পাতা:মহারাষ্ট্র-নৃপেন্দ্রকুমার বসু.djvu/১৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহারাষ্ট্র R; রছিলেন বটে, কিন্তু উহাদের বাধা মাহিনায় কাজ করিতে হইল। দেশমুখ ও দেশপাণ্ডেদের সমস্ত ক্ষমতা তিনি লোপ করিয়া দিলেন, কেবল তাহাজের পৈত্রিক জায়মীরের উপসন্তু তোশ্ব করিবার অধিকার দিলেন । স্নায়ক্টরে যে সকল প্রজ থাকত, তাহাঙ্গের নিকট হইতে দেশমুখ কি হারে খাজনা আদায় করিবেন ও তাহার মধ্য হইতে কত অংশ রাজ-সরকারে জমা দিবেন, তাৰা প্রতি বৎসর ফসলের গতিক বুধিয়া ঠিক করিয়াদেওয়াহইত। শিবান্ধীর বিশ্বাস ছিল-জমিদারগণ অস্থায় তাৰে প্রজ্ঞা-পীড়ন করিয়া বাছ টাকা আদায় করেন এবং রাজসরকারে নামমাত্র খাজমা দিয়া একটা মোটা লাভের পরিমাণ নিজের উপভোগ করেন। ঐ টাকার বলে এক এক সময় শেখর এমন ক্ষমতাশালী হইয় উঠেন যে, রাজাকেও তুচ্ছ করিড়ে পশ্চাৎপন্ন হন না। এই জন্তু ছত্রপতি নুতন করিয়া चांद्ध gकांम कर्षकांशैौष्क ज्ञकन्न दां निरुक्ल छाँग्नौङ्ग प्रशशां কাহাকেও ভূসম্পত্তির ইজার দিতেন না। কেল্লাল্লার' পদবীযুক্ত এক একজন মারাঠা সৈন্তাধ্যক্ষ যুগের কৰ্ত্ত থাকিতেন। তাহার অধীনে একজন ব্ৰাহ্মণ সুবনীশ (বা হিসাব রক্ষক ) ও একজন কায়স্থ 'কারকারীশ’ (বা অন্ত্রেশস্ত্রের শুদমি-রক্ষক ও য়শ সরবরাহকারক) থাকিতেন। কারাপ্রাচীর রক্ষ, দুৰ্গমেরামত এবং প্রয়োজনীয় সংবাদ সংগ্ৰহ করার জন্যও বিভিন্ন জাতীয় একদল দক্ষ কৰ্ম্মচারী ছিল। প্রতি হুগেই একজন করিয়া বৈষ্ঠ থাকিতেন। প্রত্যেক লৈঙ্ক নিদিষ্টহারে মাহিনী