাস্যভরা ! যেন স্বয়ং মূৰ্ত্তিমান আনন্দ আগমন পূৰ্ব্বক চতুদিকে বিচরণ করিতে লাগিল । অাজ যেন প্ৰচণ্ড প্ৰতাপ দিনমণির করাশি অধিকতর শুভ্ৰ— অধিকতর উজ্জল, অথচ শৈত্য-গুণ-বিশিষ্ট । আবার সুশীতল মলয়-মারুত মৃদুমন্দ প্ৰবাহে চলাচল করত মূৰ্ত্তি প্রচারে তৎপর হইল । পুরবাসি গণ এই শুভ দিনে আনন্দে উৎফুল্লাপ্ৰাণ । প্ৰতিবাসী, আত্মীয় , বন্ধু-বান্ধবরাও সে উৎসবে যোগদান করিতে ক্ৰটি করিল না । সকলেই আনন্দে উন্মত্ত । হাস্য-কোলাহলে গৃহভূমি শব্দায়মান হইয়া উঠিল । বিধাতার কৃপায় এবং জন-সাধারণের অন্তরিক আশীৰ্ব্বাদে এই ক্ষণজন্ম৷ শিশু দিন দিন বৰ্দ্ধিত ও বলসম্পন্ন হইতে লাগিলেন । দিন দিন তাহার অঙ্গপুষ্টি ও অপরুপ রুপলাবণ্য পরিস্তুটি হইতে লাগিল, পিতামাতা পরম যত্নে তাহাকে লালন পালন করিতে রহিলেন । আহা ! এ জগতে ভবিতব্যতার কথা কে জানিতে পারে ? যে মহাত্মা ঐশীশক্তি প্ৰভাবে অলৌকিক কাৰ্য্য দেখাইয়া জগতকে বিমোহিত ও বিস্মিত করিয়া গিয়াছেন, যে দৃঢ়ব্ৰত সত্যপ্রিয় মহাপুরুষ ধ্যান-সমাধিতে নিমগ্ন থাকিয়া ধৰ্ম্মোন্মত্ততার চরম সীমায় সমুপস্থিত হইয়া অকাতরে স্বীয় জীবন বিসৰ্জন পূৰ্ব্বক পৃথিবীতে চিরস্মরণীয় হইয়া রহিয়াছেন, যিনি তপস্বী-কুলের মহাতেজস্বী সিংহ স্বরুপ ছিলেন, যাহার অপাৰ্থিব বৈচিত্ৰ্যময় জীবনবৃত্তান্ত শুনিতে শুনিতে সৰ্ব্বাঙ্গ